আন্তর্জাতিক

সন্তানদের অধিকার নিয়ে ফের সমস্যা অ্যাঞ্জেলিনা-ব্র্যাডের

বিনোদন ডেস্ক : ফের বাড়ল ব্র্যাড পিট এবং অ্যাঞ্জেলিনা জোলির সম্পর্কের তিক্ততা৷ তাঁদের বিচ্ছেদের পর থেকেই একে অপরের মুখ দেখাদেখি বন্ধ করে দিয়েছেন দুই তারকা৷ তাঁদের এই তিক্ততাভরা সম্পর্কে আরও বাড়ল ঝামেলা৷ তাঁদের সন্তানের আইনি অধিকার নিয়ে সমস্যার মুখে অ্যাঞ্জেলিনা এবং ব্র্যাড৷ অ্যাঞ্জেলিনার কিছু পদক্ষেপের কারণে তিনি খোয়াতে পারেন নিজের সন্তানদের প্রাথমিক অধিকার৷ কোর্টের রায়ের পরও অভিনেত্রী, ব্র্যাডের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করতে রাজি নন৷ তাঁদের সম্পর্ককে বাচ্চাদের কারণেই স্বাভাবিক রাখার রায় দিয়েছিল people.com. যার পর অ্যাঞ্জেলিনার তরফ থেকে কোনও প্রচেষ্টা দেখতে পাচ্ছে না আদালত৷

তাঁদের ডিভোর্স কেস এখনও চলছে৷ সেটি চলাকালীনই বিচারপতি জানিয়েছিলেন, “ছটি বাচ্চাদের জন্য মা এবং বাবা উভয়ের সঙ্গেই সুস্থ সম্পর্ক বজায় রাখা সম্ভব হচ্ছে না৷” সেই কারণেই অ্যাঞ্জেলিনাকে বলা হয়েছিল ব্র্যাডের সঙ্গে সুস্থ সম্পর্ক মেনটেন করতে৷ ব্র্যাডের তরফ থেকে কোনও সমস্যা দেখতে পায়নি আদালত৷ বরং ব্র্যাডের সঠিক পদক্ষেপের কারণে সন্তানদদের কাস্টাডি তিনিই পেতে পারেন৷ এ বিষয় অ্যাঞ্জেলিনা এবং ব্র্যাড কেউ এখনও পর্যন্ত কোনও মন্তব্য করেননি৷

পারিবারিক আইনজীবি ডেভিড গ্লাস এ কেসের সঙ্গে যুক্ত নন, তবুও তিনি বিষয় মন্তব্য করে জানিয়েছেন, “আদালতে এধরণের সিদ্ধান্ত খুব কমই নেওয়া হয়৷ আদালত এই কেসটিতে মারাত্মকভাবে হস্তক্ষেপ করেছেন ঠিকই৷ তবুও তাঁরা চেষ্টা করছেনব যাতে অভিভাবকের সঙ্গে একজন বাচ্চারও বিচ্ছেদ না ঘটে৷ আমার মনে হয় বিচাপতি বিরহ এবং বিচ্ছেদের পার্থক্যটা ঠিক বুঝতে পারছেন না৷ যেমন বিরহ একটা আলাদা জিনিস৷ মা-বাবা কিছু করলে, তাতে সন্তানরা প্রভাবিত হয়৷ যেমন পিতা যদি সন্তানের ওপর চিৎকার করে ওঠে, বা ভালো ব্যবহার না করে, তাহলে সন্তান তখন বাবার সঙ্গে দূরত্ব বাড়াতে শুরু করে৷ এটার থেকে বিচ্ছেদ একেবারেই আলাদা জিনিস৷ যখন সন্তাকে মা-বাবার থেকে আলাদা থাকার আদেশ দেওয়া হয়, সেটাকে বিচ্ছেদ বলে৷”

আদালত অ্যাঞ্জেলিনাকে আদেশ দিয়েছে যাতে তিনি ব্র্যাড তাঁদের ছয়জন সন্তানের সঙ্গে নিয়মিত দেখা করতে পারেন৷ প্রচ্যেক গ্রীষ্মে ব্র্যাডের সঙ্গে সন্তানদের ছুটি কাটাতে দিতে হবে অভিনেত্রীকে৷ ফোনে বাচ্চাদেরকে ব্র্যাডের সঙ্গে কথা বলার অনুমতি দিতে হবে৷ এবং এই প্রতিটি কাজই অভিনেত্রীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই করতে পারবে৷

অ্যাঞ্জেলিনা এবং ব্র্যাডের ছয়টি সন্তান৷ সবথেরকে বড়ো হল ম্যাডক্স৷ ১৬ বছর বয়স তার৷ আরেকজন ম্যাক্স (১৪)৷ বাকিরা প্যাক্স (১৪), জাহারা (১৩), শিলো (১২) এবং সবথেকে ছোট নয় বছর বয়সী দুই জমজ ভিভিয়ান এবং নক্স৷

জুমবাংলানিউজ/এসএস