খেলা-ধুলা

৫ বিদেশি খেলোয়াড় খেলানোর পরিকল্পনা থেকে সরে আসছে বিসিবি!

সহসাই ‘হোম অ্যান্ড অ্যাওয়ে’ ভিত্তিতে হচ্ছে না বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ-বিপিএল। এজন্য খেলোয়াড়দের আবাসন সমস্যাকেই বড় করে দেখছেন বিপিএল গভার্নিং কাউন্সিলের চেয়ারম্যান আফজালুর রহমান সিনহা। সঙ্গে আগামী বিপিএলে ৫ বিদেশি খেলোয়াড়ের কোটা কমানোর পরিকল্পনার কথাও জানান তিনি।

১ সপ্তাহের ব্যবধানে এ চিত্র বিপিএলের দুই ভেন্যু- সিলেট ও ঢাকার। সিলেটে যেখানে প্রিমিয়ার লিগের ম্যাচের একটা টিকেট মানেই সোনার হরিণ, সেখানে ঢাকা পর্বের টিকিট বুথ গুলি যেন অনেকটাই ধু ধু মরুভূমি।

২০১২ সালে আইপিএলের আদলে ফ্রাঞ্ছাইজি ভিত্তিক লিগ বিপিএলের যাত্রা শুরু। কিন্তু টুর্নামেন্টের ৫ বছরেও লিগটিকে হোম অ্যান্ড অ্যাওয়ে ফরম্যাটে করতে পারেনি গভার্নিং কমিটি। এমনকি অদূর ভবিষ্যতেও সে সম্ভাবনা দেখছেন না বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিলের চেয়ারম্যান আফজালুর রহমান সিনহা।
সিনহা বলেন, ‘ঢাকায় আমরা দেখেছি, দ্বিতীয় রাউন্ডে মানুষ আসে। শুধু স্টেডিয়াম থাকলেই হবে না। এর পাশাপাশি আমাদের ভালো হোটেল থাকতে হবে। যেটা ঢাকার বাইরে পাওয়া বেশ কঠিন। এতগুলো টিম খেলতে যাবে, তাদের রাখার একটা ব্যবস্থা তো করতে হবে।’

এবারের আসরে শুরু থেকেই আলোচনায় ৫ বিদেশি ক্রিকেটার খেলানোর সিদ্ধান্ত। যার পক্ষে-বিপক্ষেও আছে নানান মত। ৫ বিদেশী ক্রিকেটারে বিপক্ষে সরব সাকিব-মোসাদ্দেকরা। তাইতো আলোচনার ভিত্তিতে ভবিষ্যতের আসরগুলিতে বিদেশি ক্রিকেটার কমানোর পরিকল্পনা কথাও জানান সিনহা।

তিনি বলেন, ‘এই ধরণের অভিযোগ যদি আমরা পাই তবে অবশ্যই বিবেচনা করবো।’

সঙ্গে বিপিএলকে আরো জমজমাট ও স্বচ্ছ করতে আগামী আসর থেকে যুক্ত হতে পারে রিভিউ সিস্টেম।-সময় নিউজ