ক্রিকেট (Cricket) খেলাধুলা

২৯২ রান করেও টাইগারদের কাছে পাত্তাই পেল না আয়ারল্যান্ড

স্পোর্টস ডেস্ক: ত্রিদেশীয় ওয়ানডে সিরিজের আজকের গুরুত্বহীন ম্যাচে স্বাগতিক আয়ারল্যান্ডের বিরুদ্ধে ৪২ বল এবং ৬ উইকেট হাতে রেখেই জয় পেয়েছে আগেই ফাইনাল নিশ্চিত করা মাশরাফি বাহিনী।

টার্গেট যেমন বড় ছিল, তামিম-লিটনের শুরুটাও ছিল তেমনই দুর্দান্ত। দুজনে মিলে উপহার দেন ১১৭ রানের ওপেনিং জুটি। তামিম তুলে নেন ক্যারিয়ারের ৪৬তম হাফ সেঞ্চুরি। অন্যাপ্রান্তে লিটনও ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় হাফ সেঞ্চুরি করে ফেলেছেন। এমন সময় ছন্দপতন। রেনকিনের বলে বোল্ড হয়ে যান ৫৩ বলে ৯ বাউন্ডারিতে ৫৭ রান করা দেশসেরা ওপেনার। তার বিদায়ের পর দারুণ খেলছিলেন লিটন। মনে হচ্ছিল, ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় সেঞ্চুরিটা হয়তো হয়েই যাবে। কিন্তু বিধি বাম। ম্যাককার্থির বলে টাইমিং মিস করে ক্লিন বোল্ড হয়ে শেষ হয় লিটনের ৬৭ বলে ৯ চার ১ ছক্কায় ৭৬ রানের ইনিংসটি।

এই পর্যায়ে দলের হাল ধরেন সাকিব আর মুশফিক। এই দুজনের জুটি জমে গিয়েছিল। তবে ৩৩ বলে ৩৫ রান করা মুশফিক রেনকিনের শিকার হলে ৬৪ রানেই অবসান হয় জুটির। এর মাঝেই চোটে পড়েন সাকিব। মাঠেই কিছুক্ষণ শুশ্রুষা নিয়ে ব্যাটিং শুরু করলেও শেষ পর্যন্ত মাঠ ছাড়তে হয় তাকে। আউট হওয়ার আগে তিনি ৫১ বলে অপরাজিত ৫০* রান করেন। এটা তার ক্যারিয়ারের ৪২তম হাফ সেঞ্চুরি। এরপর সিরিজে প্রথমবার একাদশে সুযোগ পাওয়া মোসাদ্দেক আউট হন ১৪ রান করে। মাহমুদউল্লাহ (৩৫*) আর সাব্বির (৭*) দলকে জিতিয়ে মাঠ ছাড়েন।

শুরুতে ব্যাট করে ৮ উইকেট হারিয়ে ২৯২ রান তোলে আয়ারল্যান্ড। দলের হয়ে পল স্টার্লিং এবং উইলিয়াম পোর্টারফিল্ড ১৭৪ রানের জুটি গড়েন। স্টার্লিং খেলেন ক্যারিয়ার সেরা ১৩০ রানের ইনিংস। পোর্টারফিল্ড হতাশ হন ৯৪ রানে আউট হয়ে।

বাংলাদেশের হয়ে ওয়ানডে ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় ম্যাচে দারুণ বোলিং করেন আবু জায়েদ। তিনি ৯ ওভারে ৫৮ রান দিয়ে নেন ৫ উইকেট।  এছাড়া রুবেল হোসেন একটি এবং সাইফউদ্দিন শেষ ওভারে দুই ব্যাটসম্যানকে বোল্ড করেন।

দুর্দান্ত জয় দিয়ে টুর্নামেন্ট শুরু করে বাংলাদেশ। প্রতিপক্ষ ওয়েস্ট ইন্ডিজকে লড়াই করার সুযোগই দেয়নি টাইগাররা। ক্যারিবীয়দের আট উইকেটে হারের লজ্জা দেয় বাংলাদেশ। টস জিতে প্রথমে ব্যাটিং করে শাই হোপের ১০৯ রানের সুবাদে নয় উইকেটে ২৬১ রানের লড়াকু সংগ্রহ পায় ক্যারিবীয়রা। জবাবে তামিম ইকবাল-সৌম্য সরকার ও সাকিব আল হাসানের হাফ-সেঞ্চুরিতে পাঁচ ওভার বাকি রেখেই জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে বাংলাদেশ। তামিম ৮০, সৌম্য ৭৩ রানে ফিরলেও সাকিব অপরাজিত ৬১ রান করেন।

এর পর আয়ারল্যান্ডের মুখোমুখি হয় বাংলাদেশ। কিন্তু বৃষ্টির কারণে ম্যাচটি পরিত্যক্ত হয়ে যায়। ম্যাচটি না হওয়ায় বেশ হতাশা হন বাংলাদেশের খেলোয়াড়রা। তবে ফিরতি পর্বে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ম্যাচে ঝামেলা পাকায়নি বৃষ্টি। ঠিকঠাক হয়ে যাওয়া ম্যাচে সহজ জয়ই পেয়েছে বাংলাদেশ। মঙ্গলবার অনুষ্ঠিত ওই ম্যাচে পাঁচ উইকেটে জয় পায় টাইগাররা। অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা ও কাটার মাস্টার মুস্তাফিজুর রহমানের বোলিং তোপে নয় উইকেটে ২৪৭ রানের সংগ্রহ পায় ক্যারিবীয়রা।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের ছুড়ে দেয়া ২৪৮ রানে টার্গেটে ব্যাট হাতে দায়িত্বশীল ইনিংস খেলেছেন বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা। মুশফিকুর রহিমের ৬৩, সৌম্য সরকারের ৫৪, মোহাম্মদ মিথুনের ৪৩ ও মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের অপরাজিত ৩০ রানে ১৬ বল বাকী রেখেই জয় তুলে নেয় টাইগাররা। সেই সাথে ফাইনালের টিকিটও কেটে ফেলে বাংলাদেশ। ৩ খেলা শেষে ১০ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের শীর্ষে বাংলাদেশ। চার খেলায় নয় পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের দ্বিতীয় স্থানে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। তিন খেলায় দুই পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের তলানিতে স্বাগতিক আয়ারল্যান্ড।

মাশরাফির দলের আগে ফাইনালের টিকিট কাটে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। তাই ১৭ মে টুর্নামেন্টের ফাইনালে খেলবে বাংলাদেশ ও ওয়েস্ট ইন্ডিজ। তার আগে লিগ পর্বের শেষ ম্যাচে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে জয় তুলে নেয়াই প্রধান লক্ষ্য টাইগারদের। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে দারুন জয়ে বোলারদের প্রশংসা করেছেন বাংলাদেশ অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা। তিনি বলেন, “আমরা সত্যিই ভালো বল করেছি। শুরুটা ভালো হয়নি, তবে পরবর্তীতে ব্রেক-থ্রু পেয়েছি। মাঝের ওভারগুলোতে ফিজ ভালো বল করেছে, সাকিব ও মিরাজও দারুণ করেছে। ফাইনালে যাওয়াটা আমাদের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ ছিল। এখন আমাদের দুটি ম্যাচ বাকি। আমরা নিজেদের সেরা পারফরমেন্সই করবো।”

ওয়েস্ট ইন্ডিজের কাছে ১৯৬ রানের বড় ব্যবধানে হেরে টুর্নামেন্ট শুরু করে আয়ারল্যান্ড। বাংলাদেশের বিপক্ষে ম্যাচটি বৃষ্টির কারণে পরিত্যক্ত হওয়ায় এক পয়েন্ট পায় আইরিশরা। ফিরতি পর্বে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে জয় তুলে নেয়ার দারুন এক সুযোগ পেয়েছিল স্বাগতিকরা। কিন্তু অভিজ্ঞতার কাছে হার মানে তারা। তাই ৩২৭ রান করেও পাঁচ উইকেটে ম্যাচ হারে আয়ারল্যান্ড। তাই আইরিশদের ফাইনালে খেলার পথ অনেক বেশি কঠিন হয়ে যায়। আর মঙ্গলবার বাংলাদেশ জিতে যাওয়ায় আয়ারল্যান্ডের ফাইনালে খেলার আশা একেবারেই শেষ হয়ে গেলো।

জুমবাংলানিউজ/এইচএম