অর্থনীতি-ব্যবসা জাতীয়

বাজেট ঘাটতি মেটাতে ব্যাংক থেকে ৪৭ হাজার কোটি টাকা নিতে চায় সরকার

বিজনেস ডেস্ক : প্রস্তাবিত ২০১৯-২০ অর্থবছরের বাজেটে ঘাটতি ধরা হয়েছে এক লাখ ৪৫ হাজার ৩৮০ কোটি টাকা। এই বিশাল ঘাটতি মেটাতে এবার ব্যাংক থেকে ৪৭ হাজার ৩৬৪ কোটি টাকা ঋণ নিতে চায় সরকার।

বৃহস্পতিবার (১৩ জুন) জাতীয় সংসদে নতুন অর্থবছরের জন্য বাজেট পেশ করার সময় এ তথ্য জানানো হয়।

প্রস্তাবিত বাজেটে রাজস্ব আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে তিন লাখ ৭৭ হাজার ৮১০ কোটি টাকা এবং ব্যয় ধরা হয়েছে তিন লাখ ১০ হাজার ২৬২ কোটি টাকা। আয়-ব্যয়ের বিশাল পার্থক্যের কারণে এবার বাজেট ঘাটতিও অন্য যেকোনও সময়ের চেয়ে বেশি। ২০১৯-২০ অর্থবছরে অনুদান ছাড়া বাজেট ঘাটতি দাঁড়াতে পারে এক লাখ ৪৫ হাজার ৩৮০ কোটি টাকা। এই ঘাটতি মেটাতে বিদেশ থেকে ঋণ নেয়ার পরিকল্পনা করা হয়েছে ৬৩ হাজার ৮৪৮ কোটি টাকার। আর ব্যাংক থেকে সরকার ৪৭ হাজার ৩৬৪ কোটি টাকা ঋণ নিতে চায়।

জাতীয় সঞ্চয়পত্র থেকে নেয়ার লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ২৭ হাজার কোটি টাকা। অর্থনীতিবিদরা বলছেন, সরকার অভ্যন্তরীণ ব্যাংক খাত থেকে ঋণ না নিয়ে কম সুদে বৈদেশিক ঋণ সুবিধা গ্রহণ করতে পারতো। তাতে উন্নয়ন খাতে বরাদ্দ বেশি রাখা সম্ভব হতো।

তারা বলছেন, সরকার যদি ব্যাংক থেকে সরকার ৪৭ হাজার কোটি টাকা ঋণ নেয় তাহলে বেসরকারি খাত চাহিদা অনুযায়ী ঋণ পাবে না।

সরকার ব্যাংক ব্যবস্থা থেকে বিল ও বন্ডের মাধ্যমে ঋণ নেয়। ৯১ দিন, ১৮২ দিন ও ৩৬৪ দিন মেয়াদি বিলের মাধ্যমে ঋণ নেয়, যা স্বল্পমেয়াদি ঋণ হিসেবে বিবেচিত। এ ক্ষেত্রে বর্তমানে সুদ হার রয়েছে সাড়ে ৪ থেকে ৫ শতাংশের মতো। আর বন্ডের মাধ্যমে সরকার ২ বছর, ৫ বছর, ১০ বছর, ১৫ বছর ও ২০ বছর মেয়াদি ঋণ নেয়।

জুমবাংলানিউজ/পিএম