আন্তর্জাতিক

হিংস্র জানোয়ারের মুখ থেকে শিশুকে উদ্ধার করে আনলেন বাবা

১৪ মাস বয়সী ঘমুন্ত শিশুকে টেনে নিয়ে যাচ্ছিল বিশালদেহী বন্য কুকুর। ভাগ্যগুণে তা চোখে পড়ে যায় শিশুটির বাবার। বেশ কিছুক্ষণ ওই কুকুরের সঙ্গে যুদ্ধ করে রক্ষা করেন নিজের সন্তানকে।

কুকুরের এ হামলা ঘটনায় শিশুটির মাথা ও গলায় আঘাত লেগেছে। তাকে কুইন্সল্যান্ড শিশু হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। আজ শুক্রবার ঘটনাটি ঘটেছে অস্ট্রেলিয়ার অবকাশকালীন দ্বীপ ফ্রাজারে। খবর সিএনএনের।

গণমাধ্যমকে শিশুটির বাবা জানান, গাড়িতে ঘুমিয়ে ছিলাম আমরা। এ সময় আমার সন্তানের কান্নার আওয়াজ শুনে তাকিয়ে দেখি ডিঙ্গোটি (বন্য কুকুর) তাকে মুখে করে নিয়ে পালাচ্ছে। ডিঙ্গোকে বাঁধা দিলে সে হিংস্র হয়ে উঠে। এরপর ডিঙ্গোর সঙ্গে লড়াই করে ওকে ছিনিয়ে আনি। এতে আমি ও আমার সন্তান আহত হয়েছি।

অস্ট্রেলিয়ার ফ্রাজার দ্বীপে এর আগেও ডিঙ্গোর হামলা শিকার হয়েছেন পর্যটকরা। তৃতীয়বারের মতো ঘটল শিশুর ওপর ডিঙ্গোর হামলার এমন ঘটনা। ফ্রাজার দ্বীপে ডিঙ্গোদের সংরক্ষিত করে রাখা হয়।

রয়টার্স জানিয়েছে, পর্যটকদের কাছে ডিঙ্গো খুব আকর্ষণীয়। তবে এরা প্রায়ই হামলা চালায়। ১৯৮০ সালে আজারিয়া চেম্বারলেন নামের এক শিশু তাঁবু থেকে নিখোঁজ হলে কাঠগড়ায় দাঁড়াতে হয় নিখোঁজ শিশুর মাকে। তাকে তিন বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়। পরে জানা যায় ডিঙ্গো শিশুটিকে নিয়ে মেরে ফেলেছিল। এ ঘটনা নিয়ে একটি সিনেমা তৈরি হয়েছে।

কুইন্সল্যান্ড ডিপার্টমেন্ট অব এনভায়রনমেন্ট অ্যান্ড সায়েন্স বলছে, প্রায় ২০০ ডিঙ্গোর বসবাস ফ্রাজার দ্বীপে। প্রায়ই ডিঙ্গোরা মানুষের ওপর হামলা চালায় বলে সতর্কবার্তাও দেয়া হয়েছে তাদের ওয়েবসাইটে।

জুমবাংলানিউজ/ জিএলজি