অপরাধ/দুর্নীতি

স্বামীকে আটকে রেখে নববধূকে ধর্ষণ করলেন ছাত্রলীগ নেতা

চাঁদার টাকা না পেয়ে স্বামীকে আটকে রেখে এক নববধূকে ধর্ষণ করার অভিযোগ উঠেছে বরিশালের বানারীপাড়া উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি সুমন মোল্লার বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় আজ রোববার বিকালে নববধূ বাদী হয়ে সুমন মোল্লা ও ধর্ষণে সহায়তা করার দায়ে তার ৪/৫ জন সহযোগীকে আসামি করে থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

বানারীপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সাজ্জাদ হোসেন বলেন, চট্টগ্রামে অটোরিকশা চালাতে গিয়ে পরিচয় হয় সেলিম মিয়ার সাথে নির্যাতিত ওই নববধূর। আট থেকে নয় মাস আগে দু’জন বিয়ে করে। সম্প্রতি সেলিম তারা স্ত্রীকে নিয়ে নানা বাড়ি উপজেলার সলিয়াবাকপুর ইউনিয়নের বেতাল গ্রামে বেড়াতে যায়। ওই সময় উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি সুমন মোল্লা দলবল নিয়ে সেলিমের কাছে চাঁদা দাবি করে। গতকাল শনিবার সন্ধ্যায় সেলিম তার স্ত্রীকে নিয়ে ঘুরতে বের হলে ছাত্রলীগ সভাপতি সুমন মোল্লা ও তার সহযোগীরা দু’জনকে ধরে নিয়ে একটি বাড়িতে আটকে রেখে নববধূকে ধর্ষণ করেন। সালিয়াবাকপুর ইউপি চেয়ারম্যান বিষয়টি পুলিশকে জানালে পুলিশ গিয়ে আজ রোববার বেলা ১১টার সময় তাদের উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। ওসি আরও জানান, এ ঘটনায় ধর্ষিতা অভিযুক্ত সুমন মোল্লা ও তার সহযোগী রিপন মোল্লার নাম উল্লেখ করে তার আরও ৪/৫ সহযোগীর বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করেছেন। ধর্ষিতাকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওসিসিতে পাঠানো হবে। অভিযুক্ত সুমন মোল্লা তার ব্যবহৃত মোবাইল ফোন বন্ধ রাখায় তার বক্তব্য নেয়া যায়নি।