অন্যরকম খবর

স্ত্রীর পাঠানো মেসেজে সাড়া না দেওয়া স্বামীকে ডিভোর্স!

আপনি কি কখনও আপনার স্বামী বা স্ত্রীর পাঠানো মেসেজ (এসএমএস) উপেক্ষা করেছেন? তাহলে এখনই সাবধান হোন, এটা কিন্তু আপনার বিরুদ্ধে কোর্টে ব্যবহার করা হতে পারে। সম্প্রতি শুধুমাত্র এই কারণে এক নারীকে বিবাহ বিচ্ছেদের অনুমতি দিয়েছেন আদালত। এ মাসের শুরুর দিকে তাইওয়ানে এ ঘটনাটি ঘটে।

কারণ মেসেজ পড়া হয়েছে কি না, সেই ইন্ডিকেটর ব্যবহার করে তিনি প্রমাণ করতে পেরেছেন তার স্বামী তাকে উপেক্ষা করছিলেন। ওই বিশেষ ধরনের অ্যাপটির সাহায্যে দেখা গেছে, তার স্বামী মেসেজগুলো খুলেছিলেন, কিন্তু কোনওটারই উত্তর দেওয়ার প্রয়োজন বোধ করেননি। এই পদ্ধতিকে বলা হয় ব্লু-টিকিং, যা থেকে বোঝা যায় স্মার্টফোনে পাঠানো কোনও বার্তা পড়া হয়েছে কি না।

এ ব্যাপারে তাইওয়ানের শিনচু ডিস্ট্রিক্টের পারিবারিক আদালতের বিচারক বলেছেন, টেক্সট মেসেজগুলো যেভাবে উপেক্ষিত হয়েছে তাতে স্পষ্ট এই বিয়ে আর মেরামত করার জায়গায় নেই।

জানা গেছে, লিন পদবীধারী স্ত্রী ছয় মাস ধরে তার স্বামীকে বহু মেসেজ পাঠিয়েছিলেন। একবার গাড়ি দুর্ঘটনায় জখম হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার পরও মেসেজ পাঠিয়েছিলেন। একটা মেসেজে তিনি এ কথাও লেখেন তাকে ইমার্জেন্সিতে ভর্তি করা হয়েছে এবং কেন তার স্বামী কোনও মেসেজের জবাব দিচ্ছেন না? তার স্বামী অবশ্য একবার তাকে হাসপাতালে দেখতে গিয়েছিলেন। তবে তারপর তিনি আবার স্ত্রীর পাঠানো মেসেজগুলো উপেক্ষা করতে শুরু করেন।

উল্লেখ্য, ওই দম্পতি ২০১২ সাল থেকে বিবাহিত ছিলেন। স্বামী অবশ্য বিবাহ বিচ্ছেদের এই রায়ের বিরুদ্ধে আদালতে আপিল করার সুযোগ পাবেন।