খেলা-ধুলা

সৌম্যর ‘হিট’ দেখে খুশি হয়ে যা বললেন ব্যাটিং কোচে সামারাবিরা

হ্যাগলি ওভালের নেটে চলছিল বাংলাদেশের অনুশীলন। হঠাৎই একটু শোরগোল। ড্রেসিং রুমের এ পাশ থেকে ছুটে গেলেন ফিজিও ডিন কনওয়ে। শোনা গেল, সৌম্য সরকারের মাথায় লেগেছে বল! খানিক পরই অবশ্য জানা গেল, তেমন কিছু নয়, স্রেফ পায়ে একটু লেগেছিল।

মাথায় লাগার খবরটি গুজব হওয়াটা স্বস্তির। তবে তার চেয়েও একটু বেশি স্বস্তি অবশ্য এখন সৌম্যর ব্যাটিং; অন্তত টিম ম্যানেজমেন্টের কাছে!

না, খুব বড় কিছু করেননি সৌম্য। তবু প্রস্তুতি ম্যাচগুলোতে যে ভাবে ব্যাট করেছেন, সেটিই আশা দেখাচ্ছে দলকে। অবশেষে হয়ত ফিরে পাওয়া যাবে গত বছর পাকিস্তান, দক্ষিণ আফ্রিকার বোলিং আক্রমণ তুলোধুনো করা সেই সৌম্যকে!

গত বছরের প্রথম ভাগটা সৌম্যের যেমন কেটেছে স্বপ্নের মত, চোট কাটিয়ে ফেরার পরের সময়টা কেটেছে দুঃস্বপ্নের মত। সেটা দীর্ঘায়িত হয়েছে ম্যাচ থেকে ম্যাচে। তার ম্যাচ জেতানোর ক্ষমতার কারণে তবু আস্থা রেখেছে দল, কিন্তু প্রতিদান দিতে পারেননি তিনি। এরপরও তাকে রাখা হয়েছে এই সফরে, যেটিকে মনে করা হচ্ছিলো, এই দফায় তার শেষ সুযোগ।

সেই সুযোগ কাজে লাগানোর ইঙ্গিত সৌম্যর ব্যাটে। সিডনিতে প্রথম প্রস্তুতি ম্যাচ ও ফাঙ্গারেইতে নিউ জিল্যান্ড একাদশের বিপক্ষে প্রস্তুতি ম্যাচে যেভাবে ব্যাট করেছেন, ব্যাটিংয়ের সেই ধরনটাই দলের অনেককে আশাবাদী করে তুলছে সৌম্যকে নিয়ে।

এই আশাবাদীদের দলে আছেন থিলান সামারাবিরা। বাংলাদেশের ব্যাটিং কোচের বিশ্বাস, এই সফরেই নিজেকে ফিরে পাবেন সৌম্য।

“হ্যাঁ, ব্যাড প্যাচ এসেছে। তার পরও তো ওর গড় ৪৭ (আসলে ৪২.৫২)! খারাপ সময় সব ব্যাটসম্যানেরই আসে। শচিন টেন্ডুলকার, কুমার সাঙ্গাকারাদেরও এসেছে। সবাইকেই এই সময়ের ভেতর দিয়ে যেতে হয়। কোচিং স্টাফদের সমর্থন এই সময়ে খুব জরুরি।”

“দারুণ ব্যাপার হলো, সে খুব ভালো হিট করেছে। অস্ট্রেলিয়ায় প্রস্তুতি করেছে, এখানেও বেশ ভালো করছে। আশা করি, এই সফরেই সে ভালো করবে।”

সৌম্যকে নিয়মিতই সময় দিচ্ছেন ব্যাটিং কোচ। তবে ব্যাটিংয়ের টেকনিক্যাল দিক নিয়ে কাঁটাছেড়া যত হয়, তার চেয়ে বেশি হচ্ছে মনস্তাত্ত্বিক দিক নিয়েই।

“টেকনিক্যাল ব্যাপার নিয়ে সামান্য আলোচনা হয়েছে। মানসিক ব্যাপারগুলো নিয়েই বেশি কথা হয়েছে। মাথা আরও পরিষ্কার রাখা। ও সহজাত স্ট্রোক প্লেয়ার, ওদের মত ক্রিকেটারদের জন্য চিন্তা-ভাবনা পরিষ্কার হওয়া জরুরি।”

সৌম্য যেমন প্রস্তুতি ম্যাচে দারুণ শুরু করেও শেষ পর্যন্ত বড় কিছু করতে পারেননি, তেমনি ভালো শুরু পেলেও বড় ইনিংস আসেনি দলের কারও ব্যাট থেকেই। ব্যাটিং কোচ অবশ্য এটা নিয়ে ভাবছেন না খুব একটা।

“প্রস্তুতি ভালো হয়েছে। সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হলো উদ্দেশ্যপূর্ণ প্রস্তুতি নেওয়া। সিডনি ও এখানে ক্যাম্পে যতটুকু হয়েছে তাতে আমি খুশি।”

“বড় স্কোর না হওয়ায় খুব বেশি দুর্ভাবনা নেই। প্রস্তুতি ম্যাচই তো। এই অঞ্চলে এসে শুরুতে বড় রান করা কঠিন। মানিয়ে নেওয়ার ব্যাপার আছে। মূল সিরিজে সবাই ভালো করবে বলে আশাবাদী আমি।”

ব্যাটিং কোচের আশাটাই ব্যাটসম্যানদের সামনে চ্যালেঞ্জ। সাউদি-বোল্ট-হেনরিদের বিপক্ষে যদি ভালো করে ব্যাটসম্যানরা, তবেই গড়া হবে দলের জয়ের পথ।

আরও পড়ুনঃ রাস্তাতেই বসে মিডডে মিলের খাবার খেতে হচ্ছে এই শিক্ষার্থীদের!(ভিডিও)

Add Comment

Click here to post a comment