বিনোদন

সেলিনা হোসেনের গল্প অবলম্বনে ‘সখিনার চন্দ্রকথা’

বিজয় দিবস উপলক্ষে বিটিভিতে চলছে মাসব্যাপী অনুষ্ঠানমালা। সেই অনুষ্ঠানমালার বিশেষ আকর্ষণ হিসেবে রয়েছে কথা সাহিত্যিক সেলিনা হোসেনের গল্প অবলম্বনে নির্মিত বিজয় দিবসের বিশেষ নাটক ‘সখিনার চন্দ্রকথা’। মাহফুজা আক্তারের নির্দেশনায় এর নাট্যরূপ দিয়েছেন সাঈদ সুমন।

 

নাটকের গল্প সাখিনা নামের মধ্যবয়স্ক এক ধাত্রীকে ঘিরে। ৯ মাসের এই যুদ্ধের মাঝে নিজের যুদ্ধটাকে আলাদা করে চিনতে পারেন তিনি। মধ্যবয়স্ক এই নারী চোখের সামনে নিজের স্বামীরকে বুলেটে ঝাঁঝরা হতে দেখেন। সেদিনই স্থির করেন নিজের যুদ্ধে তার কি করণীয়।

 

সখিনার আবেগ অনুভূতিতে জীবন যুদ্ধ মিলেমিশে একাকার হয়ে যায়। সে বুঝতে পারে সময়টাকে অতিক্রম করতে হবে এবং এই সময়ে সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে না পারলে এক জীবনের আক্ষেপ কোনোদিন শেষ হবে না। যুদ্ধে নামে সখিনা। নিজের অর্জিত ধাত্রীবিদ্যাকে যেমন কাজে লাগায়, তেমনি সম্মুখ সমরেও পিছপা হয় না।

 

সখিনার হাত ধরে ভূমিষ্ঠ কন্যার মুখ দেখে যুদ্ধে যায় মুক্তিযোদ্ধা। সখিনার মধ্যবয়স্ক শরীরটাও হায়েনাদের রোষানল থেকে বাদ পড়ে না। তখন সে ভেবে নেয় এটিও তার যুদ্ধ, যে সমরে অস্ত্র তার শরীর। রাজাকারের বুটের লাথিতেও যেন কিছুই যায় আসে না সখিনার। সখিনা হয়ে ওঠে মুক্তিযোদ্ধাদের পথ প্রদর্শক। আপন অস্তিত্ব হয়ে ওঠে সখিনার যুদ্ধাস্ত্র।

 

যুদ্ধ শেষ হয় দেশের মাটিতে। সখিনারও সমর যুদ্ধ শেষ হয়, দায়িত্ব আসে কোনো এক নারীর সন্তান ভূমিষ্ট করানোর। কিন্তু যুদ্ধশিশু বলে সেই শিশুর দায়িত্ব নিতে চায় না সমাজ। সখিনা বোঝে এটিও এক ধরনের যুদ্ধ। শেষে নিজের যুদ্ধের পুরস্কারস্বরূপ সেই যুদ্ধশিশু কন্যাটিকে বুকে টেনে নেয় সখিনা। নিজেকে সে বিজয়ী ঘোষণা করে।

 

নাটকটিতে সখিনা চরিত্রে অভিনয় করেছেন তানভীন সুইটি। অন্যান্য চরিত্রে অভিনয় করেছেন মামুনুর রশীদ, আজিজুল হাকিম, সাঈদ বাবু প্রমুখ। নাটকটি প্রচারিত হবে ১৭ ডিসেম্বর বিটিভিতে রাত ৮টার বাংলা সংবাদের পর।

ভিডিওঃ ইরানী এই মেয়ের অবাক করা কান্ড দেখুন, আপনার ভাল লাগবেই

Add Comment

Click here to post a comment

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.