বিনোদন

সিনেমা চুক্তির সময় হাজারো বায়না ধরেন বলিউডের এই তারকারা

যে কোনো সিনেমা হিট বা ফ্লপ হওয়ার ক্ষেত্রে তারকাদের প্রচুর অবদান থাকে। আর নিজের সমস্ত প্রয়াস দিয়ে যারা সিনেমা হিট করছেন তাদের কিছু শর্ত থাকা তো খুবই স্বাভাবিক প্রক্রিয়া। বলিউড তারকাদের বেলায় এ শর্তগুলো যেন একটু বেশিই কাজ করে; ফলে সিনেমা চুক্তির সময় একেকজন তারকার শর্ত থাকে একেক রকম। চলুন দেখে নেওয়া যাক, খ্যাতিমান তারকাদের কিছু ছবি চুক্তির সময়ের কিছু বায়না।

শুধু জনপ্রিয়তার ক্ষেত্রেই নয়, বলিউডের প্রথম সারির তারকা অভিনেতা সালমান খান। ব্যক্তিগত জীবনে তার যতই নারী আসুক আর যাক না কেন, রুপালি পর্দায় নায়িকাদের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ দৃশ্যে ঘোর আপত্তি ভাইজানের। সিনেমা চুক্তির আগে তাই প্রতিটি নির্মাতাকে নিজের এই আপত্তি স্পষ্টই জানিয়ে দেন সালমান।

সিনেমার শুটিং এ খিলাড়ি অক্ষয় কুমারের খুঁতখুঁতে স্বভাবের কথা বলিউডে অজানা নয়, তবে তার ভক্ত-অনুসারীরা বোধহয় অক্ষয় কুমারের আরেকটি বিষয় সম্পর্কে অবগত নন। যত যাই হোক না কেন, রবিবার এ তারকা কোনো শুটিং রাখেন না। ছবি সাইনের সময়ই এ বিষয়টি তিনি প্রযোজক ও পরিচালককে সাফ জানিয়ে দেন। যদিও কয়েকটি সিনেমায় এ শর্ত ভাঙতে হয়েছে তাকে।  

নিজের ফিগার নিয়ে সব সময় সচেতন থাকেন রাকেশ রোশানের তারকা পুত্র। ইনডোর হোক কিংবা আউটডোর, দেশ হোক অথবা বিদেশ, নিজের একজন ব্যক্তিগত রাঁধুনি তিনি সব সময় শুটিং স্পটে মজুদ রাখেন। এ তো গেল শুধু রাঁধুনির বিষয়, দেশের বাইরে কিংবা দেশের ভেতরেই দূরে কোথাও শুটিং এ গেলে সবচেয়ে সেরা শরীরচর্চা কেন্দ্রটি খুঁজে নেন। আর এ সমস্ত কিছুর ব্যয়ই বইতে হয় সিনেমার প্রযোজককে।

নিজের অভিনয়কে সব সময় নিখুঁত দেখতে ভালোবাসেন বলিউড ডিভা রেখা। সে জন্য আপোষ করেন না কোনো কিছুর সঙ্গেই। তার সম্পর্কে এমনও শোনা যায়, শেষ মুহূর্তে এডিটিং প্যানেলে ছবি পছন্দ না হওয়ায় সে সিনেমা থেকে সরে এসেছেন তিনি।

প্রথম সারির অভিনেত্রীদের মধ্যে কারিনা কাপুরের কদর অন্য রকম। কিন্তু নতুন মুখদের সঙ্গে কাজ করতে ভীষণ আপত্তি তার। সিনেমার গল্প কিংবা পারিশ্রমিক পছন্দ হলেও, তার বিপরীতে নতুন কেউ কাজ করবেন শুনলেই বেঁকে বসেন তিনি। শুধুমাত্র প্রথম সারির নায়কদের সঙ্গে কাজ করতেই তিনি স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করেন বলে জানান তার প্রযোকজ ও পরিচালকরা।

ভিলেন চরিত্রে দুর্দান্ত অভিনয় করেন বিনোদ খান্নার বড় পুত্র অক্ষয় খান্না। এ চরিত্রে অভিনয় করতে আপত্তিও নেই তার, কিন্তু নায়কের হাতে মার খেতে তার বেজায় আপত্তি। তাই অনেক সিনেমায় তাকে খল চরিত্রে দেখা গেলেও, নায়কের হাতে মার খেতে দেখা যায়নি কখনো।

অনস্ক্রিনে চুমু খাওয়ায় আপত্তি সোনাক্ষি সিনহার। আর এ কারণেই অনস্ক্রিনে কখনো ঘনিষ্ঠ দৃশ্যে অভিনয় করতে দেখা যায় না এ অভিনেত্রীকে।

নানা কারণে আলোচনায় থাকা অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাউত। তবে জানেন কী সিনেমার স্ক্রিপ্ট থেকে ছোট-খাটো বিষয় শোনার জন্য অন্যান্য তারকারা যখন অধিক মনোযোগী, কঙ্গনা তখন এসব বিষয়কে পাত্তাই দেন না। তার পার্সোনাল ম্যানেজারই গল্প সম্পর্কে জানার পরে স্ক্রিপ্ট পড়েন, কঙ্গনা শুধু সিনেমাটি করবেন কি করবেন না, সেই অনুমতি প্রদান করেন।

সূত্র: আনন্দবাজার