খেলা-ধুলা

সিকান্দার রাজার ব্যাটিংয়ে কোণঠাসা শ্রীলঙ্কা

সিকান্দার রাজার ব্যাটিং দৃঢ়তায় তৃতীয় দিন শেষে কলম্বো টেস্টে শক্ত অবস্থানে সফরকারী জিম্বাবুয়ে। রাজার অপরাজিত ৯৭ রানে দ্বিতীয় ইনিংসে দিন শেষে ৬ উইকেটে ২৫২ রান করেছে জিম্বাবুয়ে। ফলে ৪ উইকেট হাতে নিয়ে ২৬২ রানে এগিয়ে রয়েছে জিম্বাবুয়ে। এর আগে নিজেদের প্রথম ইনিংসে ৩৪৬ রানে অলআউট হয় স্বাগতিক শ্রীলঙ্কা। প্রথম ইনিংসে জিম্বাবুয়ের সংগ্রহ ছিল ৩৫৬ রান।
৭ উইকেটে ২৯৩ রান নিয়ে দ্বিতীয় দিন শেষ করেছিলো শ্রীলংকা। বাকী ৩ উইকেট থেকে ৫৩ রান যোগ করতে সমর্থ হয় স্বাগতিকরা। আসলে গুনারত্নে ২৪ রান নিয়ে শুরু করে ৪৫ ও রঙ্গনা হেরাথ ৫ রান নিয়ে খেলতে নেমে ২২ রানে আউট হন। দশ নম্বরে নামা সুরাঙ্গা লাকমল ১৪ রানে ফিরলেও, শেষ ব্যাটসম্যান লাহিরু কুমারা ১ রানে অপরাজিত থাকেন। ১২৫ রানে ৫ উইকেট নিয়ে জিম্বাবুয়ের সফল বোলার অধিনায়ক গ্রায়েম ক্রেমার। টেস্ট ক্যারিয়ারে প্রথমবারের মত ৫ উইকেট নিলেন ক্রেমার।


প্রথম ইনিংস থেকে ১০ রানের লিড নিয়ে দ্বিতীয় ইনিংসে খেলতে নেমে মহাবিপদেই পড়ে জিম্বাবুয়ে। ২৩ রানে চতুর্থ ও ৫৯ রানে পঞ্চম উইকেট হারায় তারা। উপরের সারির চার ব্যাটসম্যানের কেউই দু’অংকে পা রাখতে পারেননি।
হ্যামিল্টন মাসাকাদজা ৭, উইকেটরক্ষক রেগিস চাকাভা ৬, তারিসাই মুসাকান্দা ০ ও প্রথম ইনিংসের সেঞ্চুরিয়ান ক্রেইগ আরভিন ৫ রান করে বিদায় নেন। এরমধ্যে ৩ উইকেটই শিকার করেছেন দ্বিতীয় বোলার হিসেবে আক্রমনে আসা বাঁ-হাতি স্পিনার হেরাথ। অন্যটি নিয়েছেন দিলরুয়ান পেরেরা।
চাপে থাকা জিম্বাবুয়েকে চাপমুক্ত করতে চেষ্টা করেছিলেন সিন উইলিয়ামস। কিন্তু তাকে ২২ রানের বেশি করতে দেননি হেরাথ। ফলে দলীয় ৫৯ রানে পঞ্চম উইকেট হারায় জিম্বাবুয়ে।
এমন অবস্থায় শক্ত হাতে দলের হাল ধরেন রাজা ও পিটার মুর। শ্রীলংকা বোলারদের বিপক্ষে রুখে দাঁড়ান তারা। তাই উইকেটে সেট হয়ে স্কোর বোর্ডে রান জড়ো করতে থাকেন রাজা ও মুর। এতে দেড়শ’র কাছাকাছি পৌঁছে যায় জিম্বাবুয়ে। এমন সময় রাজা-মুরের জুটিতে ভাঙ্গন ধরান কুমারা। ৪০ রানে থাকা মুরকে তুলে নেন তিনি। রাজার সাথে ষষ্ঠ উইকেটে ৮৬ রান যোগ করেছিলেন মুর।
মুর ফিরে যাবার পর ম্যালকম ওয়ালারকে নিয়ে আবারো বড় জুটি গড়েন রাজা। সপ্তম উইকেটে ১০৭ রানের জুটি গড়ে দিন শেষে অবিচ্ছিন্ন থাকেন রাজা ও ওয়ালার। টেস্ট ক্যারিয়ারের প্রথম হাফ-সেঞ্চুরি তুলে ৭টি চার ও ১টি ছক্কায় ১৫৮ বলে ৯৭ রানে অপরাজিত আছেন রাজা। টেস্ট ফরম্যাটে প্রথম সেঞ্চুরির জন্য তার আরও লাগবে মাত্র ৩ রান।
আর টেস্ট ক্যারিয়ারের চতুর্থ হাফ-সেঞ্চুরি তুলে ৮টি চারে ৭৬ বল মোকাবেলা করে ৫৭ রানে অপরাজিত ওয়ালার। শ্রীলঙ্কার হেরাথ ৮৫ রানে ৪ উইকেট শিকার করেছেন।
সংক্ষিপ্ত স্কোর (তৃতীয় দিন শেষে) :
জিম্বাবুয়ে : ৩৫৬ ও ২৫২/৬, ৬৮ ওভার (রাজা ৯৭*, ওয়ালার ৫৭*, হেরাথ ৪/৮৫)।
শ্রীলঙ্কা : ৩৪৬/১০, ১০২.৩ ওভার (থারাঙ্গা ৭১, চান্ডিমাল ৫৫, ক্রেমার ৫/১২৫)।