খেলা-ধুলা

শ্রীলঙ্কা-জিম্বাবুয়ে সমানে সমান

সিকান্দার রাজার প্রথম শতকে সিরিজের একমাত্র টেস্টে শ্রীলঙ্কাকে বড় লক্ষ্য দিয়েছে জিম্বাবুয়ে।

জিততে হলে রেকর্ড গড়তে হবে দিনেশ চান্দিমালের দলকে। কুসল মেন্ডিসের অপরাজিত অর্ধশতকে সেই আশা বাঁচিয়ে রেখেছে স্বাগতিকরা।

৩৮৮ রানের লক্ষ্য তাড়ায় চতুর্থ দিনের খেলা শেষে শ্রীলঙ্কার সংগ্রহ ৩ উইকেটে ১৭০ রান। মেন্ডিস ৬০ ও অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউস ১৭ রানে অপরাজিত আছেন।

শ্রীলঙ্কার মাটিতে চতুর্থ ইনিংসে সর্বোচ্চ ৩৭৭ রানের লক্ষ্য তাড়ার রেকর্ড পাকিস্তানের। ২০১৫ সালে পালেকেল্লের সেই টেস্ট ৭ উইকেটে জিতেছিল অতিথিরা।

দেশের মাটিতে লঙ্কানরা সর্বোচ্চ ৩৫২ রানের লক্ষ্য তাড়া করে জিতেছে, ২০০৬ সালে পি সারা ওভালে।

চা-বিরতির আগে খেলা ১৮ ওভার নিরাপদে কাটিয়ে দেন দুই উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান। দিমুথ করুনারত্নে, উপুল থারাঙ্গা অর্ধশত রানের জুটিতে দলকে এনে দেন ভালো সূচনা। তৃতীয় সেশনের শুরুতেই থারাঙ্গাকে ফিরিয়ে প্রথম আঘাত হানেন গ্রায়েম ক্রিমার।
করুনারত্নেকে ফিরিয়ে মেন্ডিসের সঙ্গে তার অর্ধশত রানের জুটি ভাঙেন শন উইলিয়ামস। একটি চারে ৪৯ রান করা করুনারত্নে থামেন বোল্ড হয়ে। নতুন অধিনায়ক দিনেশ চান্দিমাল দলের ওপর চাপ বাড়িয়ে ফিরেন দ্রুত। লেগ স্পিনার ক্রিমারের বলে ধরা পড়েন হ্যামল্টিন মাসাকাদজার হাতে।

দিনের বাকি সময়ে আর কোনো ক্ষতি হতে দেননি মেন্ডিস-ম্যাথিউস। পঞ্চম দিন তাদের সামনে অপেক্ষা করছে কঠিন পরীক্ষা। চতুর্থ দিন ৪৮ ওভারই স্পিনার দিয়ে করান ক্রিমার। শেষ দিনেও স্পিনারদের ওপরই বেশি নির্ভর করবেন তিনি। ৬৭ রানে ২ উইকেট নেন ক্রিমার। উইলিয়ামস ১ উইকেট নেন ৬২ রানে।

এর আগে আর প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামে ৬ উইকেটে ২৫২ রান নিয়ে খেলা শুরু করে সোমবার আরও ৩৯.১ ওভার ব্যাট করে ১২৫ রান যোগ করে জিম্বাবুয়ে। আগের দিন অর্ধশতক পাওয়া ম্যালকম ওয়ালার এদিন নিজের ইনিংস খুব একটা বড় করতে পারেননি। ৬৮ রান করা মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যানকে আউট করে ১৪৪ রানের জুটি ভাঙেন দিলরুয়ান পেরেরা।

দলের সংগ্রহ তিনশ পার হতেই ফিরেন রাজা। ৯৭ রান নিয়ে দিন শুরু করা ডানহাতি ব্যাটসম্যান এদিন যোগ করেন আরও ৩০ রান। ২০৫ বলে খেলা তার ১২৭ রানের ইনিংসটি গড়া ৯টি চার ও একটি ছক্কায়। রাজাকে বিদায় করে দ্বিতীয় ইনিংসেও পাঁচ ও ম্যাচে ১০ উইকেট নেন রঙ্গনা হেরাথ।

প্রথম ইনিংসের মতো এবারও নবম উইকেটে অর্ধশত রানের জুটি উপহার দেন ডোনাল্ড টিরিপানো। সেবার সঙ্গী ছিলেন ক্রেইগ আরভিন। এবার পাশে ছিলেন অধিনায়ক ক্রিমার। দুই জনের ৫৬ রানের জুটিতে সাড়ে তিনশ পার হয় জিম্বাবুয়ের সংগ্রহ।৩১তম বার ইনিংসে পাঁচ ও অষ্টমবার ম্যাচে ১০ উইকেট পাওয়া হেরাথ ক্রিমারকে ফিরিয়ে ৩৭৭ রানে গুটিয়ে দেন জিম্বাবুয়েকে। প্রথম ইনিংসে ১১৬ রানে পাঁচ উইকেট নেওয়া অভিজ্ঞ বাঁহাতি স্পিনার এবার ৬ উইকেট নেন ১৩৩ রানে। আরেক স্পিনার পেরেরা ৩ উইকেট নেন ৯৫ রানে।

হেরাথের চমৎকার বোলিংয়ের পরও কলম্বো টেস্টে চাপে শ্রীলঙ্কা। ৭ উইকেট হাতে শেষ দিনের উইকেটে ২১৮ রানের সমীকরণ মেলানো খুব চ্যালেঞ্জিং হতে পারে তাদের জন্য।