বিনোদন

শোওয়ার ঘরে এসব কী করেন শ্রদ্ধা-আদিত্য, ফাঁস হল ভিডিও

নতুন প্রজন্মকে অনেকেই বলে থাকেন লাগামছাড়া! তা-ই যদি হয়, তবে তাদের প্রেম আর শরীর খেলাও লাগামছাড়াই হওয়া স্বাভাবিক তো?

২০১৬ সাল শেষ হওয়ার মুখে এসে সেই কথাই বলছে! বলছে ১৯৯৫-এর প্রজন্ম এবং ২০১৬-র প্রজন্ম- আকাশ-পাতাল তফাত! ৯০-এর দশকে সেই সময় বলিউড সবাইকে চমকে দিয়েছিল এক শোওয়ার ঘরের গান দেখিয়ে। সেই গানে ধরা দিয়েছিল বাড়ি থেকে পালিয়ে আসা এক হিন্দু যুবক আর এক হিন্দু যুবতীর উদ্দাম শরীরী প্রেম। এ আর রহমানের সুরে ‘হাম্মা হাম্মা’ গানে সেই সময় রুপোলি পর্দায় প্রায় কামনার আগুন লাগিয়ে দিয়েছিলেন মণীষা কৈরালা আর অরবিন্দ স্বামী।

আর এই ২০১৬-য় এসে সেই একই গানে ঝড় তুললেন শ্রদ্ধা কাপুর আর আদিত্য রয় কাপুর। ‘ওকে জানু’ ছবির গানে দেখা গেল তাঁদের সেই তুখোড় বেডরুম লাভ। খুব অন্যরকম এক শোওয়ার ঘরের সেটে কখনও পরস্পরের খুব কাছে চলে এলেন তাঁরা, একের ওষ্ঠে মিশে গেল অন্যের অধর। কখনও আবার অন্যের শরীর থেকে নিজেকে বেশ কষ্ট করেই ছাড়িয়ে নিয়ে লাস্যে-হাস্যে নিশিযাপনে মাতলেন তাঁরা। সেই সঙ্গে দেখা দিল প্রশ্ন- কোনও নতুন গান কি তৈরি করা যেত না এই ছবির জন্য? কেন পুরনো গানকেই নতুন ভাবে ব্যবহার করলেন সুরকার রহমান?

এ আসলে হিসেব মেলানোর খেলা। বা, শ্রদ্ধাঞ্জলিও বলা যায়। আসলে শাদ আলির এই ছবি ‘ওকে জানু’ পরিচালক মণি রত্নমের ‘ওকে কানমানি’ ছবির বলিউড ভার্সন। তাই মণি রত্নমেরই ছবির হিন্দি ভার্সনে ফিরে এল একদা তাঁরই পরিচালিত ছবি ‘বম্বে’র গান। দুই ছবিরই সুরকার এ আর রহমান, অতএব কোথাও কোনও আইনি জটিলতাও নেই!

তা, কোন ‘হাম্মা হাম্মা’ শরীরী প্রেমের আগুনে বেশি মজাবে বলে মনে হয় দর্শককে? পুরনোটা তো দেখেছেনই! এবার নিচের ভিডিওয় ওকে জানুর ভার্সনটা দেখে নিজেই সিদ্ধান্ত নিন! এখানে ক্লিক করে ভিডিওটি দেখুন।

 

Add Comment

Click here to post a comment