জাতীয়

শক্তিশালী ইসি ও সার্চ কমিটি গঠনের ব্যাপারে বিএনপির প্রস্তাব সহায়ক হবে : রাষ্ট্রপতি

বঙ্গভবনে আলোচনা শেষে রাষ্ট্রপতির প্রেস সচিব জয়নাল আবেদীন সাংবাদিকদের জানান, রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ বলেছেন, গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় নির্বাচন খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আর নির্বাচন পরিচালনার জন্য নির্বাচন কমিশনের (ইসি) ভূমিকাই মুখ্য। একটি শক্তিশালী ইসি ও সার্চ কমিটি গঠনের ব্যাপারে বিএনপি যেসব প্রস্তাব পেশ করেছে সেগুলো সহায়ক হবে।

রবিবার বিকালে নতুন নির্বাচন কমিশন গঠন নিয়ে বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদের সঙ্গে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে প্রতিনিধি দল এক ঘন্টার সংলাপ করে।

আজ বঙ্গভবনে ইসি ও সার্চ কমিটি গঠন নিয়ে রাজনৈতিক দলের সঙ্গে ধারাবাহিক আলোচনার অংশ হিসেবে বিএনপির সঙ্গে আলোচনা হয়।

বিএনপিকে রাষ্ট্রপতি বলেন, আপনাদের মতামত পরবর্তী নির্বাচন কমিশন গঠনে ইতিবাচক অবদান রাখবে বলে আমি বিশ্বাস করি। যে কোন বিষয়ে আলোচনা ও মতবিনিময় সমাধানের বহুমুখী পথের সন্ধান দেয়। এ সময় রাষ্ট্রপতিকে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া নির্বাচন কমিশন গঠনে আলোচনার জন্য তার দলকে আমন্ত্রণ জানানোর জন্য ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান। বিএনপির পক্ষ থেকে দলটির চেয়ারপারসন নির্বাচন কমিশন ও সার্চ কমিটি গঠনের প্রক্রিয়া সম্পর্কে লিখিত প্রস্তাব তুলে ধরেন। গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশ ও নির্বাচন কমিশন শক্তিশালীকরণে তাদের প্রস্তাব তুলে ধরেন।

প্রেস সচিব বলেন, বিএনপি রাষ্ট্রপতির উদ্যোগের সফলতা কামনা করে ও তাদের সার্বিক সহযোগিতা থাকবে বলে জানান।

তবে মির্জা ফখরুল তার সংবাদ সম্মেলনে জানান, নির্বাচন কমিশন গঠন নিয়ে প্রস্তাব দেয়া রাষ্ট্রপতি খালেদা জিয়াকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন।

এদিকে প্রতিনিধিদলের সদস্য স্থায়ী কমিটির সদস্য লে, জেনারেল অব. মাহবুবুর রহমান জানান, দলের চেয়ারপার্সন দলের প্রস্তাবগুলো লিখিত আকারে পাঠ করেন এবং ব্যখ্যা বিশ্লেষণ দেন। তিনি সার্চ কমিটি এবং প্রধান নির্বাচন কমিশনার ও কমিশনারদের নামের তালিকা হস্তান্তর করেন রাষ্ট্রপতির কাছে।

নজরুল ইসলাম খান বলেন, রাষ্ট্রপতি আমাদের প্রতি খুবই আন্তরিকতা দেখিয়েছেন। আমরা খুশি হয়েছি। তিনি আমাদের প্রস্তাবনাগুলোকে প্রাধান্য দিয়ে ইসি করার ব্যাপারে ইতিবাচক মনোভাব ব্যক্ত করেছেন।

বেগম খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে বিএনপির প্রতিনিধি দলকে বঙ্গভবনে স্বাগত জানান রাষ্ট্রপতির কার্যালয়ের অতিরিক্ত সচিব ওয়াহিদুল ইসলাম খান।

উল্লেখ্য, নির্বাচন কমিশন পুনর্গঠনের ব্যাপারে রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে আলোচনা করবেন রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ। বিএনপির সঙ্গে আলোচনার মধ্য দিয়েই রবিবার থেকে এ সংলাপ শুরু হয়। ২০১২ সালে রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে আলোচনা করে ‘সার্চ কমিটির’ মাধ্যমে যেভাবে ইসি গঠন করা হয়েছিল, এবারো একই পদক্ষেপ নিয়েছেন রাষ্ট্রপতি।

Add Comment

Click here to post a comment