আন্তর্জাতিক

রোহিঙ্গা মুসলিমদের ওপর নির্যাতন ইস্যুতে মিয়ানমারের সঙ্গে সামরিক সম্পর্ক স্থগিত করছে ইইউ

মিয়ানমারে রোহিঙ্গা মুসলিমদের ওপর নির্যাতন ইস্যুতে সরব ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ)। এবার দেশটির ঊর্ধ্বতন সামরিক কর্মকর্তাদের সঙ্গে সম্পর্ক স্থগিত করতে যাচ্ছে ইইউ। সোমবার ব্রাসেলসে ইইউর পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হচ্ছে।

বার্তা সংস্থা এএফপি জানিয়েছে, তারা বৈঠকের প্রাক্কালে এ সংক্রান্ত একটি সমঝোতার কপি দেখেছে। সমঝোতাপত্রটি এরই মধ্যে ব্রাসেলসে ইইউর সদস্য দেশগুলোর রাষ্ট্রদূতরা অনুমোদন করেছেন। সোমবারের বৈঠকে পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের সই করার মধ্য দিয়ে ওই সমঝোতাটিই চূড়ান্ত হওয়ার কথা রয়েছে।

এএফপি জানায়, ইউরোপীয় ২৮টি দেশের জোট ইইউ ওই সমঝোতায় মিয়ানমারকে সতর্ক করে বলেছে, পরিস্থিতির উন্নতি না হলে তারা ওই দেশটির ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপের কথাও বিবেচনা করবে। গত ২৫ আগস্ট মিয়ানমারের নিরাপত্তা বাহিনী রাখাইনে রোহিঙ্গাদের ওপর গণহত্যা ও উচ্ছেদ শুরু করার পর থেকে পাঁচ লাখ ৩৬ হাজারের বেশি রোহিঙ্গা বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে।

এত বিপুলসংখ্যক মানুষের বাস্তুচ্যুতি ও দেশত্যাগকে ‘দেশ থেকে সংখ্যালঘুদের বহিষ্কারের উদ্দেশ্যপূর্ণ উদ্যোগের’ইঙ্গিত হিসেবে সমঝোতায় উল্লেখ করা হয়েছে।

সমঝোতায় মিয়ানমারের নিরাপত্তা বাহিনীগুলোকে অবিলম্বে হামলা বন্ধ করার আহ্বান জানিয়ে ইইউ বলেছে, নিরাপত্তা বাহিনীর মাত্রাতিরিক্ত বল প্রয়োগের পরিপ্রেক্ষিতে ইইউ এবং এর সদস্য রাষ্ট্রগুলো মিয়ানমারের সামরিক বাহিনীর সর্বাধিনায়ক ও জ্যেষ্ঠ সামরিক কর্মকর্তাদের আমন্ত্রণ স্থগিত করবে এবং সব ধরনের প্রতিরক্ষা সহযোগিতা পর্যালোচনা করবে।