অপরাধ/দুর্নীতি জাতীয় বিভাগীয় সংবাদ

রাষ্ট্রপতির বিশেষ ক্ষমা পেলেও নিজেকে শোধরাননি আ. লীগের এই নেতা

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি : ইয়াবা সেবনরত অবস্থায় আটক কুষ্টিয়া পৌরসভার ১নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর রবিউল ইসলামকে (৪৬) গতকাল শনিবার দুই বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। তিনি শহর আওয়ামী লীগের ২নং ওয়ার্ড শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক এবং হত্যা মামলায় ফাঁসির দণ্ড থেকে রাষ্ট্রপতির ক্ষমাপ্রাপ্ত।পুলিশ জানায়, শহরের পিয়ারাতলার একটি হত্যা মামলায় রবিউলের মৃত্যুদণ্ড হয়েছিল।  রাজনৈতিক বিবেচনায় বছর-পাঁচেক আগে তিনি রাষ্ট্রপতির ক্ষমা পেয়ে জেল থেকে ছাড়া পান।ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) জুবায়ের হোসেন চৌধুরী জানান, গতকাল দুপুরে শহরের বড় স্টেশন রোডে স্বীকারোক্তি ও সাক্ষ্য-প্রমাণের ভিত্তিতে কাউন্সিলর রবিউলকে কারাদণ্ড দেওয়ার পর কারাগারে পাঠানো হয়েছে। তিনি পৌর এলাকার ১ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দা নজরুল ইসলামের ছেলে কুষ্টিয়া পৌরসভার মেয়র আনোয়ার আলী বলেন, ‘আইন তার আপন গতিতে চলবে, এটাই স্বাভাবিক। জনপ্রতিনিধিদের এ জাতীয় কাজে জড়িয়ে পড়া অনভিপ্রেত।’

এ বিষয়ে কুষ্টিয়ার স্থানীয় সরকার বিভাগের উপপরিচালক মৃণাল কান্তি দে জানান, সিআরপি বিধানমতে, কোনো জনপ্রতিনিধি আদালত কর্র্তৃক দণ্ডপ্রাপ্ত হলে মন্ত্রণালয়ের নির্দেশক্রমে সদস্য পদ রহিতসহ তিনি বরখাস্ত হবেন। নাম প্রকাশ না করার শর্তে ওই অভিযানে থাকা এক এসআই জানান, কাউন্সিলর রবিউলের বিরুদ্ধে কুষ্টিয়া মডেল থানায় মাদক ব্যবসা ছাড়াও বিভিন্ন অভিযোগ ও জিডি আছে।

জুমবাংলানিউজ/পিএম