খেলা-ধুলা

যে ২ কারণে দক্ষিণ আফ্রিকার কাছে হেরেছে বাংলাদেশ

দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে হতাশাজনক পারফরম্যান্সের পর ওয়ানডেতে ঘুরে দাঁড়ানোর স্বপ্ন দেখছে বাংলাদেশ। তবে সেই পথচলা শুরু হওয়ার আগেই হোঁচট খেয়েছে টাইগাররা। একমাত্র প্রস্তুতি ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকা আমন্ত্রিত একাদশের বিপক্ষে ব্যাটিংয়ে সুবিধা করতে পারেননি ইমরুল-মুশফিক-সৌম্যরা। এরপর বোলাররাও নিজেদের মেলে ধরতে পারেননি। দুই বিভাগেই ব্যর্থতার কারণে প্রস্তুতি ম্যাচে হেরেছে বাংলাদেশ।

ব্লুমফন্টেইনের মানগাউং ওভালে টসে জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে ৪৮.১ ওভারে গুটিয়ে যাওয়ার আগে ২৫৫ রান সংগ্রহ করে টাইগাররা। জবাবে ব্যাটিংয়ে নেমে মাত্র ৪ উইকেট হারিয়েই ২৫৭ রান পেরিয়ে যায় দক্ষিণ আফ্রিকা আমন্ত্রিত একাদশ। ফলে ৬ উইকেটের বিশাল জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে প্রোটিয়ারা।

তুলনামূলক সহজ লক্ষ্যে ব্যাটিংয়ে নেমে মার্করাম ও ব্রিটজেক ১৪৭ রানের দুর্দান্ত জুটি গড়লে জয়ের ভিত পায় দক্ষিণ আফ্রিকা আমন্ত্রিত একাদশ। এরপর আর পিছু ফিরে তাকাতে হয়নি স্বাগতিকদের। মোস্তাফিজদের হতাশ করে ধীরে ধীরে জয়ের পথে হাঁটছে ডুমিনি-ভিলিয়ার্সের দল।

এর আগে সাকিব আল হাসান ও সাব্বির রহমান ছাড়া অন্য কোনো ব্যাটসম্যান বড় ইনিংস খেলতে না পারায় চ্যালেঞ্জিং সংগ্রহ গড়তে ব্যর্থ হয় বাংলাদেশ। বাংলাদেশের হয়ে সাকিব ৬৭ বলে ৯টি চারের সাহায্যে সর্বোচ্চ ৬৮ রানের ইনিংস খেলেন। সাব্বির ৫৪ বলে দুটি চার ও তিনটি ছক্কায় করেন ৫২ রান। এছাড়া ইমরুল কায়েস ২৭, মুশফিক ২২ এবং মাহমুদউল্লাহ করেন ২১ রান। শেষদিকে মাশরাফি ১৭ এবং মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন করেন ১৩ রান। সৌম্য ৩ এবং লিটন দাস ৮ রান করে আউট হন।

দক্ষিণ আফ্রিকা আমন্ত্রিত একাদশের হয়ে দুটি করে উইকেট নেন এমবুলেলো বুডাজা, বি ফ্রাইলিংক, অ্যারন ফাঙ্গিসো ও মালুসি সিবোটো। উইয়ান মালডার ও বেরান হেন্ডরিক্স নেন একটি করে উইকেট।

বাংলাদেশ দল: মাশরাফি বিন মুর্তজা (অধিনায়ক), লিটন কুমার দাস, সৌম্য সরকার, ইমরুল কায়েস, মাহমুদউল্লাহ, মুশফিকুর রহীম, সাকিব আল হাসান, সাব্বির রহমান, নাসির হোসেন, মেহেদী হাসান মিরাজ, মোস্তাফিজুর রহমান, তাসকিন আহমেদ, রুবেল হোসেন, সাইফ উদ্দিন ও মুমিনুল হক।

দক্ষিণ আফ্রিকা আমন্ত্রিত একাদশ: জেপি ডুমিনি (অধিনায়ক), ম্যাথু ব্রিটজেক, এমবুলেলো বুডাজা, অ্যারন ফাঙ্গিসো, এবি ডি ভিলিয়ার্স, রবি ফ্রাইলিংক, বেরান হেন্ডরিক্স, হেনরিক ক্লাসেন, কেশব মহারাজ, এইডেন মার্করাম, উইয়ান মালডার, মালুসি সিবোটো, খায়া জন্ডো।