বিনোদন

যে বলিউড তারকারা প্রতিজ্ঞা ভঙ্গ করে পর্দায় চুমু খেয়েছেন

ককালের ঘনিষ্ঠ দৃশ্য দেখানোর জন্য প্রতীকী উদাহরণ দেয়া হতো, যা এখন অতীত। বলিউডে ইদানিং হরহামেশাই চুমুর দৃশ্য দেখা যায়। শুধু চুমু নয়, এরচেয়ে বেশি ঘনিষ্ঠ দৃশ্যও আজকাল দেখতে পায় দর্শক। তবে সিনেমায় প্রবেশের পর অনেক বলিউড অভিনেতা ও অভিনেত্রী প্রতিজ্ঞা করেছিলেন, পর্দায় সহতারকাদের চুমু খাবেন না তারা। এই তালিকায় ছিলেন সালমান খান, শাহরুখ খান, সোনাক্ষী সিনহা, রিতেশ দেশমুখ, শিল্পা শেঠি সহ অনেকে। কিন্তু একটা পর্যায়ে গিয়ে নিয়ম ভেঙেছেন অভিনেতা-অভিনেত্রীরা। তাদের নিয়েই আজকের প্রতিবেদন।

কারিনা কাপুর খান

বিয়ের আগে একাধিক ছবিতে চুমুর দৃশ্যে অভিনয় করেছেন কারিনা। নবাব পরিবারে বিয়ে ও স্বামীর পরিবার মুসলমান হওয়ায় তিনি সিদ্ধান্ত নেন, আর নয় সহ অভিনেতাকে পর্দায় চুমু। কিন্তু গত ২০১৬ সালে মুক্তি পাওয়া ছবি ‘কি অ্যান্ড কা’তে তার চেয়ে বয়সে ছোট অভিনেতা অর্জুন কাপুরকে অসংখ্যবার চুমু খেয়ে নিয়ম ভেঙেছেন।

শাহরুখ খান

তাকে কিং অব রোমান্স বলা হয়েও পর্দায় তাকে কোন নায়িকার সঙ্গে চুম্বন দৃশ্যে দেখা যায় নি। ঘনিষ্ঠ কিংবা অন্তরঙ্গ দৃশ্যে অভিনয় করেছেন অসংখ্য ছবিতে। কিন্তু তার প্রতিজ্ঞা ছিল, কিছুতেই কোন নায়িকার ঠোঁট স্পর্শ করবেন না। কিন্তু তিনিই নিয়ম ভাঙলেন তার ‘জাব তাক হ্যায় জান’ ছবিতে। প্রয়াত যশ চোপড়া পরিচালিত শেষ ছবিটিতে শাহরুখের নায়িকা ছিলেন ক্যাটরিনা কাইফ। এই ছবিতেই একাধিকবার ক্যাটরিনাকে চুমু খান শাহরুখ। শুধুমাত্র এই সিনেমার মাধ্যমে নিজের প্রতিজ্ঞা ভেঙেছিলেন এই অভিনেতা।

শহীদ কাপুর

প্রথমদিকে যখন বলিউডে নায়ক রূপে আবির্ভূত হন, তখন প্রায় সব নায়িকার সঙ্গেই চুমুর দৃশ্যে অভিনয় করেছিলেন শহীদ কাপুর। কিন্তু মীরা রাজপুতের সঙ্গে বিয়ের পর তিনি পত্নী প্রেমের কারণে প্রতিজ্ঞা করেন, পর্দায় চুমু খাওয়া থেকে বিরত থাকবেন। কিন্তু সেই নিয়ম ভাঙলেন তিনিও। ‘রেঙ্গুন’ ছবিতে কঙ্গনা রানাউতের সঙ্গে অন্তরঙ্গ দৃশ্যে ঠোঁটে ঠোঁট রেখে গভীর চুমু খেয়েছেন শহীদ।

সাইফ আলি খান

স্ত্রী কারিনা কাপুরের মতো বিয়ের পর সাইফ নিজেও প্রতিজ্ঞাবদ্ধ হয়েছিলেন বড়পর্দায় কোন নায়িকার ঠোঁটে ঠোঁট রাখবেন না তিনি। এই নিয়ম বহাল রেখেছিলেন বেশ কয়েকটি ছবিতেও। কিন্তু সিনেমার খাতিরে প্রতিজ্ঞা ভাঙতে হলো তাকেও। তিনিও ‘রেঙ্গুন’ ছবির নায়িকা কঙ্গনা রানাউতের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ দৃশ্যে অভিনয় করতে গিয়ে চুমু খেয়েছেন।

অজয় দেবগণ

দীর্ঘ ২৫ বছর ধরে অভিনয় ক্যারিয়ারে পর্দায় চুমু খেতে দেখা যায় নি অজয়কে। এমনকি স্ত্রী কাজলের সঙ্গে অভিনয় করার সময় পর্দায় তাকে চুমু খান নি অভিনেতা। সেই অজয় দেবগণ নিয়ম ভেঙেছেন ২০১৬ সালে মুক্তি পাওয়া ‘শিভায়’ ছবির মাধ্যমে। নিজের পরিচালনা ও প্রযোজনার এই ছবিতে তার বিপরীতে ছিলেন ইরিকা কার নামের বিদেশি নায়িকা। কেন নিয়ম ভাঙলেন। এই প্রশ্নের জবাবে অজয় বলেছিলেন, চিত্রনাট্যের খাতিরে প্রতিজ্ঞা ভেঙেছেন তিনি।

আলি জাফর

পাকিস্তানি তারকা হলেও বলিউডে একাধিক সিনেমায় অভিনয় করার খাতিরে তিনিও বলিউড অভিনেতাদের তালিকায় পড়েন। তিনিও পর্দায় চুমু খাবেন না বলে অনেক সিনেমায় বডি ডাবল ব্যবহার করেছেন। তবুও চুমু খাওয়া থেকে বিরত ছিলেন তিনি । কিন্তু আলিয়া ভাটের সঙ্গে অভিনয়ের সময় হয়ত নিয়ন্ত্রণ ছিল না তার। আর তাই তো ‘ডিয়ার জিন্দেগি’ ছবিতে আলিয়ার ঠোঁটে ঠোঁট রেখে গাঢ় চুম্বন দৃশ্যে অভিনয় করে আলোচনায় আসেন আলি জাফর।

যদিও দর্শকদের কোন আপত্তি নেই চুমুর দৃশ্য দেখতে। কিন্তু এই তারকারা নিজেরা ঘোষণা দেয়ার পরেও নিয়ম ভঙ্গ করায় সমালোচনার শিকার হয়েছেন। তবে যেহেতু সেন্সর বোর্ড এতে আপত্তি জানায় নি, তাহলে দর্শকরা এই দৃশ্য দেখবেন না কেন!