অর্থনীতি-ব্যবসা জাতীয়

যুক্তরাষ্ট্রের উচিত হবে বাংলাদেশকে জিএসপি সুবিধা ফিরিয়ে দেয়া : বাণিজ্যমন্ত্রী

বিজনেস ডেস্ক : অগ্রাধিকারমূলক বাজার সুবিধা (জিএসপি) স্থগিত থাকায় বাংলাদেশের তেমন আর্থিক কোনো ক্ষতি না হলেও ইমেজের (ভাবমূর্তি) ক্ষতি হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি। তিনি বলেন, বাংলাদেশের তৈরি পণ্যের ক্রেতাগোষ্ঠীর পরার্মশ অনুযায়ী দেশের তৈরি পোশাক কারখানাগুলোর পরিবেশ উন্নত, বিল্ডিং সেফটি, ফায়ার সেফটি নিশ্চিত করা হয়েছে। শ্রমিকদের অধিকার প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে। এখন জিএসপি স্থগিত রাখার কোনো কারণ নেই। যুক্তরাষ্ট্রের উচিত হবে জিএসপি সুবিধা বাংলাদেশকে ফিরিয়ে দেয়া।

সম্প্র্রতি রাজধানীর সোনারগাঁও হোটেলে ‘২৬তম ইউএস ট্রেড শো-২০১৯’ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাণিজ্যমন্ত্রী এ কথা বলেন। আমেরিকান চেম্বার অব কমার্স ইন বাংলাদেশ (অ্যামচেম) ও ঢাকায় মার্কিন দূতাবাস তিন দিনব্যাপী এ মেলার আয়োজন করে। অ্যামচেমের প্রেসিডেন্ট মো. নূরুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন ঢাকায় নিয়োজিত মার্কিন রাষ্ট্রদূত রবার্ট আর্ল মিলার।

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, তৈরি পোশাক রফতানিতে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কাছ থেকে বাংলাদেশ কোনো জিএসপি সুবিধা আগেও পেত না। টোব্যাকো, সিরামিক, প্লাস্টিকের মতো কিছু পণ্য রফতানিতে জিএসপি সুবিধা প্রদান করা হতো। অপ্রত্যাশিত রানা প্লাজা দুর্ঘটনার পর জিএসপি সুবিধা স্থগিত করা হয়। জিএসপি স্থগিত থাকায় বাংলাদেশের তেমন আর্থিক কোনো ক্ষতি না হলেও ইমেজের ক্ষতি হয়েছে। বর্তমান পরিস্থিতিতে যুক্তরাষ্ট্রের বাংলাদেশকে দেয়া জিএসপি সুবিধা স্থগিতের সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করা উচিত। এ বিষয়ে মার্কিন রাষ্ট্রদূত উদ্যোগ নিতে পারেন।

প্রসঙ্গত, মার্কিন পণ্য ও সেবা সম্পর্কে এ দেশের ভোক্তাদের অবহিত করতে ১৯৯২ সাল থেকে এ প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে। এবার অংশগ্রহণকারীর সংখ্যা আরো বেড়েছে। প্রযুক্তি, প্রসাধনী, খাদ্য, শিক্ষা, স্বাস্থ্যসহ মার্কিন প্রায় সব খাতের পণ্য ও সেবা নিয়ে ৪৬টি প্রতিষ্ঠান ৭৪টি প্যাভিলিয়নে তাদের পণ্য ও সেবা প্রদর্শন করছে। এ উপলক্ষে মার্কিন শিক্ষা ও ব্যবসা ভিসাসংক্রান্ত দুটি সেমিনার অনুষ্ঠিত হবে।

মেলায় যুক্তরাষ্ট্রের উন্নত মানের পণ্য ও সেবার প্রদর্শনীর পাশাপাশি বিভিন্ন পণ্য বিক্রি হবে। সোনারগাঁও হোটেলের বলরুমে প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত মেলা দর্শনার্থীদের জন্য খোলা থাকবে। মেলায় প্রবেশ ফি ৩০ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। তবে স্কুল শিক্ষর্থীরা ড্রেস পরে এবং আইডি কার্ড প্রদর্শন করে ফি ছাড়া মেলায় প্রবেশ করতে পারবে।

জুমবাংলানিউজ/পিএম