জাতীয়

মেলায় ২০০ কবর বুকিং

জুমবাংলা ডেস্ক : চলমান আবাসন মেলায় দুই শ কবরের প্লট বিক্রি হয়েছে। এম আই এস হোল্ডিং লিমিটেড নামে একটি প্রতিষ্ঠান মেলায় কবরের প্লট বিক্রি করছে।

এই প্রকল্পটি ঢাকার অদূরে পূর্বাচলে। প্রতিষ্ঠানটির  কর্মকর্তা আফরোজা সুলতানা বলেন, এই খবরটা জানার পরে অনেকে বিতর্ক সৃষ্টি করার চেষ্টা করে। বলে কবর নিয়েও ব্যবসা করে! কিন্তু চিন্তা করলে দেখা যায় – যখন বাংলাদেশে মিনারেল ওয়াটার এসেছিল তখন মানুষ বলত, পানি আবার কিনে খেতে হবে! কিন্তু সেই পানি এখন আমাদের সব সময় লাগে। তেমনি ভাবে এই বিষয় আমাদের জীবনের অংশ। আসলে নতুনত্বকে গ্রহণ করে নেয়ার মানসিকতা তৈরি করতে হবে।

ইসমাইল হোসেন নামে একজন দর্শনার্থী বলেন, ঢাকা শহরে কবরের স্থানের যে অপ্রতুলতা রয়েছে সে অনুযায়ী এই উদ্যোগটা তার কাছে ব্যতিক্রম মনে হয়েছে।

তিনি বলেন, এই জিনিসটা ঢাকা শহরের জন্য ঠিক আছে। কারণ ঢাকা শহরে কবরস্থান দিনে দিনে একটা সংকটের দিকে চলে যাচ্ছে। একটা কবর দেওয়ার পর হয়ত তিন মাস পর আবার সেখানে রিপ্লেস করা লাগছে। এখন এরা যদি সততার সঙ্গে কবরগুলো মানুষকে বুঝিয়ে দিতে পারে তাহলে আমি মনে করি এটা খুব ভালো কাজ।

ঢাকায় ৮টি সরকারি কবরস্থান রয়েছে। ৫, ১০, ১৫ ও ২৫ বছর, এ রকম নানা মেয়াদে সেখানে জায়গা বরাদ্দ আছে খুব অল্প কিছু কবরের। যার জন্য দেড় থেকে সর্বোচ্চ ১৫ লাখ টাকা পর্যন্ত খরচ করতে হয়।

ঢাকার আজিমপুরের কবরস্থানটিতে ৩০ হাজারের মতো কবরের জায়গা হয়। বনানী কবরস্থানে রয়েছে ২২ হাজার কবরের জায়গা।

আফরোজা সুলতানা জানান, তাদের এই মুহূর্তে রেডি কবরের প্লট রয়েছে দুই হাজার, তবে মেলায় দুই শ  বুকিং পেয়েছেন তারা।

রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে পাঁচ দিনব্যাপী আবাসন মেলা বুধবার শুরু হয়। খবর- বিবিসি বাংলা

জুমবাংলানিউজ/এসএস