আন্তর্জাতিক

মুসলিমদের নজরদারিতে রাখতে চীনে ‘বিশেষ’ ক্যামেরা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : সংখ্যালঘু মুসলমানদের নজরদারিতে রাখতে চীনের প্রশ্নবিদ্ধ কার্যক্রম আরেকবার বিতর্কিত হতে হচ্ছে। দেশটির একটি বিশ্ববিদ্যালয় রাষ্ট্রীয় সহযোগিতায় এমন এক ধরনের ক্যামেরা বানাচ্ছে যা ৪৫ কিলোমিটার বা ২৫ মাইল দূর থেকেও মানুষের ওপর নজরদারি করতে পারবে!

আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে এই ক্যামেরাকে ‘মহাশক্তিশালী’ বলে উল্লেখ করা হয়েছে। ‘ভাইস’ নামের একটি গণমাধ্যম জানিয়েছে, চীনের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষক ঝেং-পিং লির নেতৃত্বে এই ক্যামেরা বানানো হচ্ছে।

এই ক্যামেরা দিয়ে ধোয়ায় আচ্ছন্ন এলাকায়ও ছবি তোলা যাবে।

সংখ্যালঘু মুসলমানদের চলাফেরায় চীন সবসময় নজরদারি করে। এ জন্য বিভিন্ন ধরনের কৌশল অবলম্বন করে তারা। তার মধ্যে গোপন ক্যামেরার ব্যবহার বহু পুরোনো।

‘ভাইসে’র প্রতিবেদনে আশঙ্কা করা হচ্ছে, নতুন শক্তিশালী ক্যামেরা দিয়েও একই কাজ করা হবে।

এই ক্যামেরা তৈরি করা হচ্ছে লেজার এবং শনাক্তকরণ পদ্ধতিতে। যাকে নজরে রাখা হবে, লেজার দিয়ে প্রথমে তার ওপর আলো ফেলা হবে। তারপর প্রতিফলিত আলো ব্যবহৃত হবে ছবি তুলতে। পুরো প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা হবে বিশেষ এক ধরনের ইমেজিং অ্যালগরিদম ব্যবহার করে।

‘গেটিং’ নামের এক ধরনের সফটওয়্যার ব্যবহার করা হবে, যা ভিডিও কিংবা ছবি তোলার সময় বাইরের ‘নয়েজে’র প্রবেশ ঠেকাবে।

পরীক্ষামূলকভাবে চীন ইতিমধ্যে এই ক্যামেরার ব্যবহার শুরু করেছে। সাংহাই দ্বীপের একটি বিশতলা ভবনের ওপর একটি ক্যামেরা স্থাপন করা হয়েছে।

ক্যামেরাটি বেশ ছোট। দেখতে অনেকটা জুতার বাক্সের মতো। দামও খুব একটা বেশি নির্ধারণ করা হয়নি।

জুমবাংলানিউজ/এএসএমওআই