slider জাতীয়

মুক্তামনি ওটিতে যাওয়ার আগে মাকে যা বলেছিল

বিরল রোগে আক্রান্ত সাতক্ষীরার মুক্তামণির হাতের অপারেশন শেষ হয়েছে। বর্তমানে মুক্তামনি সুস্থ্য রয়েছে। তাকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইউনিটের আইসিইউতে (নিবিড় পর্যবেক্ষণ কেন্দ্র) রাখা হয়েছে। বার্ন ইউনিটের একজন আবাসিক চিকিৎসক গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

শনিবার (১২ আগস্ট) বেলা ১১টা ২০ মিনিটের দিকে তার ডান হাতে অপারেশন শেষ হয়। তবে চিকিৎসক বোর্ডের প্রধান অপারেশনের বিষয়টি পরে ব্রিফিং করবেন বলে ওই চিকিৎসক জানিয়েছেন।

এর আগে সকাল সাড়ে ৮টার দিকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইউনিটের তৃতীয় তলায় মুক্তামণির অপারেশন শুরু হয়।

মঙ্গলবার সকালে মুক্তামণির চিকিৎসার জন্য গঠিত ১৩ সদস্যের মেডিক্যাল বোর্ড তার বায়োপসি রিপোর্ট পর্যালোচনা করে। এরপরই অস্ত্রোপচারের এ দিন ধার্য করা হয়।

বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইউনিটের সমন্বয়কারী ডা. সামন্ত লাল সেন তখন বলেছিলেন, মুক্তামণির জীবন রক্ষার্থে যদি তার রোগাক্রান্ত হাতটি কেটে ফেলতে হয়, তবে তাই করবেন। অবশ্য হাতটি রাখার আপ্রাণ চেষ্টা করা হবে।

অপারেশন থিয়েটারে যাওয়ার আগে মুক্তমনি তার মাকে বলেছিলেন, ‘মা আমার ভয় করে। অপারেশন থিয়েটারে (ওটি) নেওয়ার সময় মাকে মনের কথা এভাবেই বলছিল মুক্তামনি। মা তাকে আশ্বস্ত করে বলেন, ‘তুমি এ পর্যন্ত যত দোয়া শিখছো সেগুলো পড়ো। ভয়ের কোনও কারণ নেই। পুরো দেশবাসী তোমার সঙ্গে আছে’।

প্রসঙ্গত, গত ১২ জুলাই ঢামেক হাসপাতালের বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইউনিটে ভর্তি হয় মুক্তামনিকে। এতদিন মুক্তামনির রোগটিকে বিরল রোগ বলা হলেও ৫ আগস্ট তার বায়োপসি করার পর জানা গেছে মুক্তামনির রক্তনালীতে টিউমার হয়েছে যেটাকে চিকিৎসা বিজ্ঞানে হেমানজিওমা বলা হয়ে থাকে।

Advertisements