আন্তর্জাতিক প্রবাসী খবর

মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশী হত্যায় ৩ ইন্দোনেশিয়ান গ্রেপ্তার

মালয়েশিয়ার শাহ আলম এলাকায় এক বাংলাদেশী নাগরিককে হত্যায় জড়িত সন্দেহে পুলিশ ইন্দোনেশিয়ার তিন নাগরিককে গ্রেপ্তার করেছে। এসব ব্যক্তির বয়স ১৮ থেকে ২৫ বছরের মধ্যে। ১৩ই ডিসেম্বর বন্দর পুত্র ক্লাং ও কুয়ালা লাঙ্গাট থেকে আলাদা অভিযানে তাদেরকে গ্রেপ্তার করা হয়। এ সময় উদ্ধার করা হয় ৫টি মোবাইল ফোন। এ খবর দিয়েছে অনলাইন নিউ স্ট্রেইট টাইমস।

তিন মাস আগে শাহ আলমের ৩০ নম্বর সেকশনে ওই বাংলাদেশীকে হত্যা করা হয়। তবে নিহত বাংলাদেশীর নাম জানা যায় নি। এ নিয়ে তদন্ত চলছে। শাহ আলমের পুলিশের প্রধান সহকারী কমিশনার শাফিয়েন মামাত বলেছেন, স্থানীয় সময় সকাল ১০টা ৪০ মিনিটে সেকশন ৩০-এ রাস্তার পাশ থেকে পুলিশ উদ্ধার করে ওই বাংলাদেশীর মৃতদেহ। এ সময় তার কাঁধে ও পেটে ক্ষত চিহ্ন ছিল। পুলিশ বলেছে, ওই সময় তাকে চিহ্নিত করার মতো পর্যাপ্ত তথ্য তাদের কাছে ছিল না। মৃতের সঙ্গে কোনো পরিচয়বাহী ডকুমেন্ট ছিল না। এক সপ্তাহ পরে ওই ব্যক্তির পরিচয় নিশ্চিত হয় পুলিশ।

এক প্রত্যক্ষদর্শী বলেন, একটি ট্যাক্সি থেকে মৃতদেহ ওই এলাকায় ফেলে যাওয়া হয়েছে। এই এলাকাটি শ্রমিকদের আবাসস্থল বলে পরিচিত। পুলিশ ওই ট্যাক্সিচালককে চিহ্নিত করতে সক্ষম হয়। আরও তদন্তে মামলার অগ্রগতি হয়।

পুলিশ বলেছে, ইন্দোনেশিয়ার তিন ব্যক্তিকে সন্দেহজনকভাবে গ্রেপ্তার করার পর তাদের একজন হত্যায় জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছে। তাদেরকে আরও তদন্তের জন্য ২০শে ডিসেম্বর পর্যন্ত রিমান্ডে নিয়েছে পুলিশ। এখন পর্যন্ত পাওয়া তথ্যে দেখা যাচ্ছে, ঈর্ষাপরায়ণতায় ওই বাংলাদেশীকে হত্যা করা হয়ে থাকতে পারে। আবার ধারণা করা হচ্ছে, ঘাতকের স্ত্রীর সঙ্গে নিহত ব্যক্তি গোপন সম্পর্ক থাকতে পারে। তার কারণেই এই হত্যাকান্ড।

ভিডিওঃ গ্রামের আনন্দ – যাত্রার মেয়ে নিয়ে ঠাসাঠাসি – ধ্বস্তাধস্তি

Add Comment

Click here to post a comment

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.