আন্তর্জাতিক

মসজিদে হামলার ঘটনা, বিবৃতিতে কোন দেশ কী বলছে?

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : শুক্রবার জুমার নামাজের প্রস্তুতির সময় নিউজিল্যান্ডে ক্রাইস্টচার্চ শহরে হ্যাগিল পার্ক এলাকায় দুই মসজিদে হামলার ঘটনায় ৪৯ জন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন অনেকেই। এমন হামলায় সৌদি আরব, তুরস্ক, মালয়েশিয়া, ইন্দোনেশিয়া ও বাংলাদেশসহ বিভিন্ন দেশ বিবৃতি দিয়ে নিন্দা জানিয়েছে।

সৌদি আরব

নিউজিল্যান্ডে সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় সৌদি আরবের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় নিন্দা জানিয়েছে। এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, সন্ত্রাসীদের কোনো রাষ্ট্র নেই, কোনো ধর্ম নেই। সব ধরনের সন্ত্রাসী কার্যক্রমের নিন্দা জানাচ্ছি।

তুরস্ক

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যিপ এরদোগানের মুখপাত্র এ ঘটনার নিন্দা জানিয়ে বলেন, এটি বর্ণবাদী ও ফ্যাসিস্ট আচরণ। এ ঘটনায় ইব্রাহিম কালিন টুইট করে বলেন, এই হামলার ঘটনাটি ইসলামের প্রতি এবং মুসলমানদের প্রতি শত্রুতা।

আরব আমিরাত

আরব আমিরাতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আনোয়ার গারদাস শুক্রবার এক টুইটে এ হামলাকে ‘হৃদয়গ্রাহী নিন্দা’ বলে আখ্যায়িত করেছে। তিনি নিহতদের পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানান।

জর্ডান

জর্ডানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জুমানা গিনিমাত সন্ত্রাসবাদ প্রত্যাখ্যান করে বলেন, শান্তি জায়গায় হামলা করা হয়েছে।

আল আজহার বিশ্ববিদ্যালয়

নিউজিল্যান্ডে সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় নিন্দা জানিয়েছেন আল আজহার বিশ্ববিদ্যালয়। আল-আজহার সতর্কতা উল্লেখ করে হামলার কথা উল্লেখ করে বলেন এটি ষড়যন্ত্র।

ইন্দোনেশিয়া

ইন্দোনেশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী রেতনো মারসুদি এক বিবৃতিতে বলেন, ইন্দোনেশিয়া বন্দুক হামলার ঘটনায় তীব্র নিন্দা জানাচ্ছে। বিশেষ করে শুক্রবারে প্রার্থনার প্রস্তুতির সময়। মসজিদের ভেতরে ইন্দোনেশিয়ার ৬ জন ছিল। এর মধ্যে তিনজন অব্যাহতি পেলেও বাকি তিনজন অব্যাহতি পাননি।

মালয়েশিয়া

মুসলিম-অধ্যুষিত মালয়েশিয়ার জোট নেতা আনোয়ার ইব্রাহিম এ ঘটনাকে দুঃখজনক উল্লেখ করে বলেন, এ হামলার ঘটনার বর্ণনায় মালয়েশিয়া আহত হয়েছে। শান্তি এবং মানবতা কালো দিনের সম্মুখীন হয়েছে। তিনি এক বিবৃতিতে বলেছেন, আমি গভীরভাবে দুঃখিত বেসামরিক হামলায়। তিনি নিহতদের পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন।

আফগানিস্তান

অস্ট্রেলীয়, নিউজিল্যান্ড এবং ফিজির আফগানিস্তানের অ্যাম্বাসেডর ওয়াহিদুল্লাহ ওয়েসি টুইটারে আফগানিস্তানের তিন নাগরিক আহত উল্লেখ করেন এবং ঘটনার নিন্দা জানান।

জুমবাংলানিউজ/এসএস