slider আইন-আদালত জাতীয়

মঙ্গলবার মামলার রায়ঃ কেমন আছে সেই নির্যাতিত গৃহকর্মী আদুরী

 চার বছর আগে ঢাকার একটি ডাস্টবিনে সন্ধান পাওয়া নির্যাতিত গৃহকর্মী আদুরী আক্তার এখন একটি মাদ্রাসার তৃতীয় শ্রেণীর শিক্ষার্থী। আদুরীকে নির্যাতনের মামলায় গৃহকর্ত্রী নওরীন জাহান নদী ও তার মা ইশরাত জাহানের রায় ঘোষণা করা হবে মঙ্গলবার।

ঢাকার ৩ নম্বর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক জয়শ্রী সমাদ্দার যুক্তিতর্কের শুনানি শেষে ১৮ জুলাই রায়ের দিন নির্ধারণ করে দিয়েছিলেন।

পটুয়াখালী সদর উপজেলার কৌরাখালী গ্রামের এই শিশুটিকে ২০১৩ সালের ২৩ সেপ্টেম্বর ঢাকা ক্যান্টনমেন্ট থানা এলাকার একটি ডাস্টবিন থেকে উদ্ধার করা হয়। কঙ্কালসার সেই শিশুর শরীরে ছিল অসংখ্য কাটা ছেড়ার দাগ আর নির্যাতনের চিহ্ন। তিন দিন পর আদুরীর মামা নজরুল চৌধুরী বাদী হয়ে পল্লবী থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেন।

মামলা দায়েরের পর পুলিশের তদন্তে জানা যায়, পল্লবীর ১২ নম্বর সেকশনের ২৯/১ সুলতানা প্যালেসের দ্বিতীয় তলার বাসিন্দা নওরীন জাহান নদী ধারালো চাকু দিয়ে গৃহকর্মী আদুরীর শরীরের বিভিন্ন অংশ কেটে, ইস্ত্রি দিয়ে ছ্যাঁকা দিয়ে মারাত্মক জখম করেন এবং পরে তাকে ডাস্টবিনে ফেলে রাখেন।

ওই মামলার রায় শুনতে এরই মধ্যে ঢাকা এসেছে আদুরী। রায়ে আসামিদের সর্বোচ্চ শাস্তি দাবি করেছেন তার মা। আদুরীর শরীরে নির্যাতনের স্থানগুলো এখনও চুলকায় আর যন্ত্রণা হয় জানিয়ে আদুরির মা সংবাদমাধ্যমকে বলেছেন, ‘আমি চাই উপযুক্ত শাস্তি হোক। একটা দৃষ্টান্ত থাকা উচিৎ।’