অপরাধ-দুর্নীতি অর্থনীতি-ব্যবসা আইন-আদালত জাতীয়

ভেজাল গুড় কারখানায় অভিযান, ৯ লাখ টাকা জরিমানা

নাটোর প্রতিনিধি : নাটোরের গুরুদাসপুর উপজেলার চাঁচকৈড় বাজার এলাকার তিনটি ভেজাল গুড় কারখানায় অভিযান চালিয়ে বিপুল পরিমাণ খাওয়ার অনুপযোগী গুড় জব্দ করে ধ্বংস করেছে র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‌্যাব) সদস্যরা। একই সঙ্গে এ ঘটনায় তিন গুড় কারখানার মালিককে তিন লাখ টাকা করে মোট নয় লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

শুক্রবার (১৭ মে) দুপুরে র‍্যাবের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

অর্থ দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- চাঁচকৈড় গ্রামের মৃত আজিজ সোনারেরর ছেলে সুজন সোনার (২৫), একই এলাকার মৃত শাহ মাহমুদের ছেলে মুক্তার শাহ (৪০) ও আতাহার সোনারের ছেলে আল আমিন (৩২)।

জানা যায়, দণ্ডপ্রাপ্ত ব্যবসায়ীরা অনেক দিন ধরে কাপড়ে ব্যবহৃত রং ও চিনির সঙ্গে কেমিক্যালের মিশ্রণ দিয়ে খাওয়ার ভেজার গুড় তৈরি করে সারাদেশে বাজারজাত করতেন। র‌্যাবের অনুসন্ধান দল তথ্যটি নিশ্চিত করলে ওই তিনটি কারখানায় অভিযান চালানো হয়।

র‌্যাব-৫ সিপিসি-২ নাটোর ক্যাম্পের কোম্পানি কমান্ডার (ভারপ্রাপ্ত) এএসপি রাজিবুল আহসান ও গুরুদাসপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ( ইউএনও) মিজানুর রহমানের নেতৃত্বে র‌্যাবের একটি অপারেশন দল বৃহস্পতিবার (১৬ মে) দিনগত রাত সাড়ে ৯টার থেকে রাত আড়াইটা পর্যন্ত উপজেলার চাঁচকৈড় বাজার এলাকার তিনটি গুড় তৈরির কারখানায় অভিযান চালায়।

এসময় সুজন সোনার, আল আমিন ও মোক্তার শাহ’র গুড় তৈরির কারখানায় অভিযান চালিয়ে এক লাখ কেজি খাওয়ার অনুপযোগী গুড়, ২৮০টি প্লাস্টিকের ড্রাম, ৩৫০টি সিলভারের হাঁড়ি-পাতিল, ১৫ হাজার ৯৫০ কেজি চিনি, ২৫০ কেজি আতপ চাল জব্দ করা হয়। এছাড়া ওই তিন গুড় ব্যবসায়ীকে আটক করা হয়।

শুক্রবার সকালে তাদের ভ্রাম্যমাণ আদালতে সোপর্দ করা হলে তারা অপরাধ স্বীকার করেন। এসময় বিচারক ভেজাল গুড় তৈরি ও সংরক্ষণের অপরাধে তিন ব্যবসায়ীর প্রত্যেককে তিন লাখ টাকা করে মোট নয় লাখ টাকা জরিমানা করেন। পরে জব্দ হওয়া গুড় নষ্ট করে বাকি মালামাল বিভিন্ন মাদ্রাসায় বিতরণ করা হয়।

নাটোর ক্যাম্পের কোম্পানি কমান্ডার (ভারপ্রাপ্ত) এএসপি রাজিবুল আহসান বাংলানিউজকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

জুমবাংলানিউজ/পিএম