খেলাধুলা

ভালো শুরু করতে পারলে বড় ইনিংস খেলতে পারবো

ঘরোয়া ক্রিকেটে তিন বছরের নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে জাতীয় লিগ দিয়ে আবার ক্যারিয়ার শুরু করেন মোহাম্মদ আশরাফুল। ঢাকা মেট্রোর এই ক্রিকেটার তিনটি রাউন্ড খেললেও ব্যাটিং করতে পেরেছেন কেবল এক ম্যাচে। প্রথম ইনিংসে ২৬, পরের ইনিংসে করেন মাত্র ২ রান।
সেপ্টেম্বর-অক্টোবরে টানা বৃষ্টির কারণে লিগই স্থগিত করতে বাধ্য হয় বিসিবি। নভেম্বরে বিপিএল শুরু হলে লম্বা বিরতিই পড়ে যায় জাতীয় লিগে। বিরতি কাটিয়ে আগামীকাল (২০ ডিসেম্বর) থেকে দেশের চারটি ভেন্যূতে শুরু হচ্ছে জাতীয় লিগের চতুর্থ রাউন্ড। বিরতির মাঝে খেলার মধ্যেই ছিলেন আশরাফুল। নারায়নগঞ্জ লিগ, সিরাজগঞ্জে টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট, অনূর্ধ্ব-১৯ দলের বিপক্ষে মিরপুরে ৫০ ওভারের ম্যাচ, সবশেষ কাতারে প্রীতি ম্যাচ খেলে এসেছেন এ ব্যাটসম্যান।
কয়েকটা ম্যাচেই দুর্দান্ত ব্যাটিং করেছেন আশরাফুল। শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে অনূর্ধ্ব-১৯ দলের বিপক্ষে ১১৫ রানের ইনিংস খেলেন তিনি। জাতীয় লিগের বিরতির মাঝেও খেলার মধ্যে থাকতে পেরে ও কয়েকটা ভালো ইনিংস খেলে আত্মবিশ্বাসী হয়ে উঠেছেন আশরাফুল। জাতীয় লিগের পরের রাউন্ডে বড় ইনিংস খেলার মনছবি দেখছেন এ ক্রিকেটার।
সোমবার মিরপুরের একাডেমি মাঠে অনুশীলনের পর সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে ঢাকা মেট্রোর এ ক্রিকেটার বলেন, ‘বিপিএলের সময় আমি অনেকগুলো ম্যাচই খেলেছি। নারায়নগঞ্জ লিগে চারটা ম্যাচ খেলেছি। সিরাজগঞ্জে একটা টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট হলো। অনূর্ধ্ব-১৯ দলের সঙ্গে একটা ম্যাচ খেললাম। ওভারঅল এই ম্যাচগুলো আমার উপকারে এসেছে। আবার জাতীয় লিগ শুরু করবো। এর আগেই প্রায় ১০-১২টা ইনিংস খেলেছি, কয়েকটা ভালো ইনিংসও ছিল। যেখান থেকে জাতীয় লিগ শুরু করেছিলাম ওখান থেকে আমি অনেক ভালো শেপে আছি। আমার বিশ্বাস কাল যদি ভালো শুরু করতে পারি বড় তবে ইনিংস খেলতে পারবো।’
আগামীকাল ঢাকা বিভাগের বিপক্ষে আশরাফুলদের ম্যাচ ফতুল্লার খান সাহেব ওসমান আলী স্টেডিয়ামে। এ মাঠে রাজশাহী বিভাগের বিপক্ষে দুই ইনিংসেই জ্বলে উঠে ম্যাচ জিতিয়েছিলেন আশরাফুল। কালকের ম্যাচের আগে সেই সুখস্মৃতি প্রকাশ করলেন আশরাফুল, ‘ফতুল্লায় ঢাকা-রাজশাহী ম্যাচে একবার একটা সেঞ্চুরি করেছিলাম। পরের ইনিংসে ফিফটি করে ম্যাচ জেতাই। তো ওইটা আমার একটা বেস্ট ইনিংস ছিল। আমার পরিচিত মাঠ, উইকেট ভালো, আউটফিল্ড ভালো। চেষ্টা করবো সেট হতে পারলে যেন বড় ইনিংস খেলার।’
বাংলাদেশ দল নিউজিল্যান্ড সফরে থাকায় জাতীয় দলের ক্রিকেটারদের খেলা হচ্ছে না জাতীয় লিগ। কিছুটা জৌলুস হারালেও যারা খেলবেন তাদের কাছ থেকে ভালো ক্রিকেট আশা করছেন আশরাফুল, ‘সবসময়ই জাতীয় লিগে কিন্তু আমাদের বাংলাদেশ টিমের মেইন প্লেয়াররা নিয়মিত থাকে না। অবশ্যই ন্যাশনাল প্লেয়াররা থাকলে খুব ভালো লাগে। খেলার ফোকাস বেশি থাকে। যেহেতু ওরা নেই আমরা যারা আছি বাকি ১২০টা প্লেয়ার মিলে ভালো খেলার দিকে ফোকাস করবো।’
‘আস্তে আস্তে আমাদের অনেক কিছুই ইমপ্রুভ হচ্ছে আগের থেকে। শেষ কয়েকটা মৌসুমে আমি দেখেছি প্রচুর ডাবল সেঞ্চুরি হতে। আমরা যারা ক্রিকেটাররা আছি চেষ্টা করবো এবার যেন কেউ ট্রিপল সেঞ্চুরি করতে পারে। এটাই যেন ইচ্ছা থাকে সব ব্যাটসমানের। অনেক দিন পর খেলায় ফিরেছি। বৃষ্টির কারণে চারটা ইনিংস মিস হয়েছে দুইটা ইনিংস সুযোগ পেয়েছিলাম। অতটা ভালো করতে পারিনি। তারপর লম্বা একটা বিরতি বিপিএলের কারণে। এখন থেকে যে ধরনের ক্রিকেটই হোক ভালো খেলার চেষ্টা করবো। আগের মতো বড় বড় ইনিংস যেন খেলতে পারি সে আশা থাকবে।’-যোগ করেন আশরাফুল।

ভিডিও:অবাক কান্ড ৪ বছরের শিশু চালাচ্ছে মটরসাইকেল!! তাও আবার পিছনে তিনজনকে বসিয়ে দেখুন (ভিডিও)

Add Comment

Click here to post a comment

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.