খেলা-ধুলা

ব্যাটে রান পেল মুশফিক-মাহমুদউল্লাহ , সাকিব-মুস্তাফিজের উইকেট

ব্যাটিং ও বোলিং দুই বিভাগেই ভালো করেছিল বাংলাদেশ। কিন্তু নিউজিল্যান্ড একাদশের বিপক্ষে জয় পাওয়া হয়নি। অবশ্য ভালো ব্যাটিং ও বোলিংয়ের আত্মবিশ্বাস নিশ্চিতভাবেই মূল মঞ্চে কাজে আসবে টিম বাংলাদেশের।

বৃহস্পতিবার একমাত্র প্রস্তুতি ম্যাচে আগে ব্যাটিংয়ে নেমে বাংলাদেশ ৪৩ ওভারে ৮ উইকেটে ২৪৫ রান সংগ্রহ করে। ৩ উইকেট ও ৮ বল হাতে রেখে জয় নিশ্চিত করে মাঠ ছাড়ে নিউজিল্যান্ড একাদশ।

কবহ্যাম ওভাল ওয়াঙ্গারেইয়ে বাংলাদেশ সময় ভোর চারটায় ম্যাচটি শুরু হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু বৃষ্টির কারণে ম্যাচ দেরিতে শুরু হয়। ৫০ ওভারের ম্যাচ ৭ ওভার কমে ৪৩ ওভারে নেমে আসে।

দলের হয়ে সর্বোচ্চ ৪৫ রান করেন মুশফিকুর রহিম। মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ৪৩ ও সৌম্য সরকার ৪০ রান করেন। তবে ব্যাটিংয়ের শুরুটা ভালো ছিল না বাংলাদেশের। ১ রানে তামিম ইকবাল সাজঘরে ফিরেন। দ্বিতীয় উইকেটে প্রতিরোধ গড়ে তোলেন ইমরুল কায়েস ও সৌম্য সরকার। দুই বাঁহাতি ব্যাটসম্যান দেখেশুনে ধীরগতিতে রান তুলে দলের পুঁজিকে বাড়াতে থাকেন। ইমরুল কায়েস ৩৬ রানে ফিরে যাওয়ার পর সৌম্য সরকার ৪০ রানে সাজঘরে ফেরেন। দেশের মাটিতে রান খরায় থাকলেও বিদেশের মাটিতে ধারাবাহিকভাবে রান পাচ্ছেন সৌম্য সরকার। নিশ্চিতভাবেই প্রস্তুতি ম্যাচের এ পারফরম্যান্স মূল মঞ্চে ভালো করতে আত্মবিশ্বাস বাড়াবে।

ইমরুল ও সৌম্যর পর ব্যাট হাতে রানের দেখা পান মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। দ্রুত ৪৩ রান তুলে নেন ব্যাট হাতে দারুণ সময় পার করা মাহমুদউল্লাহ। এরপর টিম ম্যানেজমেন্ট তাকে উঠিয়ে মুশফিকুর রহিমকে মাঠে নামায়। টেস্ট দলপতি মুশফিকুর রহিমও হতাশ করেননি। দলের হয়ে সর্বোচ্চ ৪৫ রান করেন উইকেটরক্ষক এ ব্যাটসম্যান। এ ছাড়া সাকিব আল হাসান ২৩, মাশরাফি ২১ রান করেন। নিউজিল্যান্ড একাদশের হয়ে ২টি করে উইকেট নেন ব্রেট হ্যাম্পটন ও শন হিকস।

বোলিংয়ের শুরুতেই মুস্তাফিজ সফরকারী শিবিরে আঘাত করেন। ইনজুরি থেকে ফিরে এসে মুস্তাফিজ নিজের প্রথম ওভারের চতুর্থ বলে আউট করেন রায়ান ডাফিকে। দ্বিতীয় উইকেটে ৮৮ রানের প্রতিরোধ গড়ে তোলে বেন স্মিথ ও ভরত পপলি। ২০তম ওভারে সাকিব আল হাসান বোলিংয়ে এসে এ জুটি ভাঙেন। স্মিথকে (৫০) বোল্ড করার পর দ্রুত আরো ২ উইকেট নেন বিশ্বের অন্যতম সেরা এ স্পিনার। দ্রুত ৩ উইকেট হারানোর পর দলীয় ১২৮ রানে কেন ম্যাকলার রান আউটে সাজঘরে ফেরেন। এরপর মাহমুদউল্লাহ হিকস ও মুস্তাফিজুর রহমান হেনরি শিপলকে ফেরত পাঠালেও স্বাগতিকদের জয় পেতে কষ্ট হয়নি। অষ্টম উইকেটে বেন হরনে ও হ্যাম্পটন ৪৮ রানের জুটি গড়ে দলকে জিতিয়ে মাঠ ছাড়েন।

সাকিবের ৩ উইকেট ও মু্স্তাফিজের ২ উইকেট বাংলাদেশকে লড়াইয়ে রাখলেও শেষ পর্যন্ত প্রস্তুতি ম্যাচে হারের স্বাদ পেয়েছে সফরকারীরা।

আগামী ২৬ ডিসেম্বর বাংলাদেশ ও নিউজিল্যান্ডের প্রথম ওয়ানডে অনুষ্ঠিত হবে। এ সফরে তিনটি ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি এবং দুটি টেস্ট ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ।

ভিডিও নিউজ : এটা কি ক্রিকেট খেলা নাকি হাসির খেলা দেখুন ভিডিওতে

Add Comment

Click here to post a comment