slider অর্থনীতি-ব্যবসা জাতীয়

ব্যাংক খাতের জন্য ভয়াবহ খবর দিলো বিআইবিএম!

নিজস্ব প্রতেবদক: দেশের ব্যাংকগুলোর বিতরণকৃত ঋণ যেভাবে বাড়ছে, ব্যাংকে আমানত সেভাবে বাড়ছে না। এ অবস্থায় সাবধান না হলে ব্যাংকিং খাতে তারল্য সংকট আরো প্রকট হবে। বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ব্যাংক ম্যানেজমেন্টের (বিআইবিএম) এক গবেষণা প্রতিবেদনে একথা বলা হয়েছে।

সম্প্রতি বিআইবিএম আয়োজিত এক কর্মশালায় এ গবেষণা প্রতিবেদনটি উপস্থাপন করা হয়। এতে বলা হয়, ঋণের প্রবৃদ্ধি যে হারে বাড়ছে, তার অনেক কম হারে বাড়ছে আমানত। ২০১৫ সালের জুনে ঋণ প্রবৃদ্ধি ছিল ১২ দশমিক ৭ শতাংশ আর আমানত প্রবৃদ্ধি ১২ দশমিক ৬ শতাংশ। ২০১৭ সালের ডিসেম্বরে ঋণের প্রবৃদ্ধি যখন ১৮ দশমিক ১ শতাংশ, তখন আমানতের প্রবৃদ্ধি ১০ দশমিক ৬ শতাংশ। এ অবস্থা চলতে থাকলে তারল্য সংকট আরো বাড়বে।

ডেপুটি গভর্নর আবু হেনা মোহা. রাজী হাসান এ প্রসঙ্গে বলেন, ব্যাংকের ট্রেজারি ব্যবস্থাপনা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। সরকারি-বেসরকারি সব ব্যাংককে এ বিষয়ে সতর্ক থাকতে হবে। বর্তমানে ডলারের দাম একটু ঊর্ধ্বমুখী। বাংলাদেশ ব্যাংক পুরো বিষয়টি নজরদারি করছে, যাতে এটি আর না বাড়ে।

জানা গেছে, বেসরকারি বাণিজ্যিক ব্যাংকে বর্তমানে অ্যাডভান্স ডিপোজিট (এডি) রেশিও ৮৪ দশমিক ৭ শতাংশ। ট্রেজারি ব্যবস্থাপনা সঠিকভাবে না হলে ২০১৯ সালের মার্চের মধ্যে এডি রেশিও ৮৩ দশমিক ৫ শতাংশে নামিয়ে আনার লক্ষ্য পূরণ হবে না। তাছাড়া সাধ্যের বাইরে ঋণপত্র খুলে বিভিন্ন ব্যাংক পরবর্তী সময়ে বৈদেশিক মুদ্রা সংস্থানের জন্য অন্য ব্যাংক থেকে তহবিল চায়। এর ফলে বাজারে ডলারের ওপর চাপ পড়ে। ডলারের দাম ঊর্ধ্বমুখী হয়। ট্রেজারি ব্যবস্থাপনায় কর্মরত কর্মীদের ব্যাংকের উচ্চ পর্যায়ের কাছে সঠিক তথ্য দিতে হবে। এটি না করলে বাজারে বিশৃঙ্খলা তৈরি হবে।