আন্তর্জাতিক

বিয়ের পর স্বামীর ধর্মকেই মেনে নিতে হবে?

একজন পুরুষ অন্য কোনও ধর্মের মহিলাকে বিয়ে করতে পারে। তারপরও নিজের ধর্মবিশ্বাসে অটুট থাকতে পারে। অন্যদিকে মহিলাদের বিয়ের পর স্বামীর ধর্মকেই নিজের করে নিতে হয়। এটাই যেন অলিখিত নিয়ম। কিন্তু ভারতের দেশের সর্বোচ্চ আদালত জানিয়ে দিল, এরকম কোনও আইন নেই। নেই বাধ্যবাধকতা। বিয়ের পর স্বামীর ধর্মকেই শিরোধার্য করতে হবে না মহিলাদের। তার নিজের ধর্মবিশ্বাস নিয়েই থাকতে পারেন তিনি।

এক বিশেষ মামলার সূত্রে এই রায় ভারতীয় সুপ্রিম কোর্টের। একজন পারসি মহিলা বিয়ে করেছিলেন এক হিন্দু পুরুষকে। এরপরও কি তিনি তার পিতা-মাতার পারলৌকিক ক্রিয়ায় অংশ নিতে পারেন? এ প্রশ্ন গিয়ে পৌঁছায় প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্রর নেতৃত্বাধীন এক বেঞ্চের সামনে। সবদিক খতিয়ে দেখেই এই সিদ্ধান্ত সর্বোচ্চ আদালতের। আদালত জানাচ্ছে, এরকম কোনও আইন নেই। কোথাও বলা নেই যে, বিয়ের পর স্বামীর ধর্মকেই মেনে নিতে হবে।

বরং স্পেশাল ম্যারেজ অ্যাক্ট অনুযায়ী, দু’জন সাবালক নর-নারী বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়েও, তাঁদের নিজেদের ধর্মবিশ্বাসে অনড় থাকতে পারেন। তাতে কোনও বাধা নেই।

ভারতীয় আদালতের এই পর্যবেক্ষণের সারমর্ম এই যে, বিয়ের পরেই যে মহিলাদের ধর্মান্তরিত হতে হবে এরকম কোনও বাধ্যবাধকতা নেই। কোনও মহিলা চাইলে বিয়ের পরও তার নিজের ধর্মেই থাকতে পারেন। অংশ নিতে পারেন সেই ধর্মের বিভিন্ন প্রথায়।