খেলাধুলা

বিশ্বকাপে কোন ম্যাচে লাল আর কোন ম্যাচে সবুজ জার্সি পরে খেলবে বাংলাদেশ!

[better-ads type='banner' banner='1187323' ]

বিশ্বকাপে বাংলাদেশ দলের জার্সি নিয়ে কম আলোচনা হয়নি। প্রথমে তৈরী করা জার্সি পছন্দ না হওয়ায় জনগনের তোপের মুখে পরে বিসিবি। পরবর্তীতে জার্সি কিছুটা পরিবর্তন করে বিসিবি। তবে এইবার বিশ্বকাপে শুধু সবুজ জার্সি পরেই খেলবে না বাংলাদেশ দল, লাল জার্সিতেও দেখা যাবে বাংলাদেশ দলকে আইসিসির নতুন নিয়মের ফলে। এই বিশ্বকাপ থেকে আইসিসির নতুন নিয়ম হোম ও এওয়ে জার্সি পরে খেলার। আইসিসি প্রতিটি ম্যাচে হোম ও এওয়ে দল নির্ধারিত করে দিয়েছে।

এমনটা করা হয়েছে বিশ্বকাপে বিভিন্ন দলের একই রংয়ের জার্সি হওয়ার ফলে। ভারত, ইংল্যান্ড, আফগানিস্তান ও শ্রীলঙ্কার জার্সির রং নীল। বাংলাদেশ, পাকিস্তান ও দক্ষিণ আফ্রিকার জার্সির রং সবুজ। তাই তাদের একে অপরের বিপক্ষের ম্যাচে জার্সির রং যাতে এক না হয় সেজন্য আইসিসি এবার হোম এওয়ে ব্যবস্থা করেছে। হোম ম্যাচে প্রতিটি দল নিজেদের মূল জার্সিটি পরবে। যেই সব দলগুলোর জার্সির রং একই তাদের মধ্যকার খেলায় এওয়ে দল তাদের বিকল্প জার্সি পরবে।

বাংলাদেশ ও আফগানিস্তানের এওয়ে জার্সির রং লাল। ভারতের এওয়ে জার্সির রং কমলা বলে জানা গিয়েছে দ্য গার্ডিয়ানের এক প্রতিবেদনে। ভারত তাদের ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে ম্যাচে তাদের এওয়ে জার্সি পরবে যেহেতু সেই ম্যাচে ইংল্যান্ড হোম টিম।

বাংলাদেশ তাদের লাল জার্সিটি পরবে পাকিস্তান ও দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ম্যাচ গুলোতে যেখানে বাংলাদেশ দলকে এওয়ে দল ধরা হয়েছে। দ্য গার্ডিয়ান নিশ্চিত করেছে পাকিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচে বাংলাদেশ এওয়ে দল ও ধারণা করা হচ্ছে বাংলাদেশ সেইদিন লাল জার্সি পরবে। পাকিস্তানের এওয়ে জার্সির রংয়ের ব্যাপারে এখনো নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

শনিবার বাংলাদেশ দলের ওপেনার তামিম ইকবাল তার টুইটার একাউন্টে লাল জার্সিতে নিজের ছবি আপলোড করেন।

শ্রীলঙ্কা ও দক্ষিণ আফ্রিকার এওয়ে জার্সি হলুদ। যখন দরকার পরবে তখন তারা হলুদ জার্সি পরবে। নিউজিল্যান্ড ( কালো), অস্ট্রেলিয়া ( হলুদ) ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের ( মেরুন) এই ধরনের কোন জার্সিজনিত সমস্যা নেই। তারা এক জার্সিতেই বিশ্বকাপে খেলবে।

জুমবাংলানিউজ/ জিএলজি