slider আন্তর্জাতিক

বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় কংগ্রেসের সভাপতি হচ্ছেন রাহুল গান্ধী

বিশ্বের সবচেয়ে বড় গণতন্ত্রের দেশ ভারতের জাতীয় কংগ্রেসের সভাপতি পদে রাহুল গান্ধীর কোন প্রতিদ্বন্দ্বী নেই। ফলে একদম বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায়ই দলটির পরবর্তী সভাপতি হতে যাচ্ছেন বর্তমান সভাপতি সোনিয়ার গান্ধীর এই ছেলে। ভারতীয় গণমাধ্যমের খবরে জানা যায়, গতকাল সোমবার কংগ্রেস দলের সভাপতি নির্বাচনে মনোনয়নপত্র পেশের শেষ দিন ছিল। কিন্তু শেষ পর্যন্ত রাহুল ছাড়া আর কেউ মনোনয়ন পত্র জমা দেননি বলে দলীয় সূত্র গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছে। খবরে প্রকাশ, রাহুলের পক্ষে মোট ৮৯টি মনোনয়নপত্র জমা পড়েছে। এতে স্বাক্ষর করেছেন কংগ্রেসের শীর্ষ পর্যায় থেকে শুরু করে বিভিন্ন স্তরের ৮৯০ জন নেতা। প্রসঙ্গত সোনিয়া ১৯ বছর ধরে কংগ্রেসের সভাপতি হিসেবে দায়িত্বপালন করছেন। তিনিই দলটির সবচেয়ে বেশি দিন ধরে দায়িত্ব পালন করা সভাপতি।
বর্তমানে ৪৭ বছর বয়সী রাহুল কংগ্রেসের সহসভাপতি। দীর্ঘদিন ধরে দলপ্রধান হওয়ার অপেক্ষায় থাকা রাহুল মা সোনিয়া গান্ধীর মতোই বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়ে দলের হাল ধরবেন বলে আগে থেকেই ধারণা করছিলেন পর্যবেক্ষকরা। এদিকে দলটির সভাপতি পদে রাহুলের নাম প্রস্তাবকারীদের মধ্যে তার মা কংগ্রেসের বর্তমান সভাপতি সোনিয়া গান্ধী ও ভারতের সাবেক প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিংও রয়েছেন বলে জানিয়েছে দেশটির শীর্ষস্থানীয় দৈনিক পত্রিকা দ্য হিন্দু। কোনো প্রতিদ্বন্দ্বী না থাকায় এখন রাহুলের সভাপতি হওয়ার জন্য বাকি রইল শুধু দলের আনুষ্ঠানিক ঘোষণা।
আনন্দবাজার পত্রিকা জানিয়েছে, একথা স্বীকার করলেও সোমবার আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেয়নি কংগ্রেস। আনুষ্ঠানিক ঘোষণার জন্য ১১ ডিসেম্বর মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিন পর্যন্ত অপেক্ষা করবে দলটি। এদিকে রাহুলের সভাপতি হওয়াকে ঘিরে যে কৌতুহল বিরাজ করবে তাকে ব্যবহার করে গুজরাট বিধানসভা নির্বাচনে ফায়দা নেওয়ার উদ্দেশ্যেই কংগ্রেস সে পর্যন্ত অপেক্ষা করার কৌশল নিয়েছে বলে আনন্দবাজারের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।
গুজরাট বিধানসভা নির্বাচনের প্রথম ধাপের ভোটাভুটি ৯ ডিসেম্বর শুরু হওয়ার কথা রয়েছে। দেশটির গণমাধ্যমে গুজরাট নির্বাচনের জরিপের বরাত দিয়ে খবরে বলা হয়েছে, ভোটের সময় যত ঘনিয়ে আসছে, রাহুলকে ঘিরে আগ্রহ ততই বাড়ছে, নিজ রাজ্যে রাহুল উত্তাপ টের পাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।