অর্থনীতি-ব্যবসা জাতীয়

বাসা ভাড়ার টাকায় কিস্তি দিয়ে নিজের ফ্ল্যাট!

অর্থনীতি ডেস্ক : রাজধানী শহরে নিজের একটু মাথাগোঁজার ঠাঁই পেতে কে-না চায়? কিন্তু ফ্ল্যাটের দাম যে মধ্যবিত্তের নাগালের বাইরে! তাই তো ফ্ল্যাট কেনার স্বপ্নটা এতদিন অনেকের পক্ষেই পূরণ করা সম্ভব হচ্ছিলো না। ইদানিং মধ্যবিত্তের ক্রয়ক্ষমতার মধ্যে ছোট আকারের ফ্ল্যাট তৈরি করছে নামিদামি বেশ কিছু আবাসন কোম্পানি। এসব ফ্ল্যাট কেনার পরপর উঠে গিয়ে ভাড়ার টাকার সমান কিস্তি পরিশোধেরও সুযোগ রয়েছে।

বর্তমানে ফ্ল্যাটে থাকতে ১৫ থেকে ২০ হাজার টাকা ভাড়া দিতে হয়। আর এই টাকার সমপরিমাণ কিস্তিতে ফ্ল্যাট কেনা সম্ভব হচ্ছে। ব্যাংকগুলো এখন গ্রাহকদের দীর্ঘমেয়াদে স্বল্প সুদে এমন ঋণ দিচ্ছে। তাছাড়া চুক্তি অনুযায়ী ফ্ল্যাট হস্তান্তরে দেরি হলে ভাড়া পরিশোধ করার প্রতিশ্রুতি দিচ্ছে আবাসন কোম্পানিগুলো।

এক ছাদের নিচে এসব অফার নিয়ে রাজধানীর সোনারগাঁও হোটেলে গৃহায়ন অর্থায়ন মেলায় অংশ নিয়েছে আবাসন ও আর্থিক খাতের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান। এসব সুবিধা নিতে মেলায় ভিড় করছেন ক্রেতারা।

স্বপ্নের আবাসনে ঠিকানা খুঁজতে গৃহায়ন অর্থায়ন মেলায় মিরপুর থেকে এসেছেন আমেনা আঞ্জুমান। তিনি বলেন, মেলায় এক ছাদের নিচে ঘুরে বিভিন্ন কোম্পানির ফ্ল্যাটের অফার দেখেছেন। এখন তিনি সরজমিনে ফ্ল্যাট দেখে কেনার সিদ্ধান্ত নিতে চান। শুধু ফ্ল্যাট নয়, মেলায় প্লট কিনতে এসেছেন অনেকে।

সোনালী ব্যাংকের কর্মকর্তা ইয়াসিন আরাফাত মেলার প্লটের স্টল ঘুরে দেখেছেন। পছন্দের প্লটও খুঁজে পেয়েছেন তিনি। সাভারের বিরুলিয়ায় তিন কাঠার প্লট ২২ লাখ টাকায় কিনে নিজের বাড়ি বানানোর পরিকল্পনা করছেন। এ প্লট কিস্তিতে কেনার সুযোগ রয়েছে।

মেলার স্টল ঘুরে দেখা যায়, রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় ভাড়ার দামে কিস্তিতে ফ্ল্যাট বিক্রি করছে আমিন মোহাম্মদ ফাউন্ডেশন, স্ট্রাকচারাল ইঞ্জিনিয়ারিং, ইম্পেরিয়াল ও কৃষিবিদ গ্রুপসহ বিভিন্ন আবাসন কোম্পানি। এসব কোম্পানি তুলনামূলক কম দামে ছোট ফ্ল্যাট নিয়ে মেলায় এসেছে, যাতে এই তৈরি ফ্ল্যাট কিনে সঙ্গে সঙ্গে উঠে ভাড়ার টাকায় ঋণের কিস্তি পরিশোধ করতে পারেন গ্রাহকরা।

একই সঙ্গে ঋণ সুবিধা দিতে মেলার আয়োজক প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশ হাউজ বিল্ডিং ফাইন্যান্স করপোরেশন (বিএইচবিএফসি), সোনালী ব্যাংক, রূপালী ব্যাংক, আইএফআইসি, সাউথ ইস্ট ও স্টান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংকসহ অনেকে অংশ নিয়েছে। এসব প্রতিষ্ঠান সাড়ে ৮ শতাংশ থেকে ১০ শতাংশ সুদে ঋণ দিচ্ছে।

রিহ্যাবের প্রথম সহসভাপতি লিয়াকত আলী ভূঁইয়া বলেন, মেলায় ক্রেতা ও দর্শনার্থী কম ভালো। তবে মেলার শেষ দিনে আরও ভালো সাড়া মিলবে। তিনি বলেন, দীর্ঘদিনের দাবি পূরণ করেছে বিএইচবিএফসি। এ আর্থিক প্রতিষ্ঠানটি স্বল্পসুদে দীর্ঘমেয়াদি ঋণ সুবিধা দেওয়ায় ক্রেতাদের আগ্রহ বাড়ছে।

বেসরকারি ব্যাংকগুলো কম সুদে ঋণ সুবিধা দিচ্ছে। এখন সরকারি ব্যাংকগুলোর এগিয়ে আসা উচিত। তিনি মনে করেন, স্বল্প ও মধ্য আয়ের লোকের পকেটের টাকায় ফ্ল্যাট কেনা সম্ভব নয়। তাদের ঋণ নিয়ে ফ্ল্যাট কিনতে হচ্ছে। এ ক্ষেত্রে ঋণ পেলে ভাড়ার টাকায় ফ্ল্যাট কিনতে পারছেন গ্রাহকরা।

রিহ্যাবের পরিচালক ও মেলা আয়োজক কমিটির চেয়ারম্যান মো. শাকিল কামাল চৌধুরী বলেন, এ মেলায় আর্থিক প্রতিষ্ঠান ও আবাসন কোম্পানি একসঙ্গে তাদের অফার নিয়ে এসেছে। এতে ভাড়ার টাকায় কিস্তিতে ফ্ল্যাট কেনার সুযোগ তৈরি হয়েছে। উদাহরণ হিসেবে তিনি বলেন, রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় এখন ৪০ থেকে ৫০ লাখ টাকায় ফ্ল্যাট মিলছে।

বিএইচবিএফসি নতুন আঙ্গিকে পাঁচটি ঋণ নগরবন্ধু, প্রবাসবন্ধু, পলল্গীমা, আবাসন মেরামত ঋণ ও আবাসন উন্নয়ন ঋণ চালু করেছে। মেলায় আসা দর্শনার্থীরা বিএইচবিএফসি’র স্টলে রেজিস্ট্রেন ফরম পূরণ করলে পরে বিএইচবিএফসি’র সব অফিসে ঋণ নিতে আবেদন ও পরিদর্শন ফি ৫০ শতাংশ ছাড় পাবেন।

বিএইচবিএফসি’র আঞ্চলিক ব্যবস্থাপক (মিরপুর) আতিকুল ইসলাম বলেন, প্রথমবারের মতো গৃহায়ন অর্থায়ন মেলায় অনেক সাড়া পড়েছে। মেলা উপলক্ষে সারাদেশের গ্রাহকরা প্রত্যাশার চেয়ে বেশি ঋণ নিচ্ছেন। গত দু’দিনে তার অঞ্চলে প্রায় ১০ কোটি টাকা ঋণ নিয়েছে। মেলা চলাকালীন ছুটির দিনে সব শাখা খোলা রয়েছে।

স্ট্রাকচারাল ইঞ্জিনিয়ারিং লিমিটেডের উপব্যবস্থাপক আবুল হোসেন বলেন, এক হাজার থেকে এক হাজার ২০০ বর্গফুটের মিরপুরে তৈরি ফ্ল্যাট রয়েছে। এ ফ্ল্যাট প্রতি বর্গফুট ৫ হাজার ২০০ থেকে ৫ হাজার ৬০০ টাকায় বিক্রি করছেন। এসব ফ্ল্যাট কেনার ক্ষেত্রে বুকিংয়ে ৫ শতাংশ টাকা এবং প্রথম কিস্তিতে ২৫ শতাংশ টাকা দিতে হবে।

এর পর বাকি টাকা দীর্ঘমেয়াদে কিস্তিতে পরিশোধের সুযোগ পাবেন গ্রাহকরা। তৈরি এসব ফ্ল্যাট চলতি অক্টোবরের মধ্যে হস্তান্তর করা হবে। চুক্তি করার পর হস্তান্তর না করতে পারলে ক্রেতার বাড়ি ভাড়ার টাকা পরিশোধ করবে তাদের কোম্পানি। মেলায় বসুন্ধরা আবাসিক এলাকার ১৮টি প্রকল্পের ফ্ল্যাটের অফার নিয়ে এসেছে জেমস গ্রুপ।

জাপানি প্রতিষ্ঠান ক্রিড এশিয়া ও জেমস যৌথভাবে এ ফ্ল্যাট তৈরি করছে। এ গ্রুপের জ্যেষ্ঠ ব্যবস্থাপক (বিক্রয় ও বিপণন) মো. আবদুল আমিন বলেন, তাদের এসব ফ্ল্যাট প্রতি বর্গফুট সাড়ে ৬ হাজার থেকে সাড়ে ৮ হাজার টাকার মধ্যে বিক্রি করছেন। এর মধ্যে ডুপ্লেক্স ফ্ল্যাট সাড়ে আট হাজার টাকায় পাবেন ক্রেতারা। তিনি বলেন, মেলা থেকে বুকিং দিলে নগদ ছাড় দেওয়া হচ্ছে। এ ছাড়ের সুবিধা সাত দিন পর্যন্ত থাকবে।

সূত্র : উদ্যোক্তার খোঁজে ডটকম

জুমবাংলানিউজ/এইচএমজেড