slider আন্তর্জাতিক

বহুল প্রতীক্ষিত ঐতিহাসিক বৈঠকে যা বললেন ট্রাম্প ও কিম

সিঙ্গাপুরের সেন্তোসা দ্বীপের ক্যাপেলায় হোটেলে বৈঠকে বসেছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও উত্তর কোরিয়ার প্রধান নেতা কিম জং উন। দেশটির স্থানীয় সময় মঙ্গলবার সকাল ৯টায় এই বৈঠক শুরু হয়।

উত্তর কোরিয়ার নেতা ও কোনো মার্কিন প্রেসিডেন্টর মধ্যে এটি প্রথম বৈঠক। এ বৈঠকের মূল লক্ষ্য- ওয়াশিংটন ও পিয়ংইয়ংয়ের মধ্যে সামরিক উত্তেজনা কমিয়ে আনা ও উত্তর কোরিয়ার পারমাণবিক অস্ত্র কর্মসূচির একটা সম্ভাব্য সমাপ্তি নিয়ে আলোচনা।

দুই নেতার একান্ত বৈঠক শেষে ইতিবাচক অবস্থানে রয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। এখন দুই দেশের শীর্ষ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের মধ্যে বৈঠক চলছে। পারমাণবিক অস্ত্র থেকে শুরু করে দুই দেশের মধ্যে সম্পর্ক স্বাভাবিক করার মতো গুরুত্বপূর্ণ বিষয় নিয়ে কথা বলছেন ট্রাম্প ও কিম।

এ বৈঠকের বিষয়ে সংক্ষিপ্ত সংবাদ সম্মেলনে দুই নেতা কথা বলেছেন। এ সময় ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেন, আমরা নিশ্চিত যে, অত্যন্ত গঠনমূলক ও খুবই সফল একটি আলোচনা সম্পন্ন করতে পারবো এবং আমাদের মধ্যে চমৎকার সুসম্পর্ক তৈরি হবে। এটি আমার জন্য সম্মানের।

আর কিম জং উন বলেন, এখানে আসা আমার জন্য সহজ ছিল না। আমাদের অতীতের বিশ্বাস ও ধ্যানধারণা এগিয়ে যাওয়ার পথে বাধা হিসেবে কাজ করেছে। কিন্তু সেসব প্রতিবন্ধকতা কাটিয়েই আমরা আজ এ পর্যন্ত এসেছি।

দ্বিতীয় পর্যায়ের কর্মকর্তাদের বৈঠকে কিমের সঙ্গে তার শীর্ষ পরামর্শকেরা উপস্থিত আছেন। রয়েছেন পিয়ংইয়ংয়ের শীর্ষ কূটনীতিক কিম ওং কোল, উত্তর কোরিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী রি ওং হো, কোরিয়ার ওয়ার্কার্স পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির ভাইস চেয়ারম্যান রি সু ওং।

আর ট্রাম্পের সঙ্গে রয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও, নিরাপত্তা উপদেষ্টা জন বোল্টন, হোয়াইট হাউসের চিফ অব স্টাফ জন কেলি।