জাতীয় পুঁজিবাজার

বস্ত্রখাতের দাপটে গতি ঘুরেছে বাজারের

পুঁজিবাজার ডেস্ক : দেশের পুঁজিবাজারে বস্ত্রখাতের শেয়ারে দাপট ফিরেছে। আজকের বাজার বিশ্লেষণে দেখো গেছে, সবচেয়ে বেশি লেনদেন হয়েছে বস্ত্র খাতে। টানা পাঁচ কার্যদিবসে প্রায় ৯৫ পয়েন্ট সূচক পতনের পর গতকাল ঊর্ধ্বমুখী হয়েছে সূচকের গতিও। আজ বস্ত্রখাতে ১২৭ কোটি টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে যা মোট লেনদেনের এক চতুর্থাংশের বেশি।

আজকের লেনদেন শেষে দেখা গেছে, বস্ত্র খাতে ৬৩ শতাংশ শেয়ারদর বেড়েছে। লেনদেন বেড়েছে প্রায় ৪০ কোটি টাকা। বস্ত্র খাতের এমএল ডায়িং, আমান কটন ফাইব্রাস, সায়হাম কটন, আলহাজ টেক্সটাইল, সায়হাম টেক্সটাইল, স্টাইল ক্রাফট ও শেফার্ড ইন্ডাস্ট্রির দরবৃদ্ধির শীর্ষ দশে উঠে আসে। এসব শেয়ারের দর প্রায় সাত থেকে ১০ শতাংশ পর্যন্ত বেড়েছে। এর মধ্যে সায়হাম কটনের সাড়ে ১৯ কোটি, ভিএফএস থ্রেডের ১৮ কোটি, শাশা ডেনিমের সাড়ে ১০ কোটি টাকার শেয়ার লেনদেন হয়।

এছাড়া প্রকৌশল ও ওষুধ ও রসায়ন খাতে আজ ১২ শতাংশ করে লেনদেন হয়। প্রকৌশল খাতে ৭২ শতাংশ শেয়ারদর ইতিবাচক ছিল। বিবিএস কেবল্সের সাড়ে ১৪ কোটি টাকা লেনদেন হয়। দর বেড়েছে তিন টাকা ৭০ পয়সা। ওষুধ ও রসায়ন খাতে ৭৪ শতাংশ শেয়ারদর বেড়েছে। সাড়ে সাত শতাংশ বেড়ে লিবরা ইনফিউশন দরবৃদ্ধির শীর্ষ দশে উঠে আসে।

গতকাল জ্বালানি ও বিদ্যুৎ খাতে ২০ শতাংশ লেনদেন হলেও গতকাল তা নেমে আসে মাত্র ৯ শতাংশে। এর বড় কারণ হতে পারে ডিএসইতে খুলনা পাওয়ারের লেনদেন স্থগিত করা। কোম্পানিটির করপোরেট উদ্যোক্তা সামিট করপোরেশন কেপিসিএলের বড় অঙ্কের শেয়ার বিক্রির ঘোষণা দেওয়ায় এর লেনদেন স্থগিত করে ডিএসই। তবে সিএসইতে লেনদেনের শীর্ষে ছিল কোম্পানিটি। আর কোনো খাতে উল্লেখযোগ্য লেনদেন না হলেও দর বেড়েছে সবগুলো খাতেই। কাগজ ও মুদ্রণ এবং পাট খাত শতভাগ ইতিবাচক অবস্থানে ছিল

জুমবাংলানিউজ/পিএম