জাতীয় স্লাইডার

বছরে মোট জনসংখ্যার সঙ্গে নতুন মানুষ বৃদ্ধি পাচ্ছে ২০-২৫ লাখ

দেশের মোট জনসংখ্যা সার্বক্ষণিক পরিবর্তনশীল। বছর শেষে মোট জনসংখ্যার সঙ্গে নতুন মানুষ যুক্ত হচ্ছে ২০ থেকে ২৫ লাখ । এটা একটি জেলার জনসংখ্যার সমান। তবে বাংলাদেশে বর্তমানে জনসংখ্যা বৃদ্ধির হার সহনীয় মাত্রায় রয়েছে।

বুধবার (১১ জুলাই) বিশ্ব জনসংখ্যা দিবসে বাংলাদেশ বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে ২৯তম এ দিবসটি পালন উপলক্ষে এসব তথ্য জানিয়েছে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়।

২০১৮ সালে দিবসটির প্রতিপাদ্য ‘Family Planning is a Human Right’ বাংলায়- ‘পরিকল্পিত পরিবার সুরক্ষিত মানবাধিকার’-কে সামনে রেখে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ প্রতিমন্ত্রী জাহিদ মালেক জানান, বাংলাদেশে নারী প্রতি গড় সন্তান জন্মগ্রহণের হার ৬.৩ থেকে কমে ২.১-এ দাঁড়িয়েছে। বিশ্বে এই গড় হার ২.৫। এ কর্মকাণ্ডের সফলতা থাকার পরও কম আয়তনের এই দেশে জনসংখ্যার ঘনত্ব বেশি। যে কারণে এ জনসংখ্যা উন্নয়ন কার্যক্রমে বাধা হয়ে দাঁড়াচ্ছে।

বাংলাদেশে বর্তমানে ৬২ শতাংশ দম্পতি আধুনিক পরিবার পরিকল্পনা পদ্ধতি ব্যবহার করছে যা তাদের প্রজনন অধিকারকে সুসংহত করছে। কিন্তু এখনও ৫৯ শতাংশ কিশোরীর বিয়ে হয়ে যাচ্ছে ১৮ বছর পূর্ণ হবার আগেই। আবার তাদের ৩১ শতাংশ প্রথম বা দ্বিতীয় বারের মতো গর্ভবতী হন ৪৭ শতাংশ মাত্র পরিবার পরিকল্পনা পদ্ধতি ব্যবহার করে।

তবে উন্নয়নশীল দেশ হবার পরও আমাদের ২০ শতাংশ জনগণ দারিদ্র্যসীমার নিচে থাকার কারণে অপুষ্টি, অশিক্ষা ও পরিবার পরিকল্পনার লক্ষ্যমাত্রা পূরণ হচ্ছে না। যে প্রভাব পড়ছে জনসংখ্যা বৃদ্ধি এবং মা ও শিশু মৃত্যুর হার বৃদ্ধির উপর।

এ পরিস্থিতিতেও অপুষ্টির হার ২০ শতাংশে নেমে এসেছে এবং শিক্ষার হার ৬০ শতাংশে উন্নীত হয়েছে।

জুমবাংলানিউজ/এআর