বিনোদন

বছরের ব্যবসাসফল ও আলোচিত ১০ ছবি

বছরের ব্যবসাসফল ও আলোচিত ১০ ছবি

২০১৬ যাই যাই করছে। তাই বছরের শেষ বেলায় এসে হিসাবের খাতা খুলে বসা। তবে এ হিসাব অর্থকড়ি নিয়ে নয়। এ হিসাব আলোচনা-সমালোচনার। বাংলা চলচ্চিত্রের জন্য এ বছর ছিল বেশ সম্ভাবনার। যেমন বাণিজ্যিক ছবিগুলো ব্যবসা করেছে হলে, তেমনই ভিন্নধারার ছবিগুলো দেশ ও দেশের বাইরে কুড়িয়েছে প্রশংসা। তাই বছরের শেষে এসে আমাদের ধারাবাহিক আয়োজনে আজ তেমনই কিছু আলোচিত ছবির কথা তুলে ধরা হলো।

শিকারি

ঢাকা-কলকাতার যৌথ প্রযোজিত ‘শিকারই’ ছিলো বছরের সবচেয়ে ব্যবসাসফল চলচ্চিত্র। জয়দেব পরিচালিত ছবিটিতে অভিনয় করেছেন শাকিব খান ও কলকাতার শ্রাবন্তী। শাকিব খানকে নতুন লুকে দেখা গেছে এই চলচ্চিত্রে।

আয়নাবাজি

অমিতাভ রেজা চৌধুরী পরিচালিত এবং চঞ্চল চৌধুরী, নাবিলা, পার্থ বড়ুয়া ও গাওসুল আলম শাওন অভিনীত ‘আয়নাবাজি’ চলচ্চিত্রটি নিয়ে দর্শকদের মধ্যে ব্যাপক আগ্রহ তৈরি হয়েছিলো। অনেকদিন পর দেশে কোন একটি চলচ্চিত্র নিয়ে এতোটা মাতামাতি করেছেন দর্শকরা যা এখনো অব্যাহত রয়েছে। ব্যবসায়িক সফলতার পাশাপাশি ‘আয়নাবাজি’ নিয়ে বিস্তর আলোচনা হয়েছে। এছাড়া, কান চলচ্চিত্র উৎসবে ‘লে মার্শে দ্যু ফিল্ম’ শাখায় চলচ্চিত্রটি প্রদর্শিত হয়। ‘আয়নাবাজি’ যুক্তরাজ্য ও যুক্তরাজ্যেও প্রদর্শিত হয়েছে।

বাদশা

ঢাকা-কলকাতার যৌথ প্রযোজিত আরেকটি ছবি ‘বাদশা’। বাবা যাদব পরিচালিত এই চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন কলকাতার অভিনেতা জিৎ ও নুসরাত ফারিয়া। ‘বাদশা’ জিৎ-এর কারণে দর্শকের মাঝে বাড়তি আগ্রহ দেখা গিয়েছিলো। ছবিটি বাংলাদেশে ব্যবসাসফল হলেও কলকাতায় খুব একটা সফলতা পায়নি।

অজ্ঞাতনামা

তৌকির আহমেদ পরিচালিত ‘অজ্ঞাতনামা’ চলচ্চিত্রটি দেশে-বিদেশে প্রশংসিত হয়েছে। তবে ছবিটি তেমন একটা ব্যবসা করতে পারেনি। ইতালির গালফ অফ নেপলস ইন্ডিপেন্ডেন্ট ফিল্ম ফেস্টিভালে ‘অজ্ঞাতনামা’ অর্জন করেছে জুরি মেনশন অ্যাওয়ার্ড। ৬৯তম কান উৎসবের ‘লে মার্শে দ্যু ফিল্ম’ শাখায় প্রদর্শিত হয় ছবিটি। মানব পাচারকে ঘিরে চলচ্চিত্রটির কাহিনী গড়ে উঠেছে। অভিনয় করেছেন মোশাররফ করিম, শহীদুজ্জামান সেলিম, নিপুণ, আবুল হায়াত, ফজলুর রহমান বাবু প্রমুখ।

রক্ত

ঢাকা-কলকাতার যৌথ প্রযোজনায় তৈরি আরেকটি চলচ্চিত্র ‘রক্ত’। পরীমণি বেশ আলোচিত হয়েছেন এই সিনেমায়। তাঁর বিপরীতে অভিনয় করেছেন নবাগত রোশান। ব্যবসার দিক দিয়ে মোটামুটি আয় করলেও প্রচারণার দিক থেকে এগিয়ে ছিল এটি। ছবিটিকে কেন্দ্র করে মিডিয়ার নজর ছিল পরীমণির দিকে। ‘রক্ত’ চলচ্চিত্রের ‘ডানাকাটা পরী’ গানটি ইউটিউবে প্রকাশিত হওয়ার পর মাত্র কয়েক ঘণ্টায় এক লাখ ভিউ পেরিয়ে যায়। এখন পর্যন্ত ৬০ লাখের বেশি বার দেখা হয়েছে গানটি।

শঙ্খচিল

এছাড়াও যে চলচ্চিত্রগুলো আলোচিত হয়েছিলো বিভিন্ন কারণে সেগুলোর মধ্যে রয়েছে গৌতম ঘোষ পরিচালিত ‘শঙ্খচিল’। কলকাতার প্রসেনজিৎ ও বাংলাদেশের কুসুম শিকদার অভিনীত ছবিটি প্রশংসিত হয়েছে বেশ। এই চলচ্চিত্রটি মুক্তির আগেই ভারতে জাতীয় পুরস্কার পায়।

মুহাম্মদ মোস্তফা কামাল রাজ পরিচালিত ‘সম্রাট’ চলচ্চিত্রটি প্রচারণায় এগিয়ে ছিলো অনেকখানি। শাকিব খান, অপু বিশ্বাস, ইন্দ্রনীল, মিশা সওদাগর অভিনীত ছবিটি মোটামুটি ব্যবসা করেছে।
এদিকে, মেহের আফরোজ শাওন পরিচালিত প্রথম চলচ্চিত্র ‘কৃষ্ণপক্ষ’ দর্শকদের মধ্যে আলোচনায় ছিলো কিন্তু ব্যবসায় সফলতা পায়নি।

সাফিউদ্দিন সাফি পরিচালিত ‘পূর্ণদৈর্ঘ্য প্রেমকাহিনী-২’ চলচ্চিত্রটি আগেরটির চেয়ে কম ব্যবসা সফল হয়েছে। শাকিব খান, জয়া আহসান, ইমন, মৌসুমী হামিদ অভিনীত ছবিটি মোটামুটি আলোচনায় ছিলো।

তিশা এই বছর দুটি চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন একটা অনন্য মামুন পরিচালিত ‘অস্তিত্ব’। তিশার বিপরীতে ছিলেন আরেফিন শুভ। অন্যটি ‘মেন্টাল’, তিশার বিপরীতে ছিলেন শাকিব খান। দুটি চলচ্চিত্রই ব্যবসায়িকভাবে লাভবান হতে পারেনি। তবে চলচ্চিত্র দুটি নিয়ে বেশ আলোচনা ছিলো মিডিয়ায়।

এ বছর বাংলাদেশের চলচ্চিত্রে একটি গুরুত্বপূর্ণ ঘটনা ঘটেছে চিত্রনায়িকা অপু বিশ্বাসকে নিয়ে। ইন্ডাস্ট্রি থেকে তিনি নিজেকে সরিয়ে নেয়েছেন বলে খবর বের হয়। প্রায় ৮ মাস ধরে চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্ট কারও সঙ্গেই যোগাযোগ নেই এই নায়িকার।

এছাড়া, শাকিব খান ও নতুন নায়িকা বুবলি অভিনীত ‘বসগিরি’ চলচ্চিত্রটি মোটামুটি ব্যবসাসফল। ডিসেম্বরে অনন্য মামুন পরিচালিত ‘আমি তোমার হতে চাই’ ছবি মুক্তি পেয়ে কদিনেই মোটামুটি ব্যবসা করেছে। বিদ্যা সিনহা মিম ও বাপ্পী অভিনীত সিনেমাটি কিছুটা আশা জাগিয়েছে।

তবে ‘আয়নাবাজি’ পুরনো দর্শকদের পাশাপাশি নতুন কিছু দর্শক হলে এনেছে যা চলচ্চিত্র শিল্পের জন্য মঙ্গলজনক। এই ধারা অব্যাহত থাকুক প্রত্যাশা চলচ্চিত্র প্রেমী মানুষদের।

ভিডিওঃ ভয়ংকর কিছু বিমান দুর্ঘটনা! হার্ট দুর্বল মানুষেরা দেখবেন না (ভিডিও)

Add Comment

Click here to post a comment