লাইফস্টাইল

ফ্যাশনে নারীদের লাইফস্টাইল

B9NQUQ3

বর্তমানে সারা বিশ্বে নারীদের সফলতার স্বীকৃতি দেওয়া হচ্ছে। আর তাই নারীদের প্রতি শ্রদ্ধা ও সম্মান জানাতে প্রত্যেক বছরে ৮ মার্চ দিনটিকে নারী দিবস উদযাপন করা হয়।

এখন সারা বিশ্বে যে কোন কাজেই নারীকেই পাওয়া যায়। তবে কিছু কিছু কাজ ছাড়া প্রায় সব কাজ করতে স্বাচ্ছন্দ্যেবোধ করে নারীরা। তেমনি একটা ক্ষেত্র হলো ফ্যাশন ও লাইফস্টাইল। নারীরা এ বিষয়ে খুব বেশিই সচেতন বলা যায়। পুরুষদের ফ্যাশন কেমন হবে তা নারীরাই নির্ধারণ করতে পারে। তাই বলা যায় দেশের ফ্যাশনেবল জায়গাটা যেন নারীদেরই দখলে।

আমাদের দেশে প্রায় সব ফ্যাশনেবল দোকানেই নারীদের থাকতে দেখা যায়। কোন পোষাকটা কাকে মানাবে, কোন সাজটা কাকে দেখতে ভালো রাখবে সব নারীরাই ভালো নির্দেশ দিয়ে থাকেন। নারীর এই সৌন্দর্যবোধ দক্ষতা থাকার কারণে অনেক পুরুষই সাজগোজের বিষয়ে নারীদের ওপরই আস্থা রাখেন।

তবে ফ্যাশন ও লাইফস্টাইল নিয়ে কাজটা যতটা সহজ মনে হয় ততটা সহজ নয়। এখানে সম্পূর্ণ রুচিবোধের ব্যাপার। রুচিবোধের মাধ্যমেই নারীরা দেখিয়ে দেয় তারা কতটা সাফল্য। সময়ের সঙ্গে সঙ্গে নারীরা শাড়ির ডিজাইন এবং বিভিন্ন পোশাকের বৈচিত্র এনেছে। নারীরাই এই ডিজাইনের মূল বাহক।

ফ্যাশনের পাশাপাশি তারা সাজের দিকটাও খুব মনোযোগী। নারীরা যেমন ফ্যাশনে দক্ষ তেমনি সাজ-গোজেও পটু। দেশের প্রায় সব পার্লারই নারীদের আয়ত্তে। কিভাবে ত্বকের যত্ন নিতে হবে, কোন উপায়ে ত্বকটা সতেজ থাকবে, কোনটাতে ক্ষতি হবে এসব প্রশ্ন পার্লারেই সমাধান দিয়ে থাকেন।