আন্তর্জাতিক

ফের শাটডাউনের মুখে যুক্তরাষ্ট্র

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : বাজেট বিল নিয়ে ক্ষমতাসীন রিপাবলিকান পার্টি এবং ডেমোক্রেটিক পার্টির মধ্যে আলোচনায় অচলাবস্থা তৈরি হওয়ায় ফের শাটডাউন তথা সরকারি সেবা বন্ধের ঝুঁকিতে পড়েছে যুক্তরাষ্ট্র।

বিবিসি ও আলজাজিরা জানায়, সম্ভাব্য শাটডাউন এড়াতে দু’পক্ষই স্থানীয় সময় সোমবার নাগাদ একটি সমঝোতায় পৌঁছানোর চেষ্টা করছিলেন। সমঝোতা হলে বিলটি পাসের জন্য শুক্রবার কংগ্রেসে উত্থাপনের কথা ছিল।

শুক্রবারই শাটডাউন নিয়ে গত মাসের সমঝোতার সময় শেষ হতে যাচ্ছে। এর আগে যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসের দীর্ঘতম ৩৫ দিনের শাটডাউন অবসানে ফেব্রুয়ারির ১৫ তারিখ পর্যন্ত তিন সপ্তাহের অন্তর্বর্তী ব্যয় বরাদ্দ বিলে সই করেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

সংলাপে অচলাবস্থার মূলে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র-মেক্সিকো সীমান্তে দেয়াল নির্মাণে ট্রাম্পের দাবি করা ৫.৭ বিলিয়ন ডলার বাজেট বরাদ্দ। নতুন করে সংলাপে বসার দিনক্ষণ এখনো ঠিক হয়নি।

সমঝোতা নিয়ে দু’পক্ষই অনিশ্চয়তায় রয়েছে। তবে ডেমোক্র্যাট আলোচক জন টেস্টার বলেন, নতুন করে শাটডাউন এড়াতে যথাসময়ে সমঝোতায় পৌঁছানোর বিষয়ে তিনি আশাবাদী।

ফক্স নিউজকে রোববার তিনি বলেন, “এটা হলো দরকষাকষি। আর দরকষাকষি সবসময় খুব কমই মসৃণভাবে এগোয়।”

গত ২৫ জানুয়ারি প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প বাজেট নিয়ে সমঝোতায় পৌঁছতে কংগ্রেসকে সুযোগ করে দেওয়ার জন্য তিন সপ্তাহের ব্যয় বরাদ্দ বিলে সম্মতি দিয়েছিলেন। যদিও তিনি পরে বলেছেন, “এটা সময়ের অপচয় ছাড়া কিছুই নয়।”

মেক্সিকো সীমান্তে দেয়াল নির্মাণের জন্য ৫.৭ বিলিয়ন ডলার বাজেট অনুমোদনে ব্যর্থ হয়ে গত ২১ ডিসেম্বর সরকারি ব্যয় বরাদ্দ বিলে সই করতে অস্বীকৃতি জানান প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। এতে বন্ধ হয়ে যায় অধিকাংশ সরকারি কার্যক্রম।

দেশটির ১৫টি সরকারি বিভাগের নয়টিই বন্ধ থাকে ৩৫ দিন। জাতীয় নিরাপত্তা বিষয়ক মন্ত্রণালয়, কৃষি মন্ত্রণালয়, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, পরিবহন ও বিচার বিভাগ সাময়িকভাবে বন্ধ হয় যায়। নাগরিকরা এসব মন্ত্রণালয়ের অধীনে কোনো সেবা গ্রহণ করতে পারেননি। প্রায় ৮ লাখ আমেরিকানকে পারিশ্রমিক ছাড়াই কাজ করে যেতে হয়।

জুমবাংলানিউজ/এএসএমওআই