বিনোদন

কলকাতা থেকে যে সুখবর পেলেন ফেরদৌস

[better-ads type='banner' banner='1187323' ]

বিনোদন ডেস্ক : ভারতের নির্বাচনের ডামাডোলে হয়তো চিত্রনায়ক ফেরদৌস বিতর্ক চাপা পড়ে গেছে। কিন্তু সমাধান আসেনি। বাংলাদেশের নাগরিক হয়েও ভারতে নির্বাচনি প্রচারণায় নেওয়ার খেসারত দিতে হচ্ছে এ নায়ককে। বাতিল হয়েছে তার ভারতীয় ভিসা। ফলে এখন আটকে আছে কলকাতার ‘দত্তা’ ছবির কাজ। তবে ফেরদৌসের জন্য এর মধ্যে কিছুটা সুবাতাস বইছে। কারণ ছবির পরিচালক নির্মল চক্রবর্তী জানালেন, আপাতত ফেরদৌসের পরিবর্তে অন্য কাউকে নেওয়ার ইচ্ছে নাই তাদের।

আশা করা হচ্ছে জুনের শেষ দিকে ছবিটির কাজ আবারও শুরু করতে পারবেন তারা। টাইমস অব ইন্ডিয়াকে দেওয়া এক বক্তব্যে নির্মল চক্রবর্তী বলেন, ‌‘আপাতত ফেরদৌসের পরিবর্তে কাউকে ভাবছি না। আমরা জুন পর্যন্ত তার জন্য অপেক্ষা করব। যদি তিনি তখন না ফিরতে পারেন, তাহলে হয়তো কোনও সিদ্ধান্ত নিতে হবে।’

গত ১৪ এপ্রিল পশ্চিমবঙ্গের রায়গঞ্জ লোকসভা আসনের তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী কানাইয়ালাল আগরওয়ালের পক্ষে নির্বাচনি প্রচারণায় অংশ নেন বাংলাদেশ ও ভারতে সমান জনপ্রিয় চিত্রনায়ক ফেরদৌস। এ সময় বিভিন্ন পথসভায় তৃণমূল প্রার্থী কানাইয়ালাল আগরওয়ালকে ভোট দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

এরপরই একজন বিদেশি নাগরিক কীভাবে ভারতের সাধারণ নির্বাচনের প্রচারণায় অংশ নিতে পারেন, এই প্রশ্ন তোলে রাজ্যের বিরোধী দল বিজেপি।
তুমুল সমালোচনার মুখে পড়েন ফেরদৌস। স্থগিত হয় তার ভারতীয় ভিসা।

বর্তমান অবস্থা নিয়ে ফেরদৌস বলেন, ‘এই জটিলতা সময়ের ওপরেই ছেড়ে দিয়েছি। সময়ের সঙ্গে সঙ্গে হয়তো সবকিছু ঠিক হয়ে যাবে। তবে আমার ভারতীয় বন্ধুদের জন্য কষ্ট পাচ্ছি। আমার জন্য তাদের নানা ঝক্কির মধ্যে দিয়ে যেতে হলো।’

উল্লেখ্য, শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়ের উপন্যাস অবলম্বনে ‘দত্তা’ নির্মিত হচ্ছে, যেখানে ফেরদৌস অভিনয় করছেন বিলাস চরিত্রে। নায়িকা হিসেবে আছেন ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত। ছবিটি পরিচালনা করছেন নির্মল চক্রবর্তী।

জুমবাংলানিউজ/ এইচ জে