খেলা-ধুলা

ফুটবলকে বিদায় জানালেন রজনীকান্ত

বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামের মাঠ, ঘাস, গ্যালারি—সবকিছু তাঁর কত চেনা! এই মাঠেই বাংলাদেশের ফুটবলের ইতিহাসের সবচেয়ে বড় সাফল্য এসেছিল—২০০৩ সাফ জয়। বিজয়ী সেই দলটির অধিনায়কই ছিলেন রজনীকান্ত বর্মন। মাঠের ফুটবলের সঙ্গে প্রায় ২২ বছরের গাঁটছড়া অবশেষে ছিন্ন করলেন কাল। আনুষ্ঠানিকভাবে বুটজোড়া তুলে রাখলেন এই ডিফেন্ডার।

বৃহস্পতিবার (১৫ ডিসেম্বর) বিকেলে বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামে সশরীরে উপস্থিত হয়ে তিনি ফুটবল থেকে নিজের অবসরের খবর দেন।

রজনীর বিদায়ের দিনটি স্মরণীয় করে রেখেছে তাঁর দল শেখ রাসেল—মোহামেডানকে হারিয়েছে ২-০ গোলে। কোচ শফিকুল ইসলাম মানিক শুরুতেই মাঠে নামান রজনীকে। ৪৫ মিনিটে তাকে উঠিয়ে মাঠে নামান রাশেদুল আলমকে। মাঠ থেকে উঠে আসার সময় কাঁদছিলেন রজনী। ক্লাব কর্মকর্তা ও সতীর্থরা তাঁর গলায় পরিয়ে দেন ফুলের মালা। ফুলেল শুভেচ্ছা জানান মোহামেডানের কর্মকর্তারাও।

১৯৯৪-৯৫ মৌসুমে অগ্রনী ব্যাংক দিয়ে পেশাদার ফুটবল ক্যারিয়ার শুরু করেছিলেন রজনীকান্ত। ১৯৯৬, ২০০৭-০৮, ২০১০-১৩ মৌসুমে খেলেছেন মোহামেডানের হয়ে। ১৯৯৭-২০০৩, ২০০৫-০৭ ও ২০০৯ মৌসুমে সময় কেটেছে মুক্তিযোদ্ধা ক্লাবে।

২০০৪ সালে রজনীকান্ত খেলেছেন ব্রাদার্সের হয়ে। তবে খুব বেশিদিন খেলা হয়নি সেখানে। মাত্র ১ বছরই ছিল তার ব্রাদার্স অধ্যায়। এরপর ২০০৮ সালে দেশ সেরা এই ডিফেন্ডার খেলেন আবাহনীর হয়ে। এখানেও তার অধ্যায় ছিল ওই ১ বছরই। ক্লাব ফুটবলে রজনীকান্ত সবশেষ ২০১৪ সালে শেখ রাসেলের জার্সি গায়ে জড়ান। বর্তমানে তিনি ক্লাবটির ট্রেনারের দায়িত্ব পালন করছেন।

ক্লাব ফুটবল ক্যারিয়ারে এক সফল খেলোয়াড় ছিলেন রজনীকান্ত। ২০০০ সালে তার নেতৃত্বেই প্রিমিয়ার ফুটবলে শিরোপা ঘরে তুলেছিল মুক্তিযোদ্ধা সংসদ।

কম যাননি জাতীয় দলের হয়েও। ১৯৯৬-২০০৯ সাল পর্যন্ত বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দলের রক্ষণভাগের দায়িত্ব পালন করেছেন বেশ দাপটের সাথে। রক্ষণের দায়িত্ব পালন করেও যোদ্ধা হওয়া যায়, তারকা হওয়া যায়, তার জ্বলন্ত প্রমাণ ছিলেন রজনী কান্ত।

ছিলেন লাল-সবুজের ফুটবল দলের অধিনায়কও। শুধু অধিনায়কই নন, একজন সফল অধিনায়ক। কেননা ২০০৩ সালে তার নেতৃত্বেই সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে চ্যাম্পিয়নের মুকুট পড়েছিল বাংলাদেশ। যদিও কার্ডের জন্য ফাইনালে তার খেলা হয়নি। তার জায়গায় ভারপ্রাপ্ত হিসেবে দলের নেতৃত্ব দেন হাসান আল মামুন।

সেই রজনীকান্ত বর্মন বাংলাদেশ ফুটবল থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে বিদায় নিলেন।

ভিডিওঃ শিক্ষকের সঙ্গে মা ও মেয়ের অবৈধ সম্পর্ক! (ভিডিও)

Add Comment

Click here to post a comment