অপরাধ-দুর্নীতি জাতীয় বিভাগীয় সংবাদ

ফরিদপুরে প্রতিপক্ষের মারপিটে ৫ মাসের অন্তঃসত্ত্বার মরা বাচ্চা প্রসব

জুমবাংলা ডেস্ক: ফরিদপুরের মধুখালীতে ৫ মাসের অন্তঃসত্ত্বা এক গৃহবধূকে মারপিট করার কারণে তার গর্ভপাত হয়েছে। তিনি মরা বাচ্চা প্রসব করছেন। এ ব্যাপারে মধুখালী থানায় মামলা হয়েছে। ঘটনার সঙ্গে জড়িত লালন খানকে শনিবার রাতে গ্রেফতার করে রবিবার ফরিদপুর কোর্টে চালান দেওয়া হয়েছে।

মামলার এজাহার সূত্রে প্রকাশ, পাঁচই চাঁদপুর গ্রামের মুক্তার শেখের সঙ্গে একই গ্রামের বিল্লাল খান গংদের দীর্ঘদিন ধরে বিভিন্ন বিষয়াদি নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। গত ৩১ মে দুপুরে পূর্বের বিরোধের জের ধরে বিল্লাল খান তার লোকজন নিয়ে মুক্তার শেখের বাড়িতে এসে গালিগালাজ করে। এ সময় মুক্তার শেখ নিষেধ করলে বিল্লাল খান, লালন খান, আলম খান, সাদ্দাম খান, জাহিদ খান গং উত্তেজিত হয়ে মুক্তার শেখকে কুপিয়ে জখম, ছোট ভাইয়ের স্ত্রী সাবানা বেগম (৩৫), ছেলের ৫মাসের অন্তঃসত্বা স্ত্রী আছমাকে (২৭) বেধড়ক মারপিট করে।

অন্তঃসত্ত্বা আছমা বেগমকে মধুখালী হাসপাতালে নেওয়া হচ্ছিলো। পথে পেটে থাকা ৫ মাসের মরা বাচ্চা প্রসব করেন তিনি। মুক্তার শেখ, সাবানা ও আছমাকে প্রথমে মধুখালী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে আছমার শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।

মধুখালী হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক (আরএমও) ডা. কবির সরদার জানান, পথিমধ্যে প্রসবকৃত মরা বাচ্চাসহ আছমা বেগম মধুখালী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হয়। পরে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই সাহেব আলী জানান, এ ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের হয়েছে। শনিবার রাতে লালন খান নামের এক আসামিকে গ্রেফতার করে রবিবার দুপুরে ফরিদপুর কোর্টে চালান দেওয়া হয়েছে। অন্য আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

এদিকে আসামি পক্ষ মামলা তুলে নেওয়ার জন্য বাদীকে হুমকি-ধামকি দিচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে। সূত্র: ইত্তেফাক

জুমবাংলানিউজ/এইচএম