ক্রিকেট (Cricket) খেলাধুলা

প্রথম পরাজয়ের স্বাদ যেমন লাগলো ভারতের কাছে

স্পোর্টস ডেস্ক : ম্যাচ জিততে হলে বিশ্বকাপে রেকর্ড রান তাড়া করে জিততে হবে ভারতকে। সেই লক্ষ্যের খুব কাছে গিয়েও শেষ পর্যন্ত ব্যর্থ হলো টিম ইন্ডিয়া। ভারতকে ৩১ রানে হারিয়ে সেমিফাইনালের আশা আবারও উজ্জ্বল করেছে ইংল্যান্ড। বিশ্বকাপের এবারের আসরে প্রথম পরাজয়ের স্বাদ পেলো ভারত। খবর : আলোকিত বাংলাদেশ

এজবাস্টনে টস জেতে আগে ব্যাট করে জনি বেয়ারস্টোর দুর্দান্ত সেঞ্চুরিতে ৭ উইকেটে ৩৩৭ রানে সংগ্রহ দাড় করায় ইংল্যান্ড। জবাবে ব্যাট করতে নেমে রোহিত শর্মার সেঞ্চুরিতে হার এড়াতে পারেনি ভারত। ৫ উইকেটে ৩০৬ রানে থেমে যায় তাদের ইনিংস। শেষ দুই ম্যাচে ইংল্যান্ডের পরাজয়ে বাংলাদেশের জন্য সেমিফাইনালে খেলাটা সহজ হতো। এখন বাংলাদেশের শেষ দুই ম্যাচ জয়ের পাশাপাশি ইংল্যান্ডকে হারতে হবে শেষ ম্যাচে। তবেই টাইগারদের সেমিফাইনালে খেলার আশা টিকে থাকবে।

৩৩৮ রানে রেকর্ড রান তাড়া করতে নেমে ব্যক্তিগত শূন্য আর দলীয় ৮ রানে বিদায় নেন লোকেশ রাহুল। দ্বিতীয় উইকেটে শক্ত প্রতিরোধ গড়েন রোহিত শর্মা ও বিরাট কোহলি। ১৩৮ রানের জুটি গড়েন তারা। অর্ধশতক তুলে নেন কোহলি। ফলে টানা পাঁচ ম্যাচে হাফসেঞ্চুরি করে বিশ্বকাপে রেকর্ড করেন তিনি। কোহেলি ৬৬ রান করে লিয়াম প্ল্যাঙ্কেটের বলে আউট হন।

এরপর তৃতীয় উইকেট জুটিতে আরও ৫২ রান যোগ করেন রোহিত ও রিশভ পান্ত। এ বিশ্বকাপে নিজের তৃতীয় সেঞ্চুরি তুলে নেন রোহিত। তবে ইনিংস বড় করতে পারেনি তিনি। ১০২ রান করে ক্রিস ওকসের বলে বাটলারের তালুবন্দি হন রোহিত।

এরপর ৩২ রান করা পান্ত প্ল্যাঙ্কেটের বলে ওকসের দুর্দান্ত ক্যাচে প্যাভিলিয়নে ফেরত যান। হার্দিক পান্ডিয়া ৩৩ বলে ৪৫ রানে ইনিংস খেলে প্ল্যাঙ্কেটের বলে আউট হলেও ওভার প্রতি রান তোলা গড়টাকে কমতে পারেনি। এরপর ইংলিশ বোলারদের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ের সামনে আর সুবিধা করতে পারেনি ভারতীয় ব্যাটসম্যানরা। শেষ পর্যন্ত ৫ উইকেটে ৩০৬ রানে থেমে যায় ভারতের ইনিংস। ইংলিশ বোলার প্ল্যাঙ্কেট ৩টি এবং ওকস ২টি উইকেটে নেন।

এরআগে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে উদ্বোধনী জুটিতে ১৬০ রান যোগ করে ইংল্যান্ডকে বড় রানে ভিত্তি গড়ে দেন দুই ওপেনার জেসন রয় ও জনি বেয়ারস্টো। জেসন রয় ৫৭ বলে ৬৬ রান করে কুলদীপ যাদবের বলে আউট হন। তার ইনিংসটি ৭টি চার ও ২টি ছয়ে সাজানো ছিল।

তবে অন্যপ্রান্তে ঠিকই ওয়ানডে ক্যারিয়ারের অষ্টম সেঞ্চুরি তুলে নেন বেয়ারস্টো। দলীয় ২০৫ রানে বেয়ারস্টো ১১১ রান করে মোহাম্মদ শামির বলে রিশব পান্তের হাতে ধরা পড়েন। দুর্দান্ত সেঞ্চুরির পথে হাঁকিয়েছেন ১০টি চার ও ছয়টি ছক্কা।

অধিনায়ক ইয়ন মরগান অবশ্য ১ রান করে বিদায় নেন। চতুর্থ উইকেটে ৭০ রান আসে বেন স্টেকস ও জো রুটের ব্যাট থেকে। রুট ৪৪ রান করে দলীয় ২৭৭ রানে শামির বলে আউট হন। অর্ধশতক তুলে নেন স্টোকস। জশ বাটলারের ইনিংটাকে বড় করতে দেননি শামি। ২০ রান করে বিদায় নেন বাটলারও।

৫৪ বলে ৭৯ রানের ইনিংস খেলে জসপ্রিত বুমরাহ’র বলে আউট হন স্টোকস। শেষ পর্যন্ত ৫০ ওভারে ৭ উইকেটে ৩৩৭ রান করে ইংল্যান্ড।

ভারতের শামি ৫টি, যাদব ও বুমরাহ একটি করে উইকেট নেন। ইংল্যান্ডের জনি বেয়ারস্টো ম্যাচ সেরা হয়েছেন।

জুমবাংলা/এসএম/