Exceptional News

পৃথিবীর সবচেয়ে দামি ১০ খনিজ পাথর

পৃথিবীতে ৪ হাজারের বেশি খনিজ পদার্থ রয়েছে। এদের বেশিরভাগই হয়তো আমরা বাস্তব জীবনে কখনো দেখিনি। বিভিন্ন খনিজ বিভিন্ন অবস্থার মধ্যে গঠিত হয়ে থাকে। এর কারণেই কিছু খনিজ থাকে যাদের পাওয়া যায় কম পরিমাণে। তাই মূল্যের দিক দিয়েও থাকে আকাশচুম্বী।

গঠন প্রণালী, বাহ্যিক বৈশিষ্ট্য ও প্রাপ্যতার উপর নির্ভর করে তাদের মূল্য। দুর্লভ সেই খনিজ পদার্থই হয়ে যায় অমূল্য। পৃথিবীর এমন দামি দশটি খনিজ পাথর হচ্ছে-

পাওড্রেটেটিয়েট: কানাডার পাওড্রেটে পরিবার ১৯৬০ সালে সেইন্ট হিলারি কিউবেক পাহাড়ে সর্বপ্রথম এই খনিজ পাথর আবিষ্কার করে। এটা দেখতে অনেকটা গোলাপি রংয়ের। প্রতি ক্যারেটের মূল্য তিন হাজার মার্কিন ডলার।

বেনিটয়েটে: উজ্জল নীলাভ বর্ণের পাথর এটি। ব্যারিয়াম, টাইটানিয়াম এবং সিলিকার তৈরি এটি। ক্যালিফোর্নিয়ার বেনিটো কাউন্টিতে এটি সর্বপ্রথম পাওয়া গেছে। পরবর্তীতে সেই জায়গার নাম অনুসারেই এর নামকরণ করা হয় বেনিটয়েটে। প্রতি ক্যারেটের মূল্য চার হাজার মার্কিন ডলার।

মুসগ্রেভিটে: অস্ট্রেলিয়ার মুসগ্রেভ অঞ্চলে ১৯৬৭ সালে সর্বপ্রথম এই পাথর পাওয়া যায়। এটা খুবই দুষ্প্রাপ্য এবং কঠিন পাথর। মুসগ্রেভিটে তৈরি হয় অ্যালমুনিয়াম অক্সাইডের সাথে ম্যাগনেশিয়াম, আয়রন এবং জিংকের বিক্রিয়ার ফলে। প্রতি ক্যারেটের মূল্য ছয় হাজার ডলার।

রেড বেরেল: রেড বেরেল তৈরি হয় ব্যারিয়াম, এলুমিনিয়াম এবং সিলিক্যাটের মাধ্যমে। প্রকৃতিতে যে সমস্ত পান্না পাওয়া যায় সেগুলো বর্ণহীন। এই পাথরের মূল্য প্রতি ক্যারেট ১০ হাজার মার্কিন ডলারের উপরে এবং দুষ্প্রাপ্য পাথরটি একসাথে ২-৩ ক্যারেটের বেশি পাওয়া যায় না।

আলেকজান্দ্রিত: আলেকজান্দ্রিত সর্বপ্রথম ১৮৩০ সালে রাশিয়াতে পাওয়া গেছে। বিভিন্ন অবস্থায় বিভিন্ন রংয়ের রূপ ধারণ করে আলেকজান্দ্রিত। আলোতে পান্নার মত দেখতে এবং অন্ধকারে লাল রুবি পাথরের বর্ণ ধারণ করে এটি। প্রতি ক্যারেটের মূল্য ১২ হাজার মার্কিন ডলার।

হীরা: পৃথিবীতে যত কঠিনতম খনিজ পাওয়া গেছে তার মধ্যে হীরা একটি। কয়লা খনিতে পাওয়া যায় এই পাথর। ১০০-৩০০ বছরে কয়লা রূপান্তরিত হয়ে হীরায় পরিণত হয়। প্রতি ক্যারেটের মূল্য ১৫ হাজার মার্কিন ডলার।

স্যারেন্ডিবিটে: স্যারেন্ডিবিটে খুবই দুষ্প্রাপ্য একটি খনিজ পাথর। এটা সর্বপ্রথম ১৯০২ সালে শ্রীলংকাতে পাওয়া যায়। সম্প্রতি এটি মিয়ানমারেও পাওয়া গেছে। প্রতি ক্যারেট মূল্য ১৮ হাজার মার্কিন ডলার।

গ্রান্ডিডিয়েরাইট: গ্রান্ডিডিয়েরাইট খুবই কম পাওয়া গেছে এ পর্যন্ত। মাদাগাসকারে ১৯০২ সালে সর্বপ্রথম এটা পাওয়া গিয়েছিল। প্রতি ক্যারেটের মূল্য ২০ হাজার মার্কিন ডলার।

তাফেইটি: তাফেইটি খুবই দুর্লভ খনিজ পাথর। এটাকে দেখতে অনেকটা চুনি পাথরের মত। আয়ারল্যান্ডে সর্বপ্রথম ১৯৪৫ সালে এটা আবিষ্কৃত হয়। পরবর্তী সময়ে শ্রীলংকা এবং তানজানিয়াতেও পাওয়া গেছে এই পাথর। প্রতি ক্যারেটের মূল্য ৩৫ হাজার মার্কিন ডলার।

লাল হীরা: এখন পর্যন্ত প্রাপ্ত সমস্ত খনিজ পাথরের চেয়েও সবচেয়ে বেশি মূল্য এই লাল হীরার। দুষ্প্রাপ্যতাই এর অনন্য বৈশিষ্ট্য। প্রতি ক্যারেটের মূল্য প্রায় ১০ লাখ মার্কিন ডলারেরও উপরে। সারা পৃথিবীতে এই পর্যন্ত ৩০টির মত লাল হীরা পাওয়া গেছে, যাদের বেশিরভাগই অর্ধেক ক্যারেটের।

Add Comment

Click here to post a comment

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.