জাতীয় পুঁজিবাজার

পুঁজিবাজার থেকে রেকর্ড পরিমাণ অর্থ উত্তোলন!

নিজস্ব প্রতিবেদক : চলতি অর্থবছরে দেশের পুজিঁবাজার থেকে রেকর্ড পরিমাণ অর্থ উত্তোলন করা হবে। পাইপলাইনে থাকা কোম্পানিগুলো প্রায় এক হাজার ৭০০ কোটি টাকা উত্তোলন করবে। ইতোতমধ্যে প্রতিষ্ঠান কর্তৃপক্ষ প্রয়োজনীয় কাগজপত্র বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনে (বিএসইসি) জমা দিয়েছে। অনুমতি পাওয়ার পর প্রতিষ্ঠানগুলো তাদের পরবর্তী কার্যক্রম শুরু করবে।

জানা যায়, বুক বিল্ডিং পদ্ধতিতে বাজারে আসার জন্য অপেক্ষা করছে ১২ কোম্পানি। প্রতিষ্ঠানগুলো বাজার থেকে মোট এক হাজার ৩০৭ কোটি টাকা উত্তোলন করবে। এছাড়া ফিক্সড প্রাইস পদ্ধতিতে পাইপলাইনে রয়েছে ১১ কোম্পানির আইপিও। এ ১১ কোম্পানি বাজার থেকে ৩০১ কোটি ২৯ লাখ টাকা উত্তোলন করবে।

তথ্যমতে, ফিক্সড প্রাইস পদ্ধতিতে বা অভিহিত মূল্য ১০ টাকায় বাজার থেকে অর্থ উত্তোলনের জন্য ১২ কোম্পানি অপেক্ষা করছে। এর মধ্যে জেনেক্স ইনফোসিস ২০ কোটি টাকা, নিউ লাইন ক্লথিং ৩০ কোটি টাকা, সিলকো ফার্মাসিউটিক্যালস ৩০ কোটি টাকা, এক্সপ্রেস ইন্স্যুরেন্স ২৬ কোটি ৭৯ লাখ টাকা, ইলেকট্রো ব্যাটারি কোম্পানি সাড়ে ২২ কোটি টাকা, এসএস স্টিল ২৫ কোটি টাকা, মোহাম্মদ ইলিয়াস ব্রাদার্স ম্যান্যুফ্যাকচারিং ২৫ কোটি টাকা এবং দেশ জেনারেল ইন্স্যুরেন্স পুঁজিবাজার থেকে ১৬ কোটি টাকা উত্তোলনের অপেক্ষায় রয়েছে।

একইভাবে বুক বিল্ডিং পদ্ধতিতে আইপিওতে আসার অপেক্ষায় রয়েছে এসটিএস হোল্ডিংস (এ্যাপোলো হাসপাতাল) লিমিটেড। কোম্পানিটি বাজার থেকে ৭৫ কোটি টাকা উত্তোলন করবে। এছাড়া এডিএন টেলিকম ৫৭ কোটি টাকা, লুব-রেফ বাংলাদেশ ১৫০ কোটি টাকা, বারাকা পতেঙ্গা পাওয়ার লিমিটেড ২২৫ কোটি টাকা, পপুলার ফার্মাসিউটিক্যালস ৭০ কোটি টাকা, ডেল্টা হসপিটাল ৫০ কোটি টাকা, ইনডেক্স এগ্রো ইন্ডাস্ট্রিজ ৪০ কোটি টাকা, শামসুল আলামিন রিয়েল এস্টেট ৮০ কোটি টাকা, এনার্জিপ্যাক পাওয়ার জেনারেশন ১৫০ কোটি টাকা, স্টার সিরামিকস ৬০ কোটি টাকা এবং মডার্ন স্টিল মিলস পুঁজিবাজার থেকে ২০০ কোটি টাকা উত্তোলনের অপেক্ষায় আছে।

এর আগে ২০১৭-১৮ অর্থবছরে পুঁজিবাজার থেকে দুটি মিউচুয়াল ফান্ডসহ মোট ১১টি সিকিউরিটিজ প্রাথমিক গণপ্রস্তাব বা আইপিওর মাধ্যমে ৫৪১ কোটি ২৫ লাখ টাকা মূলধন সংগ্রহ করেছেন প্রতিষ্ঠান মালিকরা। এর মধ্যে তিনটি কোম্পানি প্রিমিয়াম বাবদ ২৭৪ কোটি ৩৩ লাখ টাকা মূলধন উত্তোলন করে। অপরদিকে ২০১৬-১৭ অর্থবছরে তিনটি মিউচুয়াল ফান্ডসহ মোট ৯টি সিকিউরিটিজ প্রাথমিক গণপ্রস্তাব বা আইপিওর মাধ্যমে মোট ৩৯০ কোটি টাকা মূলধন সংগ্রহ করেছিল।

জুমবাংলানিউজ/পিএম