অপরাধ/দুর্নীতি

পিরোজপুরে মহিলার গলাকাটা লাশ উদ্ধার

পিরোজপুর পৌরসভার মাছিমপুর মহল্লার গৃহবধূ আসমা আক্তারের (২৬) গলাকাটা লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

ঘটনার পর নিহত আসমা আক্তারের স্বামী মো. রেজাউল (৩২) পলাতক রয়েছেন।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, আট মাস আগে রেজাউলসহ ১৫ জন নির্মাণ শ্রমিক পিরোজপুরের মাছিমপুর মহল্লার রুবেল তালুকদারের বাসা ভাড়া নেন। রেজাউলের স্ত্রী আসমা শ্রমিকদের রান্না করে খাওয়াতেন।

আজ শুক্রবার সকাল ১০টার দিকে আলমগীর হোসেন নামের এক শ্রমিক বাড়ির মালিকের স্ত্রী রুপা বেগমকে জানান আসমাকে গলা কেটে হত্যা করা হয়েছে এবং রেজাউলকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। খবর পেয়ে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে পিরোজপুর সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠায়।

আলমগীর হোসেন জানান, ‘সকালে রেজাউলকে না পেয়ে আমি ওদের শয়নকক্ষে গিয়ে দেখি আসমার গলাকাটা লাশ পরে আছে। তাৎক্ষণিক বিষয়টি বাড়ির মালিকের স্ত্রীকে জানাই।’

বাড়ির মালিকের স্ত্রী রুপা বেগম বলেন, ‘কয়েক দিন আগে আসমা রেজাউলকে নিয়ে সাতক্ষীরায় বাবার বাড়িতে বেড়াতে যায়। দুদিন আগে তাঁরা পিরোজপুর আসেন। শুনেছি আসমার বাবার বাড়িতে রেজাউলের সঙ্গে আসমার ঝগড়া হয়েছিল।’

পিরোজপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জি এম আবুল কালাম আজাদ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে প্রথম আলোকে বলেন, ‘প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে এটি পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড। বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতের কোনো এক সময়ে ধারালো অস্ত্র দিয়ে আসমাকে হত্যা করে স্বামী পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।’

Add Comment

Click here to post a comment