অপরাধ-দুর্নীতি জাতীয় স্লাইডার

পারমাণবিক প্রকল্পে ‘বালিশ’ দুর্নীতিতে অভিযুক্ত ব্যক্তি ছাত্রদল নেতা ছিলেন: প্রধানমন্ত্রী

জুমবাংলা ডেস্ক: রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র প্রকল্পে বালিশসহ আসবাবপত্রের কেনাকাটায় দুর্নীতিতে অভিযুক্ত ব্যক্তি ছাত্রদলের নেতা ছিলেন বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। খবর ইউএনবি’র।

সোমবার জাতীয় সংসদে প্রশ্নত্তোর পর্বে তিনি বলেন, ‘তার কিছু পরিচয় আমরা পেয়েছি। এক সময় তিনি বুয়েটে ছাত্রদলের সাথে জড়িত ছিলেন।’

অভিযুক্ত ওই প্রকৌশলী ছাত্রদলের বুয়েট শাখার সহ-সভাপতি ছিলেন বলেও জানান প্রধানমন্ত্রী।

সরকারের দৃষ্টিগোচর হওয়া মাত্র অভিযুক্তকে সরানো হয়েছে জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘যখনই তথ্য পেয়েছি, সাথে সাথে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিয়েছি। যে দলেরই হোক, আমরা তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিচ্ছি।’

প্রসঙ্গত, রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের গ্রিন সিটি হাউজিং প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক ছিলেন গণপূর্ত অধিদপ্তরের পাবনা অফিসের নির্বাহী প্রকৌশলী মাসুদুর রহমান। বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগে তাকে প্রত্যাহার করে নেয়া হয়।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘বিএনপি গঠনই হয়েছিল দুর্নীতির মধ্যদিয়ে। এখানে এমন এমন লোক রয়ে গেছে, জন্ম থেকেই তাদের চরিত্র দুর্নীতির। তাদের উৎসটাই হচ্ছে দুর্নীতি।’

প্রত্যেক সংসদে এমপিদের জন্য প্লট বরাদ্দের ব্যাপারে সংরক্ষিত আসনের এক এমপির প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী বলেন, সাতবারের এমপি হলেও এখনো তিনি কোনো প্লট নেননি। ‘দল আমাকে বুলেট প্রুফ গাড়ি দিয়েছিল বলে ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা থেকে বাঁচতে পেরেছিলাম। প্রত্যেকবার প্লট নেয়া ঠিক নয়।’

হাসিনা বলেন, দুর্নীতি করার জন্য সরকার ক্ষমতায় নেই। ‘আমাকে দুর্নীতিগ্রস্ত করার জন্য বেশ কয়েকবার চেষ্টা হয়েছে। বিএনপি-জামায়াত আমার বিরুদ্ধে কয়েক ডজন মামলা করেছিল, কিন্তু একটিও প্রমাণ করতে পারেনি। বিশ্বব্যাংকও আমার বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ তুলেছিল, তারাও প্রমাণ করতে পারেনি।’

জুমবাংলানিউজ/এইচএম