খেলা-ধুলা

পরিবার-সন্তানাদি নিয়ে আর্জেন্টিনায় চলাফেরা করতে ভয় পান মেসি!

আর্জেন্টিনার বিখ্যাত শহর রোজারিওতে জন্ম লিওনেল মেসির। এই শহরেই বিয়ে করেছিলেন বাল্যকালের প্রেমিকা রোকুজ্জোকে।
মেসির জন্মের আগে থেকেই ভিন্ন একটি কারণে বিখ্যাত রোজারিও। কিংবদন্তি কমিউনিস্ট বিপ্লবী চে গুয়েভারার জন্মও রোজারিওতে। সেই শহরটি এখন অপরাধীদের স্বর্গরাজ্য। মাদক ক্রয়-বিক্রয় আর পাচারের জন্য কুখ্যাত। শুধু রোজারিও নয়; গোটা আর্জেন্টিনার অবস্থা এখন শোচনীয়!

আর্জেন্টিনার বেশিরভাগ এলাকায় আইনশৃঙ্খলার অবস্থা শোচনীয়। খুন-খারাপি নিত্যদিনের ঘটনা। মাদকের ভয়াবহ ছোবল তো আছেই। সেই দেশের ছেলে মেসি জীবনের বড় একটা সময় কাটিয়ে দিলেন স্পেনের বার্সেলোনায়। এটা নিশ্চিত যে, বার্সেলোনা থেকেই ফুটবল ক্যারিয়ার শেষ করবেন তিনি।
বার্সা কর্তাদেরও সেরকম ইচ্ছা। কিন্তু ক্যারিয়ার শেষে আর্জেন্টিনায় কি ফিরবেন মেসি?

প্রশ্নটা আপাতদৃষ্টিতে সহজ মনে হতে পারে। কারণ নিজের জন্মস্থানে ফিরতে কে না চায়? কিন্তু বর্তমান পরিস্থিতিতে প্রশ্নটির জবাব দেওয়া এত সহজ নয়। মেসিও বলতে পারেননি। নিজের দেশে পরিবার নিয়ে থাকতে নিরাপদ বোধ করেন না তিনি। নিজের পরিবার-সন্তানাদি নিয়ে আর্জেন্টিনায় চলাফেরা করতেই ভয় পান ফুটবল জাদুকর!

তিনি এক সাক্ষাতকারে বলেছেন, ‘আমি অনেকবার বলেছি, নিওয়েলসের হয়ে খেলার স্বপ্নের কথা। তবে আমি জানি না, কি ঘটবে। সংশয়ের কারণ হলো, দেশের বর্তমান পরিস্থিতি। আমার একটি পরিবার আছে।

নিজের বাচ্চাদের কথা আগে ভাবতে হবে, পরে আমার কথা। আমি চাই তারা সুন্দর একটি জায়গায় বড় হোক। নিরাপদ জীবন উপভোগ করুক। আর্জেন্টিনায় কি দেখা যাচ্ছে; আপনি রাস্তায় বের হলেন, কেউ আপনাকে ছুরি বসিয়ে দিতে পারে। ‘

আর্জেন্টিনাবাসীর জন্য মেসির এই বক্তব্য আঘাতের মতই লাগতে পারে। এই আর্জেন্টিনার জনগনই তাদের রাজপুত্র মেসির ভাস্কর্য বারবার ভেঙে ফেলছে। কিন্তু, সবাই তো নিরাপদ জীবন চায়। বেঁচে থাকতে চায়। মেসি যদি ভবিষ্যতে আর্জেন্টিনায় না ফেরেন, সেটা খুব একটা অপরাধ হবে কি?