বিনোদন

‘নিজেকে নগ্ন মনে হয়েছিল, কত রাত শুধু কেঁদেছি’

ঋত্বিক রোশন আর কঙ্গনার প্রেমের গল্প ইন্ডাস্ট্রিতে খুব তোলপাড় সৃষ্টি করেছিল। দীর্ঘ প্রেমের পর সুজানাকে বিয়ে করেছিলেন ঋত্বিক, দুই সন্তানের জনক তিনি। এর পর এমন প্রেম তার জীবনে ঝড় বয়ে নিয়ে আসে, ফলাফল সুজানার সাথে তার বিচ্ছেদ।

এদিকে ঋত্বিক সব ভুলে গেলেও কঙ্গনা এখনো তার প্রেমের স্মৃতি রোমন্থন করেন প্রায়ই। দিল্লিতে একটি অনুষ্ঠানে হাজির হয়েছিলেন কঙ্গনা। সেখানেই মনের কথা খুলে বলেছেন তিনি। জানালেন ঋত্বিকের জন্য কী পরিমাণ মানসিক যন্ত্রণা সইতে হয়েছে তার।

আবেগে পরিপূর্ন সেই বক্তব্যে ঋত্বিকে কাঁদা না ছুড়ে নিজের অবেক্ত ব্যাথা গুলো তিনি জানিয়েছেন।
জানিয়েছেন, ‘চিরকাল সত্যিকারের ভালবাসা খুঁজে বেড়িয়েছি। কিন্তু নিঃস্বার্থ ভালবাসার বদলে শুধু অপমানিত হয়েছি। পাহাড় একটি গ্রামে থাকতাম। সাহসী অথচ সরল প্রকৃতির ছিলাম। জেদও ছিল প্রচুর। ওই ছোট্ট বয়সেই ছবি দেখে একটা মানুষের প্রেমে পড়ে যাই।

শুধু তার জন্যই পাহাড়, সমুদ্র, মরুভূমি পার করেছিলাম। স্বপ্নকে ছুঁতেও পেরেছিলাম। তারাভর্তি আকাশের নীচে ভালবাসার মানুষটি আদরে ভরিয়ে দিয়েছিল। বলেছিল, সেও আমাকে ভালবাসে। আমি নাকি আর পাঁচটা সাধারণ মেয়ের মতো নই। একটা অন্যরকম তেজ আছে।

কিন্তু কঠোর বাস্তবের সামনে স্বপ্ন টেকেনি। আমার সেই তেজের সামনেই ভয়ে মুখ লুকিয়েছিল মানুষটি। এতটা নির্মম ব্যবহার সহ্য করতে পারিনি। সকলের সামনে নিজেকে শক্ত দেখালেও, ভিতরে ভিতরে ভেঙে পড়েছিলাম।
আমার লেখা কিছু একান্ত ব্যক্তিগত চিঠি প্রকাশ্যে আনা হয়। সকলের সামনে নিজেকে নগ্ন মনে হয়েছিল। কত রাত ঘরের দরজা বন্ধ করে শুধু কেঁদেছি। আমাকে নিয়ে লোকে ঠাট্টা করত। কোনওদিন ঘুরিয়ে জবাব দিইনি। বরং নিজেকে সামলে নিয়েছি। এখন আর কোনও আফসোস নেই।’

আইনি ঝামেলা চলাকালীন ঋত্বিককে নিয়ে আগেও মন্তব্য করেছেন কঙ্গনা। কিন্তু কখনও এত আবেগ প্রবণ হতে দেখা যায়নি তাকে। তবে ঋত্বিক তার মন্তব্য কতটা ভালভাবে নেবেন, তা নিয়ে সন্দেহ থেকেই যাচ্ছে।

ভিডিওঃ গ্রামের আনন্দ – যাত্রার মেয়ে নিয়ে ঠাসাঠাসি – ধ্বস্তাধস্তি

Add Comment

Click here to post a comment