বিনোদন

নতুন বোমাঃ অপুই প্রথম নয়, রাত্রিকেও সন্তানসহ ত্যাগ করেছিলেন শাকিব খান!

পারিশ্রমিক, শিডিউল, চিত্রনাট্য, মান-অভিমান, ব্যক্তিগত পছন্দ-অপছন্দ—কত কারণেই না ছবি ছেড়ে দেন প্রতিষ্ঠিত নায়ক-নায়িকারা। সুযোগ পেয়ে যায় নতুন কেউ, খুলে যায় ভাগ্য, জন্ম নেয় নতুন কোনো তারকা। হঠাৎ সুযোগ পেয়ে এভাবেই জীবনের মোড় ঘুরে গিয়েছিলো শাকিব খানেরও। আর তাতেই ধরাকে সরা জ্ঞান করা শুরু করেন এই অভিনেতা। সাম্প্রতিক সময়ে বুবলির জন্য অপু বিশ্বাসকে ত্যাগ করার ঘটনায় সোচ্চায় চলচ্চিত্রাঙ্গন, কিন্তু এখনও শাকিবের ক্যারিয়ারের প্রথম দিকের স্ক্যান্ডালটি এফডিসির আলোচনায় উঠে আসে মাঝে মাঝে।

এ প্রসঙ্গে যাওয়ার আগে শাকিব খানের উত্থানের গল্পটি শোনা যাক।

২০০৪ সাল, একটি ত্রিভুজ প্রেমের গল্প নিয়ে ‘আমার স্বপ্ন তুমি’ ছবি বানাবেন হাসিবুল ইসলাম মিজান। ফেরদৌস আর শাবনূরকে প্রস্তাব দিলেন, তারা রাজি। পরে তাদের সঙ্গে আলোচনা করলেন ছবিতে রিয়াজকে নেওয়ার ব্যাপারে। কিন্তু রিয়াজের প্রতি আগ্রহ দেখালেন না শাবনূর। রিয়াজের সঙ্গে অনেক হিট ছবি থাকলেও মনোমালিন্যের কারণে এড়িয়ে যেতে চাইলেন। কিন্তু মিজান নাছোড়বান্দা, শাবনূরকে বোঝালেন। শাবনূর নরমও হলেন। কিন্তু রিয়াজই সাফ জানিয়ে দিলেন, এই ছবি করবেন না। বিপাকে পড়লেন মিজান। কাকে নেবেন?

তখন ইন্ডাস্ট্রিতে ত্রিভুজ প্রেমের ছবি করার মতো রোমান্টিক নায়ক রিয়াজ-ফেরদৌস ছাড়া আছেন শাকিল খান। শাকিলের ক্যারিয়ার তখন পড়তির দিকে। মিজানের সহকারী বললেন শাকিব খানের কথা। পাঁচ বছর হলো এফডিসিতে ধুঁকে ধুঁকে চলছেন শাকিব, তবু তারকা হতে পারেননি। আমিন খান, আলেকজান্ডার, শাহীন আলমদের সঙ্গে কাজ করে বেশ কিছু হিট ছবি উপহার দিলেও সাফল্যের কৃতিত্ব পাননি। মিজান বেশ দ্বিধায় পড়ে গেলেন। এদিকে ফেরদৌস ও শাবনূরের শিডিউল নেওয়া। শ্যুটিং করতে হবে।

শাবনূরের সঙ্গে শাকিবের ব্যাপারে আলোচনা করলেন। শাবনূর রাজি। শুধু তাই নয়, বললেন, ‘শাকিবের ভেতরে চেষ্টা আছে, অভিনেতাও ভালো। সুযোগ পেলে অবশ্যই ভালো করবে।’ মিজান পরবর্তী সময়ে শাকিবের সঙ্গে দেখা করে ছবির বাজেট ও পারিশ্রমিক নিয়ে আলোচনায় বসলেন। শাকিব বললেন, ‘টাকা-পয়সা ব্যাপার না, ছবিটি করতে চাই।’ শুরু হলো শ্যুটিং। ইউনিটের সবাই শাকিবের অভিনয়ে মুগ্ধ। ডাবিং করার সময় পুরো ছবি দেখে মিজানকে শাবনূর বললেন, ‘এই ছবির পর শাকিব সুপারস্টার হয়ে যাবে।’ হলোও তাই!

পরের বছর মুক্তি পেল ছবিটি। পাল্টে গেল শাকিবের ভাগ্য। তার লুক, অভিনয়, শাবনূরের সঙ্গে রসায়ন— দারুণ পছন্দ করেছে দর্শক। মান্না, রিয়াজ, ফেরদৌস এমনকি আলেকজান্ডার, মেহেদির পরে আসত শাকিবের নাম। ‘আমার স্বপ্ন তুমি’র পর সব হিসাব উল্টে গেল। উত্থান হলো তারকা শাকিব খানের।

এবার আসি পর্দার পেছনের শাকিব খানের অন্ধকার জীবনের গল্পে।

ক্যারিয়ারের শুরুর দিকে এক দুর্বল মুহূর্তে শাকিব খান রাত্রি নামের এফডিসির এক এক্সট্রা শিল্পীর সঙ্গে অন্তরঙ্গ সম্পর্ক গড়ে তোলেন। যার ফলশ্রুতিতে শাকিব খানের ঔরসে রাত্রির একটি সন্তানও জন্ম নেয় বলে গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে। এ বিষয়টি অনেক পুরনো। এফডিসির পুরনো মুখ সবাই ঘটনাটি জানেন। কিন্তু নতুন করে আলোচনায় আসে চলচ্চিত্র অভিনেতা শান আরাফের একটি ফেসবুক স্ট্যাটাস প্রকাশিত হওয়ার পর। শান আরাফ এফডিসিতে কাজ করছেন অনেকদিন। মোস্তাফিজুর রহমান মানিক পরিচালিত ‘চুপি চুপি প্রেম’ ছবিতে কাজ করে ব্যাপক প্রশংসিতও হন তিনি। শান আরাফ তার ফেসবুক স্ট্যাটাসে বলেন:

তাহলে রাত্রির কি হবে?? ……..
যখন শাকিব খান নতুন ছিলো তখন এফডিসিতে রাত্রি নামে একজন এক্সট্রা শিল্পীর সাথেও নাকি শাকিব খানের বিয়ে হয়েছিল বলে রাত্রি জোর দাবি করে, যদিও তার কাছে বিয়ের কোন কাগজ পত্র নেই, গরিব এবং অশিক্ষিত মনে হয় রাত্রিকে….. সেই ঘরেও শাকিব খানের একটা ছেলে আছে, গরিব বলে আজও রাত্রি তার ছেলের স্বীকৃতি পায়নি শাকিব খানের কাছ থেকে……অপু নায়িকা আর সে নায়িকা নয় বলেকি তার কিছুই হবেনা……??

এখনও রাত্রি এফ ডি সি তে পাগলের মতো ঘুরে বেড়ায়…..এফ ডি সি তে প্রায় সবাই রাত্রিকে চেনে….

[তথ্যসূত্র: চলচ্চিত্র নায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন সম্পাদিত পত্রিকা নিরাপদনিউজ.কম]

এছাড়াও বিষয়টি নিয়ে প্রতিবেদক এফডিসির একজন পুরনো কর্মীর সাথে কথা বলেন। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ওই ক্যামেরা সহকারী বলেন, “রাত্রী নামের একটি মেয়েকে মাঝে মাঝেই এফডিসিতে দেখা যায়। এক্সট্রা শিল্পী হিসেবে কাজ করেন। মেয়েটি বহুবার দাবী করেছে শাকিব খানের সঙ্গে তার সম্পর্ক ছিল। এমনকি চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতি অফিসেও গিয়েছিলেন তিনি। বিষয়টি নিয়ে সেখানে শাকিব খানের সাথেও তর্ক হয়েছে বলে শুনেছি। তাদের একটি সন্তান আছে বলে মেয়েটি জানিয়েছে।”

বাংলাদেশের চলচ্চিত্র জগতের অন্যতম প্রাণপুরুষ এবং কিংবদন্তী নায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন। চলচ্চিত্র এবং গণমাধ্যমে যাকে শ্রদ্ধা করেন এবং ভালোবাসেন সবাই। জনসচেতনতামূলক কাজ ও সামাজিক আন্দোলনে সব সময়ই তিনি কার্যকর ভূমিকা পালন করে যাচ্ছেন। নিরাপদ সড়ক আন্দোলনের পাশাপাশি সংবাদ মাধ্যমেও তিনি সক্রিয়। তার মালিকানাধীন এবং সম্পাদনায় প্রকাশিত পত্রিকা নিরাপদ নিউজ-এ শাকিব খান ও রাত্রির মধ্যকার সম্পর্ক নিয়ে একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছিলো ইতিপূর্বে। সব মিলিয়ে মিথ্যে অভিযোগের ভিত্তিতে অপু বিশ্বাসের সাথে ছাড়াছাড়ি, বুবলির সাথে ঘনিষ্টতা ইত্যাদি শাকিব খানের চারিত্রিক দুর্বলতাই প্রকাশ করে। রাত্রির সাথে যা ঘটেছিলো, অপু বিশ্বাসের সাথেও তা ঘটেছে, বুবলির ভাগ্যে কী আছে, কে বলতে পারে!



সর্বশেষ খবর